পরকীয়ায় বাধা, স্বামীকে খুনই করলেন কুমকুম!

পরকীয়া এখন সামাজিক ব্যধিতে পরিনত হয়েছে। এর কারণে অনেক সংসার তো ভাঙছেই, অনেকের প্রাণও চলে যাচ্ছে! তেমনি একটি ঘটনা ঘটালেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গে হাওড়া জেলার বেলুড়ের এক গৃহবধূ।

তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক বা পরকীয়ায় স্বামী বাধা হওয়ায় তাকে খুন করেছেন। নয়া দিল্লি থেকে বন্ধুকে ডেকে এনে রীতিমতো ছক কষেই স্বামী আশুতোষ মালিকে খুন করেন তিনি। 

হত্যার পর আগুনে পুড়িয়ে স্বামীর দেহকে শনাক্তের অযোগ্য করে ফেলতে সঙ্গীর হাতে কেরোসিন তুলে দেন ওই তরুণীই। 

গত রোববার বেলুড়ের নিস্কো হাউজিংয়ের আবর্জনার স্তূপ থেকে আশুতোষের দগ্ধ দেহ উদ্ধারের পুলিশ। এরপরই ঘটনাটি সামনে আসে। 

আশুতোষকে খুনের অভিযোগে পরদিনই কুমকুম মালি ও তার বন্ধু সুমন কুমারকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদের জেরা করে তদন্তকারীরা জেনেছেন, শনিবার দিল্লি থেকে কলকাতায় এসে পৌঁছয় সুমন ও তার এক বন্ধু। কুমকুমের কথা মতো ওই সন্ধ্যায় হাওড়া থেকে লোকাল ট্রেনে তারা বালি স্টেশনে আসে। এর পরে কুমকুমের বাড়িতে পৌঁছে যায়। তবে রাত ১০টা নাগাদ আশুতোষের ফেরার সময় হতেই এলাকায় চলা একটি জলসার ভিড়ে গা-ঢাকা দেয় ওই দু’জন।

আশুতোষ বাড়িতে ফিরতেই তাকে খাবারের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাইয়ে দেয় কুমকুম। আশুতোষ জ্ঞান হারান। বেশ কিছু ক্ষণ পরেও জ্ঞান না ফেরায় রাত ১২টা নাগাদ ফের সুমনদের বাড়িতে ডাকে ওই তরুণী। তিন জনেরই ধারণা হয়, আশুতোষ বিষক্রিয়ায় মারা গিয়েছেন। ঘরে থাকা অ্যালুমিনিয়ামের তার দিয়ে আশুতোষের হাত-পা বেঁধে ফেলে সুমনেরা। 

এরপরে রাত তিনটে নাগাদ একটি বস্তায় আশুতোষের দেহটি ঢুকিয়ে ফেলা হয়। দেহ লোপাটের জন্য সাইকেল জোগাড় করে রেখেছিল কুমকুম। তাতে বস্তাটি চাপিয়ে বাড়ির প্রায় ৩০০ মিটার দূরে আবর্জনার স্তূপের কাছে পৌঁছয় সুমনেরা।

বস্তাটি আবর্জনায় ফেলে তার উপরে কেরোসিন ছড়িয়ে আগুন জ্বালিয়ে দেয় সুমন। বেশি করে কেরোসিন ছেটানো হয়েছিল আশুতোষের মুখে। এর পরে রাস্তায় সাইকেলটি ফেলে বেলুড় স্টেশনে গিয়ে হাওড়ায় পালিয়ে যায় সুমন। রবিবার সকালে তার বন্ধু দিল্লি চলে গেলেও সুমন চলে আসে কুমকুমের বাড়িতে।

কুমকুম ও সুমনের দাবি, তারা কোনো ধারালো অস্ত্র দিয়ে আশুতোষকে আঘাত করেনি। সে ক্ষেত্রে মৃতের বুকে ক্ষতের উৎস কী, তা ভাবাচ্ছে পুলিশকে। 

পুলি‌শ জানায়, রোববার সকালে বড়বাজারের দোকান-মালিককে ফোন করে স্বামীর খোঁজ করে কুমকুম। বিকেলে সেখানে গিয়েও খোঁজ করে, যাতে কেউ তাকে সন্দেহ না করেন। 

প্রসঙ্গত, বছরখানেক আগে ভুল নম্বর ডায়াল করে সুমনের সঙ্গে পরিচয় কুমকুমের। কয়েক বার বিহারে গিয়ে দু’জন দেখাও করেছে। আশুতোষ ও কুমকুম, দু’জনেরই পৈতৃক বাড়ি সেখানে। ২১ বছরের ওই যুবককে ভাগনে বলে পরিচয় দিয়েছিল ২৭ বছরের কুমকুম। ১০ মাস আগে বিহারে দুই ছেলেমেয়েকে রেখে পাঁচ বছরের আর এক ছেলেকে নিয়ে আশুতোষের সঙ্গে কলকাতায় আসে কুমকুম। বড়বাজারে দোকানে কাজ করতেন আশুতোষ। কয়েক মাস আগে বেলুড়ে ঘর ভাড়া নেন।

কুমকুমের একাধিক বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক নিয়ে প্রায়ই অশান্তি হত দু’জনের। মঙ্গলবার নিশ্চিন্দা থানায় ওই যুবকের বাবা কেদার মালি বলেন, ‘ওদের অশান্তি দেখে দু’জনকেই দেশের বাড়িতে চলে যেতে বলেছিলাম। কিন্তু ওরা গেল না। ছেলেটাও শেষ হয়ে গেল।’

মঙ্গলবার হাওড়া আদালতে তোলা হলে কুমকুম এবং সুমনকে আট দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।


৩ সন্তানসহ নিজেকে উড়িয়ে দিলেন
শ্রীলঙ্কার কলম্বোয় শহরতলির রাস্তার ওপর তিন তলা প্রাসাদ। রাস্তার ওপর
বিস্তারিত
প্রথমবার কিম-পুতিন বৈঠকে
প্রথমবারের মতো বৈঠকে অংশ নিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও
বিস্তারিত
শ্রীলঙ্কার পুলিশ প্রধান-প্রতিরক্ষা সচিবকে পদত্যাগের
শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলার ঘটনায় দেশটির পুলিশ মহাপরিদর্শক ও প্রতিরক্ষা সচিবকে
বিস্তারিত
শ্রীলঙ্কায় হামলাকারী জঙ্গিদের শপথের ভিডিও
শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডের প্রার্থনার সময় ৭টি স্থানে একইসঙ্গে ৩টি গির্জা
বিস্তারিত
শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলায় নিহত বেড়ে
শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডে উদযাপনের সময় একাধিক গির্জা ও হোটেলকে লক্ষ্য
বিস্তারিত
শ্রীলঙ্কার গির্জায় হামলাকারী যুবকের ভিডিও
গত রোববার (২১ এপ্রিল) ইস্টার সানডের সকালে শ্রীলঙ্কার তিনটি গির্জা,
বিস্তারিত