‘ধানের শীষ এখন বিষ’

বিএনপির নির্বাচনী প্রতীক ‘ধানের শীষ’কে ‘বিষ’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘ধানের শীষ এখন বিষ। এ দেশের মানুষ এই বিষ আর পান করবে না। বিএনপিকে গ্রহণ করবে না। কারণ তারা জনগণের কাছে বিষে পরিণত হয়েছে।’

রোববার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় কর্ণফুলীর ক্রসিং এলাকার এসআর স্কয়ারের সামনে চট্টগ্রামের প্রথম পথসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে দেশের উন্নয়ন হয়। এখন দেশের মানুষের নিরাপত্তা রয়েছে। কিন্তু বিএনপি ক্ষমতায় আসলে কখনো দেশের উন্নয়ন হবে না। অতীতেও হয়নি। মানুষের কোনো নিরাপত্তা থাকবে না। ’

‘বিএনপি যে ভুয়া-মিথ্যাবাদী দল তার প্রমাণ হয়ে গেছে। জাতিসংঘের দাওয়াত নিয়ে তারা প্রতারণা করেছে,’ বলেন ওবায়দুল কাদের।

ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ঐক্য প্রক্রিয়া যেখানেই মিটিং করতে চায় সেখানেই মিটিং করবে। প্রধানমন্ত্রী নিজেই বলেছেন যে, যেখানে সমাবেশ করতে চায় সেখানেই করুক। কিন্তু তারা বড় জায়গায় যান না। তারা পল্টনে ঢুকে যায়, নাট্যমঞ্চে ঢুকে যায়। বড় জায়গায় গেলে লোক সমাগম হবে না এই ভয়ে তারা যায় না। তাদের হ্যাডম নেই সেখানে সভা করার। ৩০ দল মিলে মিটিং করেছে, এখন আমাদের পথসভার বাইরে যত লোক দাঁড়িয়ে আছে সেখানে তত লোকও ছিল না।’

এ সময় ওবায়দুল কাদের আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কর্ণফুলী-আনোয়ারা আসনের প্রার্থী হিসেবে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদকে পরিচয় করিয়ে দেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব! চট্টগ্রামের মানুষ জানে, কর্ণফুলী হচ্ছে বিএনপির ঘাঁটি! সেই ঘাঁটি দেখে যান, ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। কর্ণফুলী এখন আওয়ামী লীগের সঙ্গে। কর্ণফুলী এখন শেখ হাসিনার সঙ্গে। কর্ণফুলী এখন তরুণ জননেতা জাবেদের সঙ্গে।’

বিএনপির ঈদের পরের আন্দোলন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ঈদের পর আন্দোলন করছে করছে বলে দশ বছরে ২০টা ঈদ গেলেও ১০দিনও আন্দোলন করতে মাঠে নামতে পারেনি। নির্বাচনের এক মাস আগে যুক্তফ্রন্টের নামে বেঈমান ক্ষমতালোভীদের নিয়ে জাতীয় ঐক্য করেছে। এটা জাতীয়তাবাদী সাম্প্রদায়িক ঐক্য, কারণ আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনাকে ছাড়া কোনো জাতীয় ঐক্য হবে না।’

মাদকের বিরুদ্ধে দলীয় নেতাকর্মীদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মাদক আমাদের যুবসমাজকে ধংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে। আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর তৎপরতায় আজ দেশে মাদক কমে এসেছে। শুধু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর হলে হবে না আমাদের সবার মাদককে না বলতে হবে।’

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী বহরটি কর্ণফুলী ক্রসিংয়ে পথসভা শেষ করে বর্তমানে পটিয়ায় অবস্থান করছে। পটিয়ায় সমাবেশের পর লোহাগাড়ার চুনতির মেহেরুন্নেছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে সুধী সমাবেশ, চকরিয়া বাস টার্মিনাল, কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ এবং রামুতেও একটি জনসভায় যোগদানের কথা রয়েছে তাদের।

সাংগঠনিক দলে নেতৃত্ব দিচ্ছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। দলের অন্য সদস্যরা হলেন- যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলামসহ দলের সিনিয়র নেতারা।


অনুমতি না পেলেও সিলেট যাবে
সমাবেশ করার অনুমতি না পেলেও আগামী ২৪ অক্টোবর সিলেট যাবেন
বিস্তারিত
আ.লীগ বিজয়ী হলে শেখ হাসিনাই
স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের
বিস্তারিত
জাতীয় ঐক্যে জাতি কোনো সাড়া
নৌপরিবহন মন্ত্রী মো. শাহজাহান খান এমপি বলেছেন, ড. কামাল হোসেনের
বিস্তারিত
জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনে সরকার বিচলিত:
জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনে আঁতে ঘা লেগেছে সরকারের। এই ঐক্যফ্রন্ট গঠনের
বিস্তারিত
জাতীয় ঐক্যের নামে দেশে ষড়যন্ত্র
আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, জাতীয়
বিস্তারিত
অস্থিতিশীলতার চেষ্টা হলে কঠোর অবস্থানে
বিএনপি ও গণফোরামসহ কয়েকটি দলের সমন্বয়ে গঠিত ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’র কর্মসূচি
বিস্তারিত