শেষ শ্রাবণে

শেষ শ্রাবণে বৃষ্টির অঝোর ধারা, শূন্যঘরে আমি একা
কাটে না অলস সময়, শুধু নিঃশেষ হয় ফিনলে চা।
পাশের বাসার ঝিনুক থাই জানালায় মুখ তুলে চায়
চোখ টিপে হয় ভাষা বিনিময়।
শ্রাবণের বৃষ্টি উপেক্ষা করে, বৃষ্টিতে ভিজতে ঝিনুক আসে ছুটে 
এক একর ফসলি জমিতে ঝিনুক হামাগুড়ি খায়
ভেতরে আমার ঝড় বয়
বৃষ্টি শেষে ঝিনুকের বুকে নিজেকে মুক্তা মনে হয়।


রুদ্রর কবিতা উচ্চারণ থেকে কথনে
রুদ্রর বহির্মুখী চেতনারাশির ওপর তার ভাবকল্প ও সংরাগবহুলতার তোড় আছড়ে
বিস্তারিত
আলো জেলে রাখি কবিতার খাতায়
কী নীরব রাত! একা একা বসে লিখছি। লেখার মাঝে দুঃখগুলো
বিস্তারিত
কতিপয় বিচ্ছিন্ন মুহূর্তের টীকা
  ১. নিরন্তর শুষ্কতার বশে আমি এক মরুকাঠ; অথচ ঠান্ডাজলপূর্ণ কিছু
বিস্তারিত
রৈখিক রক্তে হিজলফুল
বৃষ্টি হৃদয় উঠোন ভিজিয়ে যায় বিপ্রতীপ বিভাবন আঁধারের ক্লান্তিলগ্নে চোখের
বিস্তারিত
অপারগতা
না তুষার ঝড় না মাইনাস ফোর্টি শীতের রাত তো, বুড়োটা কিছুক্ষণ
বিস্তারিত
যন্ত্রণার দীর্ঘশ্বাস
  অলীক স্বপ্ন, অসীম দহন, সমুখের হিসাব নিকাশ প্রদীপের শিখা ছিল
বিস্তারিত