কিশোরগঞ্জ-৬: আওয়ামী লীগের দূর্গ পুনরুদ্ধার চায় বিএনপি

ভৈরব-কুলিয়ারচর এই দুই উপজেলা নিয়ে গঠিত সংসদীয় আসন কিশোরগঞ্জ-৬। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে সারা দেশের মতো এই আসনেও বইছে ভোটের হাওয়া। তবে, এই আসনটি অনেকটা ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। ফলে জয়ের ধারা অব্যহত রেখে দুর্গ ধরে রাখতে চায় আওয়ামী লীগ।

অপরদিকে আসনটি পুনরুদ্ধার চায় বিএনপি। কেননা, স্বাধীনতার পর অর্থ্যাৎ ১৯৭২ পরবর্তি সময়ে তিন বার বিএনপি ও এক বার জাতীয় পার্টি আসনটি দখলে নেয়। কিন্তু, বর্তমান সময়সহ সাত বারই আওয়ামী লীগ এই আসনটি দখলে নেয়। ফলে সারা দেশে আওয়ামী লীগের দূর্গ হিসেবে পরিচিতি পায় এই আসনটি।

জানা গেছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে এই আসনটিতে বইছে ভোটের হাওয়া। ফলে আওয়ামী লীগে এ বছর দু’জন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম শোনা যাচ্ছে। একজন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)’র সফল সভাপতি আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন। অপরজন ভৈরব শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ইফতেখার হোসেন বেনু।

যদিও দল থেকে আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন ব্যতীত অন্য কোনো প্রার্থীর মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। কেননা, নাজমুল হাসান পাপন প্রয়াত রাষ্ট্রপতি আলহাজ্ব মো. জিল­ুর রহমান ও নারী নেত্রী বেগম আইভি রহমানের একমাত্র পুত্র। সে হিসেবে আওয়ামী লীগে তার শক্ত অবস্থান রয়েছে। এছাড়াও নাজমুল হাসান পাপন বাবার পরিচন্ন ইমেজ ও নিজের ইমেজ কাজে লাগিয়ে সামনে এগোতে চান।

তাছাড়াও বাবার মতো তিনিও নির্বাচনী এলাকায় উন্নয়নের ধারা অব্যহত রেখেছেন। ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ মানুষের মৌলিক অধিকার শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় ব্যপক উন্নয়ন হয়েছে। এছাড়াও ভৈরবকে শতভাগ বিদ্যুৎতায়িত উপজেলা উপহার দেয়াসহ ও ব্যবসা বাণিজ্যকে আরও গতিশীল করতে বিসিক শিল্প নগরী প্রতিষ্ঠার কাজ এগিয়ে চলছে।

দলীয় নেতাকর্মীদের মতে, আসনটি ধরে রাখতে আওয়ামী লীগ দল গোছানোসহ বেশ কিছু সভা-সমাবেশের কর্মসুচি হাতে নিয়েছে। ফলে এরই মধ্যে তৃণমূলের ভোটারদের সাথে যোগাযোগ বাড়াতে আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপন বিভিন্ন এলাকায় বেশ কয়েকটি জনসভা করছেন। এসব জনসভায় ‘নৌকা, নৌকা’ শ্লোগানে খন্ড খন্ড মিছিলে যোগ দেন হাজার হাজার নেতাকর্মীরা।

এছাড়াও দলের সাংগঠনিক তৎপরতা বাড়তে এরই মধ্যে উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন শেষে দলের অঙ্গ সংগঠনের সম্মেলনও প্রায় শেষ পর্যায়ে। ফলে বেরিয়ে আসছে নতুন নেতৃত্ব।

অপরদিকে সভা ও সমাবেশসহ দলীয় কর্মকান্ডে বিভিন্ন সময় বাধা-বিপত্তির কারণে অনেকটা বেকায়দায় রয়েছে বিএনপি। কিন্তু, ছাড় দিতে নারাজ দলটি। আসনটি পুনরুদ্ধারে মরিয়া তারা।

এই আসনে বিএনপি মনোনয়ন প্রত্যাশী বিশিষ্ট শিল্পপতি মো. শরীফুল আলম। কিন্তু, তার জন্য আওয়ামী লীগের চেয়ে বড় বাধাঁ দল থেকে বহিষ্কৃত নেতা ভৈরব উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. গিয়াস উদ্দিন। আর তিনিও মাঠে রয়েছেন। তবে, ব্যবসায়ী মো. শরীফুল আলমের রয়েছে ব্যাক্তি ইমেজ।

একজন শিল্পপতি হিসেবে প্রায় সময়ই মানুষের পাশে দাড়ান এবং সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন তিনি। এসব বিষয়কে পূজিঁ করে সামনে এগোতে চায় দলটি।

তাছাড়া এই আসনে ছত্রভঙ্গ জাতীয় পার্টি এবং জামায়াতে ইসলামী দলের সক্রিয় অবস্থান না থাকায়, কোনো প্রার্থী না হওয়ারই সম্ভাবনা বেশি রয়েছে। তাই, যত জল্পনা-কল্পনা ও হিসেব-নিকেশ বড় দু’টি দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র প্রাথীকেই নিয়ে।

নির্বাচন অফিসের সূত্র মতে, ২টি পৌরসভা ও ১৩টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত (ভৈরব-কুলিয়ারচর) সংসদীয় আসন কিশোরগঞ্জ-৬। এ বছর অর্থ্যাৎ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন ৩লাখ ২৯ হাজার ১৪৮জন ভোটার।

এর মধ্যে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা ১লাখ ৬৬ হাজার ৫৬৮জন এবং মহিলা ভোটারের সংখ্যা ১লাখ ৬২ হাজার ৫৮০জন। তাছাড়া ভৈরবের মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৯৭ হাজার ৮৪০জন আর কুলিয়ারচরে মোট ভোটার সংখ্যা ১লাখ ৩১ হাজার ৩০৮ জন।

এদিকে আওয়ামী লীগে আলহাজ্ব মো. নাজমুল হাসান পাপনের কোনো ‘বিকল্প’ নেই বলে জানান ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. সায়দুল­াহ মিয়া। এছাড়াও এই আসনে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি আলহাজ্ব মো. জিল্লুর রহমান পাঁচ বার বিজয়ী হন। ফলে এলাকার ব্যপক উন্নয়ন হয়েছে। জিল­ুর রহমানের পরে এই আসনে তারই একমাত্র ছেলে দু’বার বিজয়ী হয়েছেন।

তাছাড়া এলাকার উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে হলে নাজমুল হাসান পাপনকেই বেঁছে নিবে ভোটাররা। তাই, আগামী নির্বাচনে জয়ের ব্যপারে শতভাগ আশাবাদী বর্ষিয়ান নেতা আলহাজ্ব মো. সায়দুল­াহ মিয়া।

অন্যদিকে ভৈরব উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, সরকার পুলিশ বাহিনী দিয়ে অন্যায় ভাবে আমাদের দলীয় কর্মকান্ডে বিভিন্ন সময় বাধাঁ দেয়। একই সাথে একের পর এক মামলা দিয়ে নেতাকর্মীদের হয়রানী করছে। ফলে আমরা প্রকাশ্যে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে না পারলেও, কৌশলগত ভাবে দলের কার্যক্রম চলছে।

তাছাড়া যদি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, তাহলে অবশ্যই বিএনপি প্রার্থী মো. শরীফুল আলম বিজয়ী হবে বলে দাবী করেন তিনি।


বরিশালে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ,
বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ,
বিস্তারিত
রংপুরে কয়েক হাজার অসচ্ছল অসহায়দের
করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবেলা করতে রংপুর সিটি করপোরেশনের (রসিক) মেয়র মোস্তাফিজার
বিস্তারিত
আমতলীতে কর্মহীনদের খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছেন
বরগুনার আমতলী পৌর এলাকায় করোনাভাইরাসের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া পৌরসভার
বিস্তারিত
ঘরে ঘরে গিয়ে কর্মহীনদের খাদ্য
বরগুনার আমতলী উপজেলায় ৭টি ইউনিয়ন একটি পৌরসভায় ৪ লাখ লোকের
বিস্তারিত
বরিশালে ৬ রোগীর করোনা পরীক্ষার
বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা ৬জন সন্দেহভাজন
বিস্তারিত
বরিশালে ক্ষুধার্ত কুকুরের পাশে মানবিক
করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবেলায় ২৬ মার্চ থেকে বরিশাল নগরীর সকল হোটেল-রেস্তোরা
বিস্তারিত