বাংলা কোচবিহার সামরিক ইতিহাস

গবেষণাধর্মী বই ‘বাংলা কোচবিহার সামরিক ইতিহাস’। লিখেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. আবুসালেহ সেকেন্দার। প্রকাশ করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়। বইটিতে স্থান পেয়েছে সামরিক কূটনীতি বাংলার ইতিহাসে অনালোচিত বিষয়। সাধারণত বাংলার ইতিহাসকে সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক দৃষ্টিভঙ্গিতে বিশ্লেষণ করা হয়। রাজনৈতিক ইতিহাসের অন্যতম অনুষঙ্গ হিসেবে সামরিক ইতিহাস অবশ্য আলোচিত হয় শাসকদের রাজ্যবিস্তার নীতির অংশ হিসেবে। সম্প্রতি স্বল্পপরিসরে বাংলার সামরিক ইতিহাসের চর্চা শুরু হলেও সামরিক ইতিহাস ও সামরিক কূটনীতি, রণনীতি-রণকৌশল বিষয়ে এ বই দারুণ প্রয়াস।
সমসাময়িক ইতিহাসের মৌলিক উৎসের নতুন ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণের মাধ্যমে এ বইয়ে সুলতানি বাংলার সঙ্গে কোচবিহার অঞ্চলের সামরিক ইতিহাস বিশেষ করে, উভয় অঞ্চলের শাসকদের পরস্পরের প্রতি গৃহীত সামরিক কূটনীতি, রণনীতি-রণকৌশল বিশ্লেষণ করা হয়েছে। মাত্র ১৭ জন ঘোড়সওয়ার নিয়ে ইখতিয়ার-উদ-দীন মোহাম্মদ ইবনে বখতিয়ার খলজি বাংলা বিজয় করলেও ১০ হাজার সৈন্যের শক্তিশালী সামরিক বাহিনী থাকা সত্ত্বেও কেন কামরূপে পরাজয় বরণ করেনÑ এরকম অনেক প্রশ্নের যৌক্তিকতাও বিশ্লেষণ করা হয়েছে। অন্যদিকে বিজ্ঞানভিত্তিক ইতিহাস চর্চার দৃষ্টিভঙ্গিকে প্রাধান্য দিয়ে সুলতানি বাংলা ও কোচবিহারে প্রচলিত ঐতিহাসিক মিথ বা লোককাহিনির বিভিন্ন ঘটনার ঐতিহাসিক সত্যতা অনুসন্ধান করা হয়েছে।
বইটিতে ১২০৪ থেকে ১৫৭৬ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত বাংলা ও কোচবিহার অঞ্চলের প্রায় সব শাসকের পরস্পরের প্রতি গৃহীত সামরিক নীতি আলোচনা করা হয়েছে। হজরত শাহজালাল (রহ.) ও শাহ ইসমাইল গাজীসহ (রহ.) অনেক সুফি-সাধকের সামরিক জীবনও বইটিতে স্থান পেয়েছে। বইটির দাম ২৭৫ টাকা। হ


রাজধানীর রাজহাঁস সাপ-পাখি ও ডাহর
আটটি রাজহাঁস দশ-বারো ফুট দূরে হল্লা করে ভেজা ঘাস খাচ্ছে।
বিস্তারিত
নোঙর
গভীর গহনস্রোতে চোখ রেখে বলি হাতে হাতখানি ধরোÑ এসো, ঝাঁপ দিই অতল
বিস্তারিত
মহিউদ্দিন -বিনে পয়সায় বৃষ্টি
    এসো বৃষ্টি দেখি, বিনে পয়সায় বৃষ্টি। এ শহরের বৃষ্টি বড়ই লাজুক
বিস্তারিত
টিপু সুলতান-নারকেল পাতার চশমা
      আমার একটা ভাবনা ছিল কারোর আঙ্গিনায় গাছ হই। রোদ ভাঙা সন্ধ্যেয়
বিস্তারিত
বিবর্তন
    আভিজাত্য সম্মান জাদুঘরে নির্বাসিত   আমাদের সমাজ এখন ভেড়ার বদলে  কুকুর পালনে মনোনিবেশ
বিস্তারিত
ডুডল
  দীর্ঘ বিরতির পর এই দেখলামÑ তোমার বয়সের ছাপ এসে গেছেÑ চোখের নিচে
বিস্তারিত