অনলাইনে চ্যাটিংয়ে জরুরি কিছু বিষয়

চেনা এলাকা ও জানাশোনা রেস্তোরাঁ বা কফিশপে দেখা করুন।

‘প্রেমের ফাঁদ পাতা ভুবনে’ আর বিশ্বায়নের যুগে সোশ্যাল মিডিয়ার রন্ধ্রে রন্ধ্রে এমন ফাঁদই পাতা থাকে। আর এমন ফাঁদে ধরা পড়তে রয়েছে নানা রকমের অনলাইন ডেটিং ওয়েবসাইটও। তাই আজকাল অনেকেই সহজেই ডুব দেয় অনলাইন চ্যাটিং, ডেটিং অ্যাপ এগুলোতে।

কিন্তু প্রেম কি আর হাতের মুঠোয় চারচৌকো বস্তুটির মধ্যে রেখে দিলে চলে! অগত্যা মাঠে নেমে পড়ো। অনলাইন ডেটিং সাইট থেকে পরস্পরের হোয়াটসঅ্যাপে জায়গা করে নেয়া আর তার পরের ধাপেই সাক্ষাতের পরিকল্পনা। কিন্তু কতটা নিরাপদ একজন সম্পূর্ণ অচেনা মানুষের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়া?

বেশ কিছু ক্ষেত্রে এই সাক্ষাৎ প্রেম বা বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়। কিন্তু অনেক সময়ে তা হয় না। আবার অনেক ক্ষেত্রে নিরাপত্তাও প্রশ্নচিহ্নের মুখে পড়ে। কারণ উল্টো দিকের মানুষটি অপরিচিত। তাই এক্কেবারে অচেনা একজনের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার আগে কয়েকটি জিনিস মাথায় রাখা উচিত।

প্রথমেই আসে নিরাপত্তার প্রসঙ্গ। যেহেতু একদম অচেনা ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করবেন, তাই ফাঁকা নির্জন এলাকা এড়িয়ে যান। চেষ্টা করুন কোনো কফিশপ বা রেস্তোরাঁয় দেখা করার। তাও এলাকাটা নিজের চেনাজানা আয়ত্তের মধ্যে হলে ভাল হয়।

অ্যাপক্যাবে একসঙ্গে উঠলে অবশ্যই নিজের ফোন থেকে সেই ক্যাব বুক করুন। পারলে বন্ধু বা পরিবারের কারও সঙ্গে লোকেশন শেয়ার করুন। ‌হাতের কাছে মজুত রাখুন অ্যাপক্যাবের কাস্টমার কেয়ার নম্বর ও অ্যালার্ট মেনু।
কোনো অচেনা এলাকা বা অন্য শহরে দেখা করতে যাওয়ার পরিকল্পনা না করাই ভাল। বিশেষ করে হোটেল বা রিসোর্ট এড়িয়ে চলুন।

আপনি যার সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন সে কি আপনার ওপর কোনো বিষয় চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছেন? যেমন তার পছন্দমতো স্থানেই যেতে হবে বা তার পছন্দমতো খাবারই অর্ডার করতে হবে। যদি প্রথম দিনই এমন হয় তা হলে বুঝবেন সম্পর্ক গভীর হলে আপনি অবদমনের শিকার হতে পারেন।​

প্রথম দিনেই সবটা বলে ফেলা যায় না। তবে চেষ্টা করুন সেই অচেনা মানুষকে মুগ্ধ করার জন্য কোনো মিথ্যে না বলতে। নজর রাখুন সেই ব্যক্তিও আপনাকে মিথ্যে কথা বলে মুগ্ধ করার চেষ্টা করছেন কি-না। তবে সম্পর্কের কিছু প্রাথমিক শর্ত থাকে। সেসব প্রথম দিনই কথায় কথায় ইঙ্গিত দিয়ে রাখুন।

খেয়াল রাখুন অন্য কোনো মানুষের প্রসঙ্গ উঠলে তার সম্পর্কে কি শুধুই নেতিবাচক মন্তব্য করছেন সেই ব্যক্তি। নিজের প্রাক্তন সঙ্গীর সম্পর্কেও যদি তিনি অনবরত নেতিবাচক মন্তব্য করে আপনার থেকে সমবেদনা পেতে চান, তা হলে সাবধান হোন। কারণ আপনিও কোনো দিন তার ‘প্রাক্তন’ হয়ে উঠতে পারেন।

ওই ব্যক্তি কী বিষয়ে কথা বলতে পছন্দ করেন সেদিকে নজর রাখুন। নিজেদের পছন্দ-অপছন্দগুলো কতটা পরস্পরের সঙ্গে মানানসই সেদিকে নজর দিন। তবে অতিরিক্ত ব্যক্তিগত বিষয় টানবেন না।

কোনো রেস্তোরাঁয় গেলে সেখানকার ওয়েটারদের সঙ্গে ওই ব্যক্তি কেমন ব্যবহার করেন দেখুন। শুধু তিনি মুখে কী বলছেন, তা-ই নয়, তাঁর বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বোঝার চেষ্টা করুন।

যদি মন-পসন্দ মানুষের সঙ্গে প্রথম দেখাটা করতেই হয় তবে এ বিষয়গুলো মাথায় রেখে মানুষটিকে চেনার চেষ্টা করুন। ভবিষ্যতে তাহলে আর আক্ষেপ করতে হবে না। 

আপনার অসম্মতিতে বা হঠাৎই ঘনিষ্ঠ হওয়ার চেষ্টা করলে সতর্ক হোন। অস্বস্তি হলে তা সরাসরি জানান। দরকারে বুদ্ধি খাটিয়ে সঙ্গ ত্যাগ করুন।


স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে ১৪৩ পদে নিয়োগ
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ৪র্থ স্বাস্থ্য, জনসংখ্যা ও পুষ্টি সেক্টর
বিস্তারিত
যমুনা গ্রুপে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে যমুনা গ্রুপ। প্রতিষ্ঠানটিতে ‘ম্যানেজার, সেলস অ্যাডমিন’
বিস্তারিত
ঈদে বাড়ি যাওয়ার আগে যা
ঈদের ছুটিতে যারা ঢাকা ছেড়ে গ্রামের বাড়ি যাবেন তাদের উদেশে
বিস্তারিত
জেনে নিন পেট পরিষ্কার রাখার
সকাল সকাল পেট পরিষ্কার না হলে সারাদিন একটা অস্বস্তি কাজ
বিস্তারিত
প্রায় ৩০০ রোগের সমাধান ১টি
সজনে গাছ সবার কাছেই খুব পরিচিত। সজনে ডাঁটা, পাতা ও
বিস্তারিত
জীবনে সফল হতে চাইলে এড়িয়ে
জীবনে সফল হওয়ার সুপ্ত ইচ্ছা আমাদের সকলের মাঝেই আছে। সাফল্য
বিস্তারিত