নির্বাচনকালীন সরকার হচ্ছে অক্টোবরের মাঝামাঝিতে

আগামী অক্টোবর মাসের মাঝামাঝি সময়ে নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কদের।

সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মঙ্গলবার সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে গঠিত নির্বাচনকালীন সরকারে টেকনোক্র্যাট কেউ থাকবেন না। আগামী মাসের মাঝামাঝি এই সরকার গঠন হতে পারে।

এছাড়া আসন্ন নির্বাচনে দলের নবীন মনোনয়ন প্রত্যাশীদের নিয়ে তিনি বলেন, দলের মধ্যে যারা নবীন তারা যদি জনপ্রিয়তায় এগিয়ে থাকেন, তবে তারা অবশ্যই প্রায়োরিটি পাবেন।

তিনি বলেন, নির্বাচনকালীন সরকারে বাইরের কেউ আসবে না। আমি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করেছি। টেকনোক্র্যাট কেউ আসবে না, আকারটা ছোট হবে। তবে জাতীয় পার্টি তাদের দু’একজনকে অন্তর্ভুক্ত করতে বলেছে, অনুরোধ করেছে। সেটাও প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার, তিনি কতটা বিবেচনা করবেন, তা এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এগুলো আলাপ-আলোচনার পর্যায়ে আছে।

অক্টোবরের কবে নাগাদ নির্বাচনকালীন সরকার গঠন হবে এবং আকার কেমন হবে? সাংবাদিকরা জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, নাগাদটা এখন বলব না। অক্টোবরে হবে, হয়তো মাঝামাঝি। এবারো নির্বাচনকালীন সরকারের আকার গতবারের কাছাকাছি হবে। সরকারের আকারটা ছোট হবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাদের বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৬০ থেকে ৭০ জন প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়ার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ইঙ্গিত দিয়েছে। এছাড়া জোটগতভাবে নির্বাচন করলে শরীকদের জন্য ৬৫ থেকে ৭০টি আসন ছেড়ে দেয়া হবে।

১০০ জনের তালিকা করা হয়েছে বলে যে কথা শোনা যাচ্ছে, সে প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, এমন কোনো তালিকা যদি হয়ও, তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া আর কেউ জানেন না।

তিনি বলেন, গতবার আমরা যাদের মনোনয়ন দিয়েছিলাম, এরমধ্যে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে, যারা জনগণের কাছে তাদের বা তাদের আশপাশের লোকের জন্য অসুবিধায় পড়েছেন, তাদের মধ্যে নবীনের সংখ্যাও একেবারে কম নয়।

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ব্যাপারে দলীয় সিদ্ধান্ত নিয়ে তিনি আরো বলেন, মনোনয়ন প্রত্যাশীদের উঠান বৈঠক ও গণসংযোগ করে মানুষের কাছে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরতে হবে। আরো ভালোভাবে কাজ করলে আপনার মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।

এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি নির্বাচনে না এলে জাতীয় পার্টি আলাদাভাবে নির্বাচন করবে বলে তারাই ঘোষণা দিয়েছে। মেরুকরণ যেভাবে হবে, জোটের সমীকরণ সেভাবেই হবে।

খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে বিএনপি রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ করে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার দরকার উন্নতমানের চিকিৎসা। উন্নত চিকিৎসার জন্য যে হাসপাতালে চিকিৎসা সম্ভব, সেখানে যেতে আপত্তি কোথায়? আসলে বিএনপি খালেদা জিয়ার চেয়ে তার অসুস্থতা নিয়ে রাজনীতি করছে। এটাকে ইস্যু বানিয়ে আন্দোলন করতে চাইছে।

মন্ত্রী জানান, নির্বাচনী সফরে তিনি আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর লঞ্চযোগে পটুয়াখালী ও বরগুনা এবং ২২ ও ২৩ সেপ্টেম্বর সড়কপথে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার যাবেন।


১ম ও ২য় শ্রেণির চাকরিতে
প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির (৯ম থেকে ১৩তম গ্রেডে চাকরির ক্ষেত্রে)
বিস্তারিত
শহিদুলের ডিভিশন আদেশ বহাল
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে করা মামলায় গ্রেফতার দৃক গ্যালারির
বিস্তারিত
নাটোরে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১
নাটোরের বড়াইগ্রামে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে সিরাজ উদ্দিন (৩৫) নামের এক
বিস্তারিত
বিএনপির অনুরোধ সাড়া পাবে না
আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিএনপি সালিশ-নালিশ বা অনুরোধ করে সাড়া পাবে না
বিস্তারিত
শাহজালালে ১৬শ’কেজি নেশার পাতা ‘এনপিএস’
হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অভিযান চালিয়ে ইথিওপিয়া থেকে আসা নতুন
বিস্তারিত
প্রথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ, চূড়ান্ত
সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা
বিস্তারিত