চকরিয়ায় জমির বিরোধে কৃষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

কক্সবাজারের চকরিয়ায় জমি নিয়ে বিরোধে আব্দু শুক্কুর (৬৫) নামের এক কৃষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ সময় প্রতিপক্ষের হামলায় নিহতের আত্মীয়-স্বজনসহ ২০ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়। ঘটনার পর পরই গুলিবিদ্ধ আব্দু শুক্কুরকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ কোনাখালী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে খাইরুল বশর নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত আব্দু শুক্কুর ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের নয়াপাড়া এলাকার মৃত আশরাফ আলীর ছেলে। 

গুরুতর আহত ব্যক্তিরা হলেন, নিহতের ভাই আবু ছিদ্দিক (৫২), চাচাতো ভাই মনু মাঝি (৫৫), নুর হোসেন (৪০), চাচাতো বোন ছেনুয়ারা বেগম (৩৫), রোজিয়া আক্তার (৩০), রেজিয়া বেগম (২৮), আছিয়া বেগম (৪০), আব্দু ছাত্তার ও ঢেমুশিয়া জিন্নাত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর ছাত্র ইমরানুল হক সাগর। তাদের চকরিয়ার বিভিন্ন হাসপাতাল ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  

নিহতের পরিবার সদস্য ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা জানান, ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী কোনাখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ কোনাখালী এলাকার প্রায় ১৬ একর জমি নিয়ে দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে বিরোধ চলে আসছিল আব্দু শুক্কুর ও আক্তার আহমদ চৌধুরী গং-এর মধ্যে। এ নিয়ে একাধিকবার সালিশ বিচারও হয়। বিষয়টি নিয়ে আদালতে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিরোধীয় জমিতে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার জন্য আদালত ১৪৪ ধারাও জারি করেন। বুধবার দুপুরে বিরোধীয় জমির অবস্থান দেখতে উপজেলা ভূমি অফিসের কানোনগো যাওয়ার কথা ছিল। সেই হিসেবে ওই জমিতে উপস্থিত থাকার জন্য দু’পক্ষকে নোটিশও দেয়া হয়। নোটিশ পাওয়ার পর ঢেমুশিয়া থেকে আব্দু শুক্কুর গং দক্ষিণ কোনাখালীর বিরোধীয় জমিতে যাওয়া মাত্রই প্রতিপক্ষ আক্তার আহমদ চৌধুরী গং-এর লোকজন লাঠিসোটা, কিরিচি ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। ফলে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ছুটে যান এবং আহত ও প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে ঘটনার বিবরণ শুনেন।

বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে চকরিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল বাতেন নিহত আব্দু শুক্কুরের প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। সুরতহাল রিপোর্টে লাশের শরীরে লাটিসোটা ও কিরিচের আঘাত ছাড়াও ছররা গুলি লাগার আলামত পাওয়া গেছে বলে জানান এসআই আবদুল বাতেন।

এদিকে বিকেল ৫টার দিকে চকরিয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) কাজী মো. মতিউল ইসলামের নেতৃত্বে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। 

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ঘটনার পরপরই পুলিশের কয়েকটি টিম হামলায় জড়িতদের গ্রেপ্তার সাঁড়াশি অভিযান শুরু করেছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।


খতনার সময় শিশুর পুরুষাঙ্গ কেটে
গোপালগঞ্জে তামিম মাহমুদ নামে সাড়ে ৪ বছরের এক শিশুর সুন্নাতে
বিস্তারিত
পাহাড়ী ঢলে সড়ক ভেঙে যোগাযোগ
প্রবল বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের কারণে
বিস্তারিত
ফেনীতে প্রতারণার অভিযোগে দুই আইনজীবীর
পেশাগত অসদাচরণের মাধ্যমে প্রতারণার অভিযোগে ফেনীতে দুই আইনজীবীর সদস্য পদ
বিস্তারিত
সিরাজদিখানে সাপের কামড়ে নারী ও
মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার রশুনিয়া ইউনিয়নের দানিয়াপাড়া গ্রামে সাপের কামড়ে শিলা
বিস্তারিত
চাঁদপুরে ড্রেজারের পানিতে ভেঙে যাচ্ছে
চাঁদপুর সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের বালুর ড্রেজারের পানির তোপে নতুন
বিস্তারিত
সাগর ভেবে রাজ্জাকের লাশ নিয়ে
টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে সিএনজি চালিত অটোরিকসা এবং ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সার সংঘর্ষে
বিস্তারিত