প্রসূতির নাইট শিফটে কাজ, মিসক্যারেজ হতে পারে!

প্রতীকী ছবি

মা হতে চাওয়া সব নারীরই সহজাত প্রবৃত্তি। কর্মজীবী নারী যারা চাকরির প্রয়োজনে কখনো কখনো রাত্রিকালীন দায়িত্ব পালন করে থাকেন তাদের ক্ষেত্রে মা হওয়ার কিছুটা ঝুঁকি থেকে যায়।

প্রেগন্যান্ট অবস্থায় এক সপ্তাহে দু'দিন বা তার বেশি নাইট শিফটে কাজ করছেন? এতে কিন্তু আপনার মিসক্যারেজও হতে পারে। সম্প্রতি একটি গবেষণায় এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। 

বলা হচ্ছে, রাত জেগে কাজ করা মানে, কৃত্রিম আলোর সামনে দীর্ঘ সময় থাকা। এর ফলে শরীরের স্বাভাবিক বডি ক্লক (দেহঘড়ি) নষ্ট হয়ে যায়। মেলাটনিন নামে এক ধরনের হরমোন যা প্রেগন্যান্সির সময় হবু মায়ের শরীরে অত্যন্ত জরুরি, তার ক্ষরণ প্রভাবিত হয়, অনেকটাই কমে আসে। অকুপেশনাল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল মেডিসিন জার্নালে এ তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। 

এই গবেষণার জন্য প্রায় ২৩ হাজার গর্ভবতী নারীকে অংশগ্রহণ করানো হয়েছিল। গবেষণায় উঠে এসেছে, আট সপ্তাহের প্রেগন্যান্সির পর যে নারীরা নাইট শিফটে কাজ করেন তাদের মিসক্যারেজের সম্ভাবনা প্রায় ৩২ শতাংশ বেশি হয়। 

এরই সঙ্গে আগের বেশ কয়েকটি গবেষণায় উঠে এসেছে, নাইট শিফটে কাজ করা নারীদের ক্ষেত্রে সময়ের আগে মেনোপজ, কার্ডিওভাস্কুলার রোগ, অস্টিওপোরোসিস ও স্মৃতিভ্রমের আশঙ্কা বেশি থাকে।


স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে ১৪৩ পদে নিয়োগ
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ৪র্থ স্বাস্থ্য, জনসংখ্যা ও পুষ্টি সেক্টর
বিস্তারিত
যমুনা গ্রুপে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ
নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে যমুনা গ্রুপ। প্রতিষ্ঠানটিতে ‘ম্যানেজার, সেলস অ্যাডমিন’
বিস্তারিত
ঈদে বাড়ি যাওয়ার আগে যা
ঈদের ছুটিতে যারা ঢাকা ছেড়ে গ্রামের বাড়ি যাবেন তাদের উদেশে
বিস্তারিত
জেনে নিন পেট পরিষ্কার রাখার
সকাল সকাল পেট পরিষ্কার না হলে সারাদিন একটা অস্বস্তি কাজ
বিস্তারিত
প্রায় ৩০০ রোগের সমাধান ১টি
সজনে গাছ সবার কাছেই খুব পরিচিত। সজনে ডাঁটা, পাতা ও
বিস্তারিত
জীবনে সফল হতে চাইলে এড়িয়ে
জীবনে সফল হওয়ার সুপ্ত ইচ্ছা আমাদের সকলের মাঝেই আছে। সাফল্য
বিস্তারিত