টান

নিরলস শালিকের পায়ে হলুদ বর্ণ হয়ে জড়িয়ে থাকি 

চুষে নিই মাটির দীর্ঘশ্বাস।
শ্রাবণের বৃষ্টি জানে নাÑ
উড়াল খামে লিখেছি ফসলের ইতিবৃত্ত।
তাই আঁৎকে ওঠা কুয়াশার চাঙর ভোলাতে পারে না নবান্নের গল্প।

প্রমত্ত নদীর অধিক কিষানের শরীরে শরীরে কাদার রোশনাই
কিষানির হাতে হাতে আশির্বাদ-প্রমাণ কুলো,
মাঠ-ঘাট কিংবা পথের ধুলো;
পেছনে রেখে সড়ক-যানে ওঠতেইÑ 
পায়ে পড়ল চঞ্চলা মেয়েটির মায়ার শিকল!


আরব ছোটগল্পের রাজকুমারী
সামিরা আজ্জম ১৯২৬ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ফিলিস্তিনের আর্কে একটি গোঁড়া
বিস্তারিত
অমায়ার আনবেশে
সাদা মুখোশে থাকতে গেলে ছুড়ে দেওয়া কালি  হয়ে যায় সার্কাসের রংমুখ, 
বিস্তারিত
শারদীয় বিকেল
ঝিরিঝিরি বাতাসের অবিরাম দোলায় মননের মুকুরে ফুটে ওঠে মুঠো মুঠো শেফালিকা
বিস্তারিত
গল্পের পটভূমি ইতিহাস ও বর্তমানের
গল্পের বই ‘দশজন দিগম্বর একজন সাধক’। লেখক শাহাব আহমেদ। বইয়ে
বিস্তারিত
ধোঁয়াশার তামাটে রঙ
দীর্ঘ অবহেলায় যদি ক্লান্ত হয়ে উঠি বিষণœ সন্ধ্যায়Ñ মনে রেখো
বিস্তারিত
নজরুলকে দেখা
আমাদের পরম সৌভাগ্য, এই উন্নত-মস্তকটি অনেক দেরিতে হলেও পৃথিবীর নজরে
বিস্তারিত