তদবিরবাজি করলে রাজনীতি করছি কেন?

নুরুল আজিম রনি

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সদ্য পদত্যাগকারী সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি কিছু ফেসবুক ও ভুয়া নিউজ পোর্টালের প্রতি ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কমিটিতে তিনি থাকতে চান এমন গুজবের প্রতিবাদ করে তার ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

তিনি তার স্ট্যাটাসে লিখেন-

“কিছু হনুমান ফেসবুক আর ভুয়া নিউজ পোর্টালে উড়িয়ে ফেলতেছে, আমাকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কমিটিতে দেখতে চায় না! রনিতেই যাতনা, রনিতেই যেনো তাদের ইজ্জত যাবে! বউ বাচ্চার ভাত রনিই যেনো কেড়ে নিয়েছি!

আরে ব্যাটা আমি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতা হওয়ার তদবির কারো কাছে করছি নাকি? ছাত্রলীগ বা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বলতে শুনছো গত এক বছরে? কখনো দেখছো ঢাকাতে গিয়ে কারো পা মালিশ করতে? কারো লাগেজ বহন করতে? অথবা ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম নেতারা আসলে ফাইভ স্টার হোটেলে তুলে মজা মাস্তি করতে??

এসব যারা করে তাদের জন্যই পদ পদবী। আমার পথ ভিন্ন। পদের তদবিরবাজি আমি রনি করিনা। তদবিরবাজি করলে রাজনীতি করছি কেন? পদের লোভও আমি করিনা। পাগল ছাগলে ভরে গেছে চট্টগ্রাম।”

এর আগে স্বার্থান্বেষী মহলসহ চট্টগ্রাম নগরের গুটিকয়েক প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতার প্রতিহিংসার শিকার হন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের পদত্যাগকারী সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি।

চট্টগ্রামে জামায়াত-শিবিরবিরোধী আন্দোলন, খেলার মাঠ রক্ষার আন্দোলন, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি আদায়বিরোধী আন্দোলন, স্কুল মাঠে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণবিরোধী আন্দোলনসহ নানা কর্মকান্ডে রনি যখন চট্টগ্রামসহ সারা দেশের মানুষের কাছে প্রশংসিত হচ্ছিলেন তখনই তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার হন।

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের কমিটিতে ২০১৪ সালে রনি সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ার পর অধিকাংশ সময়ে রনি চট্টগ্রামে জামায়াত-শিবিরের নিয়ন্ত্রণাধীন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টারগুলোর নানা অনিয়ম-অত্যাচারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেন।
মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী হওয়ায় মহিউদ্দিনবিরোধী অংশও রনির বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিল সবসময়। এসব বিষয় রনির জন্য কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য অনেকের।


১৫ আগস্ট: বঙ্গবন্ধুর ২০ উক্তি
আজ জাতীয় শোক দিবস। ১৯৭৫ সালের এই দিনে স্বাধীনতাবিরোধীদের চক্রান্তে
বিস্তারিত
বিশ্বের বিস্ময়ের আরেক নাম বঙ্গবন্ধু
বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ অবিচ্ছেদ্য ইতিহাস। দেশ এবং দেশের মানুষের প্রতি
বিস্তারিত
এখনো রক্তের রঙ ভোরের আকাশে
‘ ... ১১ (১৯৬৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাস) তারিখে রেণু এসেছে
বিস্তারিত
কাশ্মীরের পরিস্থিতি কোন দিকে
কাশ্মীরের পরিস্থিতি এখন কোন দিকে? কাশ্মীরের উত্তেজনার পরিস্থিতি কি আরেকটি
বিস্তারিত
খালের পানিতে বিষ প্রয়োগে মাছ
হায়রে ক্ষুদে প্রজন্ম তোমাদের জন্মদিয়ে ছেড়ে দিয়েছি ধরণীর আস্তাকুড়ে। একটিবারও
বিস্তারিত
যে পাঁচটি কথা বাবা-মাকে না
সন্তান লালন-পালন করা প্রত্যেক বাবা-মার সবচেয়ে বড় দায়িত্ব। তবে সন্তানকে
বিস্তারিত