ক্যারিয়ারে সফলতা

সবার আগে ভাবতে হবে, আমি কোন বিষয়ের উপর দক্ষ, কোন ব্যবসাটি আমি ভালো বুঝি, সেটা শুরু করলে ভালো করবেন

Dewan ICT এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ, আইটি ডিভিশন, এনটিভি ও আইসিটি ইন্সট্রাক্টর, ব্যানবেইস, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আইটি কনস্যান্টেট মো. জুলহাস মিয়া। তার এ সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেনÑ তারুণ্য প্রতিবেদক   

আপনি তো দেওয়ান আইসিটির প্রতিষ্ঠাতা, দেওয়ান আইসিটির মূল লক্ষ্য আমাদের সঙ্গে শেয়ার করবেন কি? 

দেওয়ান আইসিটি একটি আইসিটি কোম্পানি। আমাদের মূল লক্ষ্য হলো বাংলাদেশসহ বিশ্বে আইসিটি সেবা প্রধান করা ও আইসিটিতে দক্ষ কিছু জনবল তৈরি করা যা নিয়ে আমরা এখন কাজ করছি। 

আইসিটিতে আমরা এখনও উন্নত দেশের তুলনায় অনেক পিছিয়ে, তাই চেষ্টা করছি ভালো ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে কিছু দক্ষ কারিগর তৈরি করা। 

দেওয়ান আইসিটি কী কী সেবা দিয়ে থাকে? 

প্রথম থেকেই আমরা কম্পিউটার ট্রেনিং শুরু করি এবং বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদন পাই। আমাদের প্রতিষ্ঠান কোড : ৫০৬৭৯,  তারপর আমরা আইটির সব সেবা  আস্তে আস্তে শুরু করি। যেমনÑ 

১. প্রফেশনাল কম্পিউটার ট্রেনিং

২. ডোমেইন ও হোস্টিং রেজিস্ট্র্রেশন

৩. ডিজিটাল মার্কেটিং

৪. সফ্টওয়্যর ডেভেলপমেন্ট ও সেলস 

৫. ওয়েবসাইট ডিজাইন

৬. কম্পিউটার সেলস ও সার্ভিসিং

৭. আইটি কনসালটেন্ট 

ক্যারিয়ার নির্বাচন করার ক্ষেত্রে তরুণ প্রজন্মের কোন জিনিসটির প্রতি গুরুত্ব দেওয়া উচিত?

ক্যারিয়ার নির্বাচন করার ক্ষেত্রে তরুণ প্রজন্মের সবচেয়ে গুরুত্ব দেয়া উচিত তার পছন্দ এবং আগ্রহের ওপর। যে যা করতে ভালোবাসে এবং যে পেশার প্রতি আগ্রহ আছে সেটাই তার ক্যারিয়ার হিসেবে নেওয়া উচিত এবং তাতে বুঝতে হবে, সে আসলে কোন বিষয়ের ওপর দক্ষ। তাহলে সফল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যাবে। 

আপনার কোম্পানির ইতিহাসে সবচেয়ে সুখের মুহূর্ত কী ছিল?

যে কোনো প্রতিষ্ঠানই বিভিন্ন ধরনের কঠিন এবং চমকপ্রদ সময়ের মধ্য দিয়ে যায়।  আমাদের  কোম্পানির চমক ও ভালো লাগার মুহূর্ত হলো আমার টিমের প্রত্যেকের  জন্মদিন পালন করা। 

আপনার ব্যবসার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অনুশীলন কী?

আমরা উদাহরণভিত্তিক কাজের মাধ্যমে ভালো কাজের সংস্কৃতি ধরে রাখি। আমরা সব সময় মানুষকে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে সঠিক কাজ করার জন্য উৎসাহিত করি যেন গ্রাহকরা আমাদের কাজকে ভালোবাসে।

আমরা স্বল্পমেয়াদি ফলাফলে বিশ্বাস করি না, আর তাই আমাদের কার্যক্রম ভবিষ্যতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার উপোযোগী করে পরিকল্পনা করা হয়।

কোনটি আপনার সফলতার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ?

আমার সফলতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ কারণ আমার পরিবার। আমি বড় ছেলে হওয়ায় আমার পরিবারের অনেক বিষয় আমার দেখতে হতো ও আমি জানতাম। আর এগুলো থেকে আমার মনে হয়েছে, আমাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। আর আমি কঠোর পরিশ্রম করতে ভালোবাসি। আর আল্লাহর কাছে আমার প্রার্থনা রহমত যে, তিনি যেন আমাকে সুস্থ রাখেন। মানুষ সুস্থ না থাকলে কাজ করতে পারবে না। আমি আমার পরিবারকে অনেক ভালোবাসি, সেটাও আমার সফলতার কারণ হতে পারে । তবে আমার কাছে মনে হয় সফলতার অনেক দূরে আছি, চেষ্টা করছি সেখানে পৌঁছতে।

কোন ডিভাইসগুলো দিয়ে সবচেয়ে বেশি কাজ করেন, কেন?

ল্যাপটপ, ডেস্কটপ ও আইফোন আমার খুবই পছন্দের, কারণ এগুলো অসাধারণ কাজ করে। ঢাকার বাইরে গেলে আমার আইফোনটাই সবচেয়ে ভালো কাজে আসে, যেমনÑ আমি ডোমেইন, হোস্টিং ও সার্ভারে লাইন করার জন্য এটা দারুণ কাজ করে। আমার প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন কাজ যেমন ডিজিটাল মার্কেটিং করার জন্য, ফেইসবুক এডস, গুগোল অ্যাডওয়াডসহ বিভিন্নভাবে দারুণ কাজে আসে। তাই সঙ্গে ল্যাপটপ না নিলেও হয়।   

তিনটি অ্যাপ/সফটওয়ার/টুলস যেটি ছাড়া একদিনও চলা সম্ভব নয়?

* এড়ড়মষব ংবধৎপয Ñআমার প্রফেসর।

* গধরষ Ñএটা আমাকে কানেক্টেড থাকতে এবং ব্যবসায়িক কাজে সহায়তা করে।

* সোশ্যাল মিডিয়া। 

আপনার জীবনে সবচেয়ে ভালো উপদেশ কী পেয়েছেন?

আমার মা বলতেন সব সময় বড়দের সম্মান করবো। আমার জীবনে আমার মনে হয় আমি এই বয়সে যে সম্মান পেয়েছি সেটা সম্মান করার কারণেই হয়েছে। সব সময় যেন সেটা করে যেতে পারি।  

যে কোনো জটিল পরিস্থিতিতে নিজের কাজ করার মানসিকতা ঠিক রাখার জন্য আপনি কি করেন?

আমি চেষ্টা করি মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করার। আর সঙ্গে সঙ্গে কোনো অ্যাকশনে যাই না, সেটা নিয়ে পরে ভাববো বলে গান শুনি বা ছবি দেখে সাময়িকের জন্য সেটা ভুলে থাকার চেষ্টা করি। 

আপনি ভবিষ্যৎ উদ্যোক্তাদের জন্য আর কিছু যুক্ত করতে চান?

অনেকে আছেন যারা চোখের নেশায় ব্যবসা শুরু করেন। যেমন উনি তো ভালো করছেন আমি কেন পারব না, আসলে আপনাকে সবার আগে যেটা ভাবতে হবেÑ আমি কোন বিষয়ের উপর দক্ষ, কোন ব্যবসাটি আমি ভালো বুঝি, সেটা শুরু করেন ভালো করবেন। 

আর আপনাকে একটু টাইম নিয়ে ব্যবসা শুরু করা ভালো, অনেকেই আছেন কিছুদিন চাকরি করেই মনে করেন আমিও তো এমন একটা ব্যবসা পরিচালনা করতে পারব, তারপরই শুরু করে দেন। এটা আমার মনে হয় সঠিক সিদ্ধান্ত না। আপনাকে অনেক দিন একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে ভালোভাবে বুঝে তারপর শুরু করুন। আর কঠোর পরিশ্রম করুন, আপনি কঠোর পরিশ্রম ব্যতীত কোনো ক্ষেত্রেই সফল হতে পারবেন নয়। নিজে সৎ থেকে আপনার আত্মসম্মানবোধকে সর্বদা রক্ষা করবেন, সততা আপনার কাছ থেকে কেউ কেড়ে নিতে পারবে না।

আপনার জীবনের সবচেয়ে বড় কৌশল কী?

অতি বিচলিত হই না, কিছুতে ঝামেলা লাগলে চেষ্টা করি মিটিয়ে ফেলতে। আমি জানি, আমি অনেক ভুল করি। ভুলোমনা বলে একই ভুল অনেকবারও করি। তবে জানি, আমার এসব ভুলে পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে না, তাই ভুলকে সহজভাবে নিই।

ভুল স্বীকার করি, চেষ্টা করি ভুলের কারণে যে সমস্যা হলো সেটাকে ধামাচাপা না দিয়ে ঠিক করে ফেলার।


ক্যারিয়ার গঠনে পরামর্শ
প্রতি বছর কলেজ এবং ইউনিভার্সিটির নতুন ডিগ্রিধারীরা বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক চাকরির
বিস্তারিত
‘তথ্যে তারুণ্যে নিত্য সত্যে’ প্রতিপাদ্য
‘তথ্যে তারুণ্যে নিত্য সত্যে’ প্রতিপাদ্য নিয়ে বর্ণাঢ্য আয়োজনে ১৯ সেপ্টেম্বর
বিস্তারিত
জাবির ২৫ শিক্ষার্থী জাপানে চাকরি
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২৫ শিক্ষার্থীকে
বিস্তারিত
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ‘টিআইবি-ডিআইইউ ইয়েস
ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ
বিস্তারিত
চট্টগ্রামে ১০ দিনব্যাপী রবি-দৃষ্টির বিতর্ক
চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমি অডিটরিয়ামে রবি-দৃষ্টির আয়োজনে ১০ দিনব্যাপী বিতর্ক প্রতিযোগিতা
বিস্তারিত
ইস্টওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে শীতকালীন সেমিস্টারের নবীনবরণ
নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দেশের অন্যতম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, ইস্টওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়
বিস্তারিত