আবদাল

সুফিকোষ

আবদাল আরবি শব্দ। এটি বদল শব্দমূল থেকে গঠিত। আবদাল শব্দটি বহুবচন, একবচন হলো বাদিল। যার আভিধানিক অর্থÑ প্রতিনিধি, প্রতিনিধিত্বকারী, প্রতিনিধিত্বশীল, সম্মানিত ব্যক্তি। পরবর্তী স্থলাভিষিক্ত বা উত্তরাধিকারী। মূলত এটি খলিফার সমার্থক শব্দ হলেও একই সঙ্গে খালাফ ও সালাফ শব্দদ্বয়ের ভাব গ্রহণ ও ধারণ করে। বদল অর্থ পরিবর্তন, গুণ, মান, সংখ্যা, পরিমাণ এবং অবস্থা ও অবস্থানের পরিবর্তনসহ সামগ্রিক পরিবর্তনই এর আওতাভুক্ত। গুণ, মান, সংখ্যা, পরিমাণ, অবস্থা ও অবস্থানকেও বদল বলা হয়; কারণ এর অধিকারী ব্যক্তি বা বস্তু সদা পরিবর্তন হয় বা পরিবর্তিত হয়। কোরআনুল কারিমে রয়েছে : ‘ফা উলায়িকা ইয়ুবাদ্দিলুল্লাহু সায়্যিআতিহিম হাসানাত।’ অর্থাৎ ‘আল্লাহ তাদের বদিগুলোকে নেকিতে পরিবর্তন করে দেন।’ (সূরা ফুরকান : ৭০)। 

পরিভাষায় ‘আবদাল হলো তরিকত ও তাসাউফের সালিকিনদের সাতাশ বা ঊনত্রিশ স্তরের একটি স্তর এবং মাজমুআয়ে উছমানীতে বর্ণিত ইনসানের ঊনচল্লিশ পর্বের অষ্টদশ পর্ব; এটি বিলায়াতের বিশেষ ধাপ। এরা বিশেষ মর্যাদাসম্পন্ন এবং নৈকট্যপ্রাপ্ত ও সম্মানিত হয়ে থাকেন। সাধারণত তাসাউফের পরিভাষায় তাদের আবদাল বলা হয়, যারা আধ্যাত্মিক জগতে পরিবর্তন সাধনের সামর্থ্য লাভ করেন। 
আবদাল হলো সালিহিন বা নেককার ও সৎকর্মশীলদের একটি দল, যাদের মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালা দুনিয়ার অদৃশ্য জগতের নেজাম পরিচালনা ও স্থিতি করান। সর্বদা দুনিয়ায় এদের সংখ্যা থাকে সত্তর জন। এদের কোনো একজনের ইন্তিকাল হলে নতুন একজন তার স্থলাভিষিক্ত হন; তাই এদের আবদাল বা স্থলাভিষিক্ত নামে অভিহিত করা হয়। তাদের চল্লিশ জন শামে এবং ত্রিশ জন বিশ্বের অন্যান্য দেশ ও শহর-নগরে অবস্থান করেন। মুহাম্মাদ ইবনে শামীল (রহ.) এর সনদ সূত্রে বর্ণিত, হজরত আলী (রা.) বলেন, আবদাল থাকেন শামে, নুজাবা মিশরে। তিনি আরও বলেন, আবদাল হলো উত্তমের পরিবর্তে উত্তম ব্যক্তি। এদের ‘আওলিয়া উব্বাদ’ বলা হয়। (লিসানুল আরব, ইবনে মানযূর রহ., খ- : ১, পৃষ্ঠা : ৩৪৩-৩৪৫, অধ্যায় : বা)। 


বিশ্বাস ও কর্মে কোরআনের মহিমা
দুনিয়ার শান্তি ও আখেরাতের মুক্তির পথ রচনা করতে কোরআনে হাফেজ
বিস্তারিত
অসিয়ত কার্যকরের পদ্ধতি
প্রশ্ন : কোনো এক ব্যক্তি ওসিয়ত করলÑ সে মৃত্যুবরণ
বিস্তারিত
আলোর পরশ
কোরআনের বাণী পবিত্র কোরআনে বলা হয়েছেÑ ‘...আল্লাহ ব্যতীত অন্য কেউ এর
বিস্তারিত
ইখলাস ছাড়া আমল ফুটো থলিতে
নবী করিম (সা.) বলেন, ‘আল্লাহ তায়ালা সব আমলের মধ্যে শুধু
বিস্তারিত
ইসলামে শালীনতার গুরুত্ব
শালীনতা অর্থ মার্জিত, সুুন্দর ও শোভন হওয়া, ভদ্রতা, নম্রতা, লজ্জাশীলতা
বিস্তারিত
ইসলামি অর্থনীতির বৈশিষ্ট্য
ইসলামি অর্থনীতির এমন কিছু বিশেষত্ব ও বৈশিষ্ট্য রয়েছে; যেগুলো অপরাপর
বিস্তারিত