নরসিংদীতে সংর্ঘষ, আহত ৪

নরসিংদীর শিবপুরে মহাসড়কে ট্রলি চলাচলকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসীর সঙ্গে হাইওয়ে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে দুই পুলিশ সদস্য সহ চার জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহতবস্থায় সবাইকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। 

শুক্রবার দুপুরে শিবপুর উপজেলার চৈতন্যা বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

আহতরা হলেন, হাইওয়ে পুলিশের কনসটেবল মাহবুব মিয়া, বিলাল হোসেন, সবুজ পাহাড় কলেজের শিক্ষার্থী অহিদ্দুল্লা (১৯) ও ব্যবসায়ী মোহন মিয়া (৪০)। তাদের বাড়ি শিবপুর উপজেলার চৈতন্যা গ্রামে। 

এলাকাবাসীর দাবী মহাসড়কের পাশে বসানো বিভিন্ন ফলের দোকান থেকে ৫০০ টাকা করে চাঁদাদাবী করেন হাইওয়ে পুলিশ। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে পুলিশ তাদের উপর চড়াও হয়ে দোকানপাট ভেঙ্গে দেয়। তারপরই এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ইট বোঝাই একটি ট্রলি মহাসড়ক দিয়ে যাচ্ছিল। টহলরত হাইওয়ে পুলিশ ট্রলিটিকে আটক করে সাত হাজার টাকা আদায় করেন। এরই মধ্যে ট্রলিটি সাইড করতে গিয়ে রাস্তার পাশে গর্তে পড়ে যায়। এসময় পুলিশ গাড়িটিকে মহাসড়ক থেকে সড়িয়ে নিতে চালককে তাড়া দেয়। কিন্তু কোন ভাবেই ট্রলি গাড়িটিকে উঠাতে পারছিল না চালক। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে হাইওয়ে পুলিশ সদস্যরা ট্রলির চালককে মারপিট শুরু করে। এসময় মহাসড়কের পাশে বসানো ফলের দোকানদারা এগিয়ে এসে মারপিটের প্রতিবাদ করলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে পুলিশ সদস্যরা ফল দোকানির উপর লাঠিচার্জ করেন।  

খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এতে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়। এসময় পরিস্থিতি শান্ত করতে পুলিশের ছোড়া গুলিতে এক কলেজ ছাত্র ও এক ব্যবসায়ী আহত হন। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। 

ঘটনার পর সংবাদ পেয়ে আহতদের দেখতে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে আসেন, শিবপুরের সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, শিবপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম মৃধা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. শফিউর রহমান, শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদসহ রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।

ইটাখোলা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান বলেন, সরকারের চলমান কর্মসূচী ও সড়ক দুর্ঘটনা রোধের অংশ হিসেবে মহাসড়কে থ্রি-হুইলারসহ নসিমন ও ট্রলি বন্ধের অভিযান চলছিল। এরই মধ্যে একটি ট্রলিতে ইট বোঝাই করে মহাসড়ক দিয়ে যাচ্ছিল। পুলিশ ট্রলিটিকে আটক করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয়রা পুলিশের উপর হামলা চালায়। আমাদের দুই পুলিশ সদস্যকে আটকে রেখে অস্ত্র ছিনিয়ে নিয়ে মারধর করে। অবস্থার অবনতি হলে পুলিশ শর্টগানের কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। পরে শিবপুর থানা পুলিশ গিয়ে আমাদের অস্ত্র উদ্ধার করে।


এক লাখ ইয়াবাসহ ৪ মাদক
কক্সবাজারের গভীর বঙ্গোপসাগরে অভিযান চালিয়ে এক লাখ ইয়াবাসহ চার মাদক
বিস্তারিত
চকরিয়ায় মহাসড়কে দীর্ঘ মানববন্ধন
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে বিভিন্ন বিলাসবহুল বাসে চকরিয়াসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলার যাত্রীদের জন্য
বিস্তারিত
সিরাজগঞ্জে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ইউপি
সিরাজগঞ্জে পৃথক ২টি সড়ক দুর্ঘটনায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানসহ তিনজন নিহত
বিস্তারিত
নাটোরে যুবলীগ নেতা হাসান হত্যার
যুবলীগ নেতা হাসান আলী হত্যার ঘটনায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে
বিস্তারিত
রূপগঞ্জে চিকিৎসা নিতে এসে কবিরাজের
নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে চিকিৎসা করাতে এসে কবিরাজের ধর্ষণের শিকার হয়েছেন রাজধানীর
বিস্তারিত
বাঁশখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২
চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার ২নং সাধনপুর ইউনিয়নের বানীগ্রাম সিএনজি পেট্রোল পাম্পের
বিস্তারিত