প্রযুক্তি ভীতির কারণেই বিএনপির ইভিএম বিরোধিতা: হাছান

বিএনপি প্রযুক্তিকে ভয় পায় বলেই ইভিএম বিরোধিতা করছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ ছাত্রলীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব স্মরণে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইব্রাহিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক সাঈদুর রহমান হৃদয় ও দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের আহমেদ। 

হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচন কমিশন সিমীত আকারে ইভিএম ব্যবহারের ঘোষণা দেয়ায় বিএনপির যে গাত্রদাহ তাতে মনে হচ্ছে তারা(বিএনপি) প্রযুক্তিকে ভয় পায়। ১৯৯২, ৯৩ সালে বেগম খালেদা জিয়াকে বিনামূল্যে সাবমেরিন ক্যাবল সরবরাহের প্রস্তাব করলে তিনি তার বিরোধীতা করে বলেছিলেন এতে দেশের গোপনীয়তা ভঙ্গ হবে। পরবর্তীতে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে কয়েকশত কোটি টাকা খরচ করতে হয়েছে। এতে দেশের অনেক আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। অর্থাৎ বেগম জিয়ার প্রযুক্তি জ্ঞান ছিলো না। আজকে যখন ইভিএমের কথা বলা হচ্ছে তখন বেগম জিয়ার দলের নেতারা বলছে ইভিএম ব্যাবহার করা যাবে না। অর্থাৎ বিএনপি এবং তাদের দলের নেতারা প্রযুক্তিকে ভয় পায়।

ছাত্রলীগের প্রত্যেক ইউনিটে আইটি সেল গঠনের অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আজকে সাত থেকে অাট কোটি মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সক্রিয়। তাই গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সক্রিয় হয়ে যদি জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা জনগনের কাছে পৌছে দিতে পারি তাহলে যাদের চোখ, কান, বিবেক এবং বুদ্ধি আছে তারা নৌকা ব্যতীত অন্য কোথাও ভোট দিবেনা।

সভাপতির বক্তব্যে মো. ইব্রাহিম নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে আবারো বিজয়ী করতে মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ সার্বক্ষণিক মাঠে থাকবে। একই সাথে আন্দোলনের নামে রাজধানীতে যদি কোন গোষ্ঠী বিশৃঙ্খলার পরিবেশ সৃষ্টি করতে চায় তবে তাদের প্রতিহত করা হবে।

নেতাকর্মীদের ব্যবহৃত যানবাহনে ছাত্রলীগের স্টিকার ব্যাবহার না করার অনুরোধ করে বলেন, সংগঠনের ক্ষতি করার জন্য অনেকে ছাত্রলীগের স্টিকার ব্যবহার করে অপকর্ম করে। তাই সকলকে এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। রাস্তা-ঘাটে কোন যানবাহনে ছাত্রলীগের স্টিকার ব্যবহার করা যাবে না। 

এ সময় ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার অন্যতম আসামী তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে এনে তার বিচারের দাবি জানান মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের এই সভাপতি।  

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে অালম মুরাদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি মেহেদী হাসান প্রমুখ।


বাম জোটের মিছিলে পুলিশের লাঠিপেটা,
বাম গণতান্ত্রিক জোটের নির্বাচন কমিশন ঘেরাও কর্মসূচি পুলিশের বাধায় পন্ড
বিস্তারিত
‘ভোটা ছাড়া নির্বাচন করলে একদিনও
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন,
বিস্তারিত
উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখাতে নৌকায়
আওয়ামী লীগের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখাতে আবারো নৌকায় ভোট দেওয়ার
বিস্তারিত
‘দুর্নীতি লুকাতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন’
গণমাধ্যমের হাত-পা বেঁধে ফেলতে বির্তকিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাস করা
বিস্তারিত
‘অন্তর্জ্বালা থেকেই মনগড়া বই লিখেছেন
সুরেন্দ্র কুমার সিনহা (এস কে সিনহা) সাবেক হওয়ার অন্তর্জ্বালা থেকেই
বিস্তারিত
নির্বাচনকালীন সরকারে থাকতে পারি: এরশাদ
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ বলেছেন, আসন্ন সংসদ নির্বাচনে
বিস্তারিত