ঢাবিতে বক্তারা

নৈতিক চেতনার মাধ্যমে বিশ্বব্যবস্থা পরিবর্তন সম্ভব

মানুষের মধ্যে বৈষম্য বাড়ছে। শক্তিশালী রাষ্ট্রের মধ্যে দুর্বল রাষ্ট্রের বৈষম্য বাড়ছে। অল্প কিছু রাষ্ট্র দুনিয়াব্যাপী দুর্বল রাষ্ট্রের সাধারণ মানুষকে উন্নত হতে দিচ্ছে না। বাংলাদেশেও এই ব্যবস্থা প্রবাল আকার ধারণ করেছে। দুর্বলরা তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পারছে না। এজন্য জনগণের সংগ্রাম ও নৈতিক চেতনার মাধ্যমে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিশ্বব্যবস্থা পরিবর্তন করতে হবে। 

বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ‘ইমেজিং সাউথ এশিয়ান কালচার ইন নন-ইংলিশ: রিকনস্ট্রাকিং পপুলার টেক্সুয়াল এন্ড ভিজুয়াল রিপ্রেসেন্টেশনস’বিষয়ক গবেষণা প্রবন্ধের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বক্তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের লেকচার থিয়েটার ভবনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আবু রায়হান বিরুনী ফাউন্ডেশন।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ফিলো রয়েল সোসাইটি এন্ড আর্টসের (এফআরএসএ) প্রধান সম্পাদক তাসলীম সাকুর। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইরানের ওয়াজদ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও ঢাবির ভিজিটিং অধ্যাপক কাজেম খাঁদুয়ী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাবির বাংলা বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক, আবু রায়হান বিরুনী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও ঢাবির ফার্সি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আবু মুসা মুহাম্মদ আরিফ বিল্লাহ।

অধ্যাপক কাজেম খাঁদুয়ী বলেন, ইরানের ঐতিহ্যের সাথে বাংলাদেশের একটা ঐক্য আছে। সাংস্কৃতিক দিক থেকে একটা মিল আছে। এই মিল অক্ষুণ্ন রাখতে সবাইকে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের তৃতীয় বিশ্বের লোক বলা হয়। এটা একটা অপমান। আমরা প্রথম বিশ্বে যেতে চাই। এজন্য আমাদের নৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিবর্তন দরকার।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক বলেন, বিজ্ঞানের কল্যাণে মানুষ ভালভাবে বসবাস করতে পারছে। কিন্তু টেকনোলজি ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষকে একটা গণ্ডির মধ্যে আবদ্ধ করে রাখা হচ্ছে। পৃথিবীর শক্তিশালী রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে জার্মানি, রাশিয়া, ব্রিটেন, আমেরিকার সাথে দুর্বল রাষ্ট্রের মধ্যে বৈষম্য সৃষ্টি হচ্ছে। তারা বিভিন্নভাবে দুর্বল রাষ্ট্রকে উন্নত হতে দিচ্ছে না। এর ফলে দুর্বলরা তাদের অধিকার আদায় করতে পারছে না। এজন্য তাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে অধিকার আদায় করতে হবে।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট উল্লেখ্য করে এই শিক্ষাবিদ বলেন, বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে দুর্বল করে রাখা হয়েছে। বলা হচ্ছে- সার্টিফিকেট নাও। কিন্তু জ্ঞান নিতে পারবে না। তারা সার্টিফিকেটের মাধ্যমে জ্ঞানটাকে সীমাবদ্ধ করে রেখেছে। 

তিনি বলেন, ইংরেজরা এই দেশ শাসন করেছে আবার তারা আমাদের অনেক কিছু অনুকরণ করেছে। কিন্তু এখন শিক্ষাব্যবস্থা অত্যন্ত খারাপ। এটা শুধু বাংলাদেশের না সমস্ত দুর্বল দেশের। এজন্য সংগ্রাম ও নৈতিক চেতনার মাধ্যমে রাষ্ট্রব্যবস্থা পরিবর্তন করতে হবে।


সংসদের ২৩তম অধিবেশন শুরু রোববার
দশম জাতীয় সংসদের ২৩তম অধিবেশন আগামী ২১ অক্টোবর রোববার বিকেল
বিস্তারিত
ট্রান্সকম চেয়ারম্যান লতিফুরকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ
অবৈধ সম্পদ অর্জন ও বিদেশে অর্থ পাচারের অভিযোগে ট্রান্সকম গ্রুপের
বিস্তারিত
নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে জাতীয় সংসদ
নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন অাহমদন জানিয়েছেন, ভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে
বিস্তারিত
বাংলাদেশে সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন
ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইহমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা জানিয়েছেন, বাংলাদেশের নির্বাচনী
বিস্তারিত
নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হবে
দেশের সব রাজনৈতিক দল এখন নির্বাচনমুখী। এই মুহুর্তে দেশের আইন-শৃঙ্খলা-পরিস্থিতি
বিস্তারিত
বন্ধুর স্মরণে দ্বিতীয় একক ম্যারাথন
এভারেস্টজয়ী প্রয়াত বন্ধু সজল খালেদকে স্মরণ করে কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভে
বিস্তারিত