কে কারে করিবে ক্ষমা

তুমি এক অনন্তের পাখি। 

গাছে গাছে বনে বনে মনে মনে
আকাশের মেঘে মেঘে গান গাওÑ
পথে পথে বাঁধো হৃদয়ের রাখি।

তুমি উড়ে উড়ে দূরে চলে যাও
ফিরে ফিরে আসো, ভালোবাসো।
তবু তুমি কেন এত কষ্ট পাও? 
কেন তুমি আমাকে কাঁদাও?

তুমি রাধা নওÑ নও তো পাঞ্চালী।
তুমি বৃন্দাবনে খোলো না দেহের ভাঁজ;
নদীকুলেÑ গঙ্গা-যমুনার সুখে 
দেবী, তুমি সর্বদেহে মনে 
সমর্পিত নও পঞ্চপা-বের বুকে। 
কামরাঙা লাইলীর মতো তুমি একা মরে যাওÑ
একা ভেসে যাও প্রেমের সাগরে। 

তুমি এক আটপৌরে নারীÑ তুমি শঙ্খমালা;
তুমি সোনার প্রতীমা, শ্যামাÑসুন্দরের ছবি;  
তোমার নীরব চোখে অস্থির প্রতীক্ষা করে 
এক চ-ীদাসÑ শ্যামাঙ্গীর রূপমুগ্ধ কবি;

কোথায় হারিয়ে যেতে চাও তুমি?
জীবন সহজ হয়, মরণ সহজ তবু
প্রেম যদি অপরাধÑ তবে, প্রিয়তমা
কার এতো শক্তি বলো, এত স্পর্ধা কার? 
কে কারে করিবে ক্ষমা? 


সাহিত্যের বর্ণিল উৎসব
প্রথম দিন দুপুরে বাংলা একাডেমির লনে অনুষ্ঠিত হয় মিতালি বোসের
বিস্তারিত
নিদারুণ বাস্তবতার চিত্র মান্টোর মতো সাবলীলভাবে
এ উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ভারতের প্রখ্যাত পরিচালক নন্দিতা দাস
বিস্তারিত
পাখি শিকারিদের পা
অর্ধমৃত চোখটি পাহারা দিতে দিতে ক্লান্ত হয়ে পড়ছে অন্য চোখ।
বিস্তারিত
এমনই নিশ্চিহ্ন হবে একদিন
এমনই নিশ্চিহ্ন হবে সব চিহ্ন একদিন মুছে যাবে অক্ষত ক্ষতচিহ্ন, ছোপ
বিস্তারিত
পদ্মপ্রয়াণ
বিগত পুকুর ভরাট করে সূর্যমুখীর চাষ করেছি  সেদিন জলের টান ছিঁড়ে
বিস্তারিত
মেঘ যেখানে ছুঁয়ে যায়
অপরূপ প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য উপভোগ করতে চাইলে সাজেক ভ্যালিতে দু-এক
বিস্তারিত