প্রত্নলিপি

তোমার ইশারালিপি পাঠ করি ধীরে

মনে হয়Ñ আমরা ছিলাম মুখোমুখি
গুহার ভেতরে, অগ্নিপরিখার ঘরে
একদিনÑ নিজেরই গলার স্বর শুনে
বুঝি যে চিৎকারে কেঁপে ওঠে শিলাখ-
দুলে ওঠে প্রতœত্রস্ত পূর্ণাঙ্গ শরীর  
এতদিন কী দেখেছিÑ একে একে বলি
গুমোট, দুঃসহ, ভারি সেই নীরবতা। 

অগ্নিপরিখার ঘরেÑ দাঁড়াই আবার
দেখি আজ হাওয়ায় দুলছে বনলতা
কাঁপছে উদ্ভিন্ন স্তন তীব্র শিহরণে
একদিনÑ নিজেরই গলার স্বর শুনে
বুঝি যে বিস্ফারে কেউ চলে যায় দূরে
কেউ থেকে যায়Ñ মুখোমুখি গুহাঘরে।


আরিফ মঈনুদ্দীন বৃষ্টিভেজা তুমি
  নন্দনতত্ত্বে হাত রেখেছিÑ উঠে আসছে নৈপুণ্য নিপুণ শিল্পের ঘরে জমজমাট
বিস্তারিত
একাকী-নিঃসঙ্গ
একাকী-নিঃসঙ্গ নিঃসঙ্গের চেয়েও একাকী হতে পারে মানুষ কখনো-বা একাকী থাকাকে
বিস্তারিত
দ্যূতক্রীড়া
সাইয়্যিদ মঞ্জু  দ্যূতক্রীড়া অতল গহ্বরে হাবুডুবু-প্রমত্ত উল্লাস ভূলুন্ঠিত মানবতা সভ্যতার দ্যূতক্রীড়ায়
বিস্তারিত
এ শহর
এ শহরে বৃক্ষ আছে ছায়া নেই, মানুষ আছে মায়া নেই
বিস্তারিত
নিরু এখনও মরেনি
এক অনাকাক্সিক্ষত ভুলে, অথবা নিয়তির নিষ্ঠুর অভিঘাতে দোষী হয়েছিল নিরু,
বিস্তারিত
স্মৃতিরা কাঁদায়
পুরোনো শার্ট হ্যাঙ্গারে আছে ঝুলে পরে না কেউ চশমাটিও ধুলোময়... ছবির
বিস্তারিত