রাখাইনে রোহিঙ্গা নিধন

আইসিসিতে ১৩২ আসিয়ান এমপির মিয়ানমারের বিচার দাবি

দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় দেশগুলোর জোট আসিয়ানের ১৩২ জন সংসদ সদস্য আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) মিয়ানমারের বিচার দাবি করেছেন। এক বছর আগে মিয়ানমারের রাখাইনে সহিংসতার পর এটাই দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে সবচেয়ে ঐক্যবদ্ধ প্রতিবাদ। খবর ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান-এর।

আসিয়ান পার্লামেন্টারিয়ানস ফর হিউম্যান রাইটস (এপিএইচআর) প্রকাশিত এক যৌথ বিবৃতিতে এই বিচার চাওয়া হয়েছে। তারা রাখাইন রাজ্যে হত্যাযজ্ঞ পরিচালনার জন্য মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে বিচারের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছেন।

১৩২ এমপির তরফে কথা বলেন মালয়েশিয়ার জোট সরকারের রাজনীতিবিদ চার্লস সান্তিয়াগো। তিনি বলেন, নিজের অপরাধ নিয়ে মিয়ানমার তদন্ত করতে অক্ষম ও অনিচ্ছুক। কাজেই আমরা এমন একটি স্তরে রয়েছি যে মিয়ানমারকে জবাবদিহিতার আওতায় নিয়ে আসতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি বলেন, মিয়ানমারের পরিস্থিতিকে আন্তর্জাতিক আদালতে নিয়ে যেতে আরও ১৩১ এমপির সঙ্গে সংহতি জানিয়ে আমি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কাছে আহ্বান জানাচ্ছি।

মিয়ানমারে যারা এই ভয়াবহ অপরাধের সঙ্গে জড়িত, তাদের অবশ্যই বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। ভবিষ্যতে একই অপরাধ করার জন্য তাদের মুক্তভাবে ছেড়ে দেয়া যায় না, জানালেন মালয়েশিয়ার এ পার্লামেন্ট সদস্য।

রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে রাখাইনে জাতিগত নিধন শুরু হওয়ার এক বছরপূর্তির আগের দিন শুক্রবার দায়ীদের বিচারের আওতায় আনতে এ সম্মিলিত আহ্বান জানানো হয়েছে
মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর অভিযানে ২৫ হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা ও গ্রামের পর গ্রাম এ সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর বাড়িঘর গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। নারীরা গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। জাতিসংঘের ভাষায় যেটি জাতিগত নিধনের জ্বলন্ত উদহারণ।

এক যৌথ বিবৃতিতে আসিয়ান এমপিরা বলেন, রোহিঙ্গাসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর ওপর নিপীড়ন ও মানবাধিকার লঙ্ঘন বন্ধ করতে মিয়ানমার সরকার এবং দেশটির সেনাবাহিনীর ওপর চাপ বাড়াতে হবে।
 
বিবৃতিদাতা আইনপ্রণেতারা হচ্ছেন ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইনস, সিঙ্গাপুর ও পূর্ব তিমুরের পার্লামেন্ট সদস্য।

সেখানে বলা হয়, মিয়ানমার রোম সংবিধিতে স্বাক্ষর না করায় রোহিঙ্গা নিপীড়নের ঘটনায় তাদের বিচারের মুখোমুখি করার এখতিয়ার হেগের আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) নেই।

এ অবস্থায় কেবল জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদই পারে আইসিসির মাধ্যমে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত শুরুর ব্যবস্থা করতে।

বিবৃতিদাতা এমপিরা দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক জোট আসিয়ানকেও এ বিষয়ে উদ্যোগী হওয়ার তাগিদ দিয়েছেন। আসিয়ানের সদস্য দেশ ইন্দোনেশিয়া আগামী বছর জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যোগ দিচ্ছে অস্থায়ী সদস্য হিসেবে।

ইন্দোনেশিয়া ও আসিয়ান যাতে মানবাধিকার লঙ্ঘন বন্ধের জন্য মিয়ানমার সরকার ও দেশটির সেনাবাহিনীর ওপর আরও চাপ সৃষ্টি করে- সে আহ্বানও জানানো হয়েছে বিবৃতিতে।

জাতিসংঘের বিশেষ দূত ইয়াংগি লি যাতে মিয়ানমারে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনাগুলো তদন্ত করার সুযোগ পান, সেজন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমর্থন চেয়েছেন দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এ এমপিরা।

তাদের বিবৃতিতে বলা হয়, মিয়ানমারে সুবিচারের অভাব কেবল রোহিঙ্গাদের নয়, কাচিন ও শানপ্রদেশে অন্যান্য ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর ওপরও প্রভাব ফেলছে, যেখানে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সংঘটিত যুদ্ধাপরাধের কারণে হাজারো মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে।


খাসোগি হত্যাকাণ্ড : উভয় সংকটে
সাংবাদিক খাসোগি হত্যার সঙ্গে সৌদি আরবের জড়িত থাকার বিষয়টি মার্কিন
বিস্তারিত
পৃথক দুটি বন্দুক হামলায় যুক্তরাষ্ট্রে
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোর একটি হাসপাতালে বন্দুকধারীর গুলিতে পুলিশ কর্মকর্তা ও
বিস্তারিত
ফাঁস হলো খাশোগির খণ্ড বিখণ্ড
তুরস্কে সৌদি কনস্যুলেটের অভ্যন্তরে সৌদি আরবের রাজতন্ত্র বিরোধী সাংবাদিক জামাল
বিস্তারিত
সিরিয়ায় তুর্কিপন্থী বিদ্রোহীদের মধ্যে সংঘর্ষ,
সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় আফরিন শহরে তুর্কি সমর্থিত বিদ্রোহীদের দু’টি গ্রুপের মধ্যে
বিস্তারিত
ভারতে বাস খাদে পড়ে নিহত
ভারতের উত্তরাখণ্ডে একটি যাত্রীবাহী বাস ১৫০ মিটার গভীর খাদে পড়ে
বিস্তারিত
পরমাণু আলোচনার জন্য ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর
ব্রিটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারেমি হান্ট পরমাণু চুক্তি ও ইরানের বিভিন্ন কারাগারে
বিস্তারিত