রাখাইনে রোহিঙ্গা নিধন

আইসিসিতে ১৩২ আসিয়ান এমপির মিয়ানমারের বিচার দাবি

দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় দেশগুলোর জোট আসিয়ানের ১৩২ জন সংসদ সদস্য আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) মিয়ানমারের বিচার দাবি করেছেন। এক বছর আগে মিয়ানমারের রাখাইনে সহিংসতার পর এটাই দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে সবচেয়ে ঐক্যবদ্ধ প্রতিবাদ। খবর ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান-এর।

আসিয়ান পার্লামেন্টারিয়ানস ফর হিউম্যান রাইটস (এপিএইচআর) প্রকাশিত এক যৌথ বিবৃতিতে এই বিচার চাওয়া হয়েছে। তারা রাখাইন রাজ্যে হত্যাযজ্ঞ পরিচালনার জন্য মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে বিচারের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছেন।

১৩২ এমপির তরফে কথা বলেন মালয়েশিয়ার জোট সরকারের রাজনীতিবিদ চার্লস সান্তিয়াগো। তিনি বলেন, নিজের অপরাধ নিয়ে মিয়ানমার তদন্ত করতে অক্ষম ও অনিচ্ছুক। কাজেই আমরা এমন একটি স্তরে রয়েছি যে মিয়ানমারকে জবাবদিহিতার আওতায় নিয়ে আসতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের পরিস্থিতিকে আন্তর্জাতিক আদালতে নিয়ে যেতে আরও ১৩১ এমপির সঙ্গে সংহতি জানিয়ে আমি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কাছে আহ্বান জানাচ্ছি।

মিয়ানমারে যারা এই ভয়াবহ অপরাধের সঙ্গে জড়িত, তাদের অবশ্যই বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। ভবিষ্যতে একই অপরাধ করার জন্য তাদের মুক্তভাবে ছেড়ে দেয়া যায় না, জানালেন মালয়েশিয়ার এ পার্লামেন্ট সদস্য।

রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে রাখাইনে জাতিগত নিধন শুরু হওয়ার এক বছরপূর্তির আগের দিন শুক্রবার দায়ীদের বিচারের আওতায় আনতে এ সম্মিলিত আহ্বান জানানো হয়েছে
মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর অভিযানে ২৫ হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা ও গ্রামের পর গ্রাম এ সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর বাড়িঘর গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। নারীরা গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। জাতিসংঘের ভাষায় যেটি জাতিগত নিধনের জ্বলন্ত উদহারণ।

এক যৌথ বিবৃতিতে আসিয়ান এমপিরা বলেন, রোহিঙ্গাসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর ওপর নিপীড়ন ও মানবাধিকার লঙ্ঘন বন্ধ করতে মিয়ানমার সরকার এবং দেশটির সেনাবাহিনীর ওপর চাপ বাড়াতে হবে।
 
বিবৃতিদাতা আইনপ্রণেতারা হচ্ছেন ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইনস, সিঙ্গাপুর ও পূর্ব তিমুরের পার্লামেন্ট সদস্য।

সেখানে বলা হয়, মিয়ানমার রোম সংবিধিতে স্বাক্ষর না করায় রোহিঙ্গা নিপীড়নের ঘটনায় তাদের বিচারের মুখোমুখি করার এখতিয়ার হেগের আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) নেই।

এ অবস্থায় কেবল জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদই পারে আইসিসির মাধ্যমে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত শুরুর ব্যবস্থা করতে।

বিবৃতিদাতা এমপিরা দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক জোট আসিয়ানকেও এ বিষয়ে উদ্যোগী হওয়ার তাগিদ দিয়েছেন। আসিয়ানের সদস্য দেশ ইন্দোনেশিয়া আগামী বছর জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যোগ দিচ্ছে অস্থায়ী সদস্য হিসেবে।

ইন্দোনেশিয়া ও আসিয়ান যাতে মানবাধিকার লঙ্ঘন বন্ধের জন্য মিয়ানমার সরকার ও দেশটির সেনাবাহিনীর ওপর আরও চাপ সৃষ্টি করে- সে আহ্বানও জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।

জাতিসংঘের বিশেষ দূত ইয়াংগি লি যাতে মিয়ানমারে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাগুলো তদন্ত করার সুযোগ পান, সেজন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমর্থন চেয়েছেন দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এ এমপিরা।

তাদের বিবৃতিতে বলা হয়, মিয়ানমারে সুবিচারের অভাব কেবল রোহিঙ্গাদের নয়, কাচিন ও শানপ্রদেশে অন্যান্য ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর ওপরও প্রভাব ফেলছে, যেখানে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সংঘটিত যুদ্ধাপরাধের কারণে হাজারো মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।


বাংলাদেশে অস্ত্র পাচার করতে গিয়ে
গোপন খবরের ভিত্তিতে ২টি পিস্তল ও ৭ রাউন্ড বুলেটসহ তিন
বিস্তারিত
মালদ্বীপে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ইব্রাহিম সোলির
মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধী দলীয় প্রার্থী ইব্রাহিম মোহাম্মাদ সোলি জয়লাভ
বিস্তারিত
ইন্দোনেশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচার শুরু
ইন্দোনেশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচার রোববার (২৩ সেপ্টেম্বর) শুরু হয়েছে। আগামী
বিস্তারিত
মালদ্বীপে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট গ্রহণ
মালদ্বীপে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রোববার ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। স্থানীয় সময়
বিস্তারিত
চীনে ১ লাখ ৪০ হাজার
চীনের পুলিশ বন্দুক ও বিস্ফোরক সংক্রান্ত ৩৩ হাজারের বেশি মামলা
বিস্তারিত
ইরানের সামরিক কুচকাওয়াজে হামলা: ৩
ইরানে সামরিক বাহিনীর বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজে বন্দুকধারীদের প্রাণঘাতী হামলার পর সেখানে
বিস্তারিত