গফরগাঁওয়ে অপহরণের ২০ ঘণ্টা পর প্রবাসীর স্ত্রী-সন্তান উদ্ধার

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে সৌদি প্রবাসীর স্ত্রী ও আড়াই বছরের শিশু সন্তানকে অপহরণ করে অপহরণকারীরা। এরপর অপহৃতার মেয়ের কাছে ফোন দিয়ে দাবি করে দশ লাখ টাকা মুক্তিপণ। মুক্তিপেণের টাকা হাতে পেলেই ছেড়ে দেয়া হবে তাদের। অন্যথায় যেকোনো ধরণের ক্ষতির হুমকি দেয় অপহরণকারীরা।

এদিকে গতকাল বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে অপহৃত নারী ও তার শিশু সন্তানকে গফরগাঁও মধ্যবাজারে অবস্থিত অগ্রণী ব্যাংকের সামনে অপহরণকারীরা ফেলে রেখে যায় বলে অপহৃতা ওই নারী পুলিশকে জানান।

বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে গফরগাঁও থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম বলেন, ওই নারী পুলিশকে ফোন দিয়ে জানায় তাকে অপহরণকারীরা দুপুরে অগ্রণী ব্যাংকের সামনে ফেলে রেখে গেছে। ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ে অপহৃতা নারীকে থানায় নিয়ে আসা হচ্ছে। ঘটনার যাচাই শেষে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আগে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার পূর্বে গফরগাঁও পৌর এলাকার বিপনীবিতান থেকে কেনাকাটা শেষে বাড়ি ফেরার পথে তারা অপহূত হয়। ঘটনাটি ঘটেছে পৌর এলাকায় অবস্থিত রোস্তম আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতেই অপহৃতার মেয়ে ঝুমা আক্তার বাদী হয়ে গফরগাঁও থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে অপহৃতার পরিবার দাবী করেন, মঙ্গলবার দুপুরে গফরগাঁও মধ্যবাজারে অবস্থিত অগ্রণী ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করেন গফরগাঁওয়ের দৌলতপুর গ্রামের প্রবাসী বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী তাসলিমা খাতুন (৪০)। পরে আড়াই বছরের শিশু ছেলে মোহাম্মদ আলীকে সাথে করে পৌর এলাকার বিপনীবিতানে বিকেল পর্যন্ত কেনাকাটা করেন। কেনাকাটা শেষে সন্ধ্যার আগে দৌলতপুর নিজ বাড়ি যাওয়ার লক্ষে পৌর এলাকার গো-হাটা ইজিবাইক স্ট্যান্ডে যাওয়ার পথে রোস্তম আলী গোলন্দাজ উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে একটি মাইক্রোবাস তাদের পথ আগলে দাঁড়ায়।

পরে মাইক্রোবাস থেকে অজ্ঞাত নারী-পূরুষ দ্রুত নেমে তাসলিমা ও তার শিশু সন্তানের নাকে রুমাল চেপে অজ্ঞান করে তুলে নিয়ে যায়। পরে অজ্ঞাত স্থান থেকে সন্ধ্যা সন্ধ্যায় অপহৃতার মুঠোফোন থেকে অপহৃতার মেয়ে ঝুমা আক্তারকে ফোন করে অপহরণকারীরা। এ সময় অপহরণকারীরা জানায় তার ছোট ভাই ও মাকে ফেরত পেতে হলে মুক্তিপণ হিসেবে দিতে হবে দশ লাখ টাকা। মুক্তিপণের টাকা হাতে পেলেই ছেড়ে দেয়া হবে তাদের।

অপহৃতার কন্যা ঝুমা আক্তার বলেন, অপহরণকারীরা মা ও ভাইকে ছেড়ে দিতে মুক্তিপণ বাবদ দশ লাখ টাকা চেয়েছিল। কিন্তু টাকাগুলো কীভাবে নিবে বা কোথায় পৌছাতে হবে সে বিষয়ে তখন কিছু বলেনি। কিন্তু আজ বুধবার দুপুরে আমার মা ও ভাইকে অপহরণকারীরা গফরগাঁও মধ্যবাজারের অগ্রণী ব্যাংকের সামনে ফেলে রেখে যাওয়ার পর তিনি বাড়ি চলে আসেন। এখন বাড়িতেই রয়েছেন।


রংপুরে ড. এমএ ওয়াজেদ মিয়ার
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর (বেরোবি)-এ যথাযথ মর্যাদায় দেশের বিশিষ্ট পরমাণু
বিস্তারিত
মাদক ব্যবসায়ীদের এদেশে প্রয়োজন নেই:
র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেছেন, মাদক ব্যবসায়ীদের আমাদের দেশে প্রয়োজন
বিস্তারিত
জনগণের ট্যাক্সে বেতন নেব সেবা
সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে উদ্দেশে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক
বিস্তারিত
বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে শিক্ষকদের
টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে আজ শনিবার দুপুরে ধনবাড়ী উপজেলা পরিষদ হলরুমে শাইয়ান
বিস্তারিত
সিরাজগঞ্জে মাদকমুক্ত ঘোষণার অংশ হিসেবে
সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ‘কামারখন্দ উপজেলাকে মাদকমুক্ত ঘোষণার অংশ
বিস্তারিত
বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল হচ্ছে রংপুরে
রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় হতে যাচ্ছে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল। এর প্রাথমিক
বিস্তারিত