একযুগ বিনাবিচারে কারাগারে আবু হানিফা!

বরগুনা জেলা কারাগারে ১২ বছর যাবৎ বরগুনার পাথরঘাট উপজেলার উত্তর কাঁঠালতলী গ্রামের আবু হানিফা (৫৫) নামের এক ব্যক্তি আটক রয়েছে বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। আবু হানিফার মা আয়না বেগম (৮৫) সন্তানের জন্য পথে পথে ঘুরছে আর চোখের জল ফেলে সন্তানের মুক্তির দাবি জানাচ্ছেন।

সরেজমিনে উত্তর কাঁঠালতলী গ্রামে আবু হানিফার বাড়ি গিয়ে তার মা ও আত্মীয়স্বজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, হানিফা আয়না বেগমের মেঝো ছেলে। হানিফার প্রথম স্ত্রী নিঃসন্তান পিয়ারা বেগম ১৯৮০ সালে বিয়ের ৮ মাস পরেই গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। ওই সময় হানিফা কাজের জন্য চট্টগ্রামে অবস্থান করছিল। স্ত্রীর আত্মহত্যার দুই দিন পরে বাড়িতে আসে।

হানিফা জানায়, তার স্ত্রী মানসিকভাবে অনেকটা অসুস্থ ছিলেন। প্রায়ই রাতে কাউকে না বলে বাড়ির বাইরে চলে যেত। অনেক খোঁজাখুঁজি করে তাকে ফিরিয়ে আনা হতো। পুলিশের হয়রানির ভয়ে সে বাড়ি থেকে চলে যায়। তাকে না পেয়ে পুলিশ সন্দেহজনকভাবে হানিফার মা আয়না বেগমকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। দীর্ঘ পাঁচ বছর কারাবাসের পরে আয়না বেগম মুক্তি পায়।

হানিফার দাবি, তাকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে বন্দী করে রাখা হয়েছে। তিনি তার মুক্তির ব্যাপারে মানবাধিকার সংগঠনে সহযোগিতা কামনা করেন। হানিফা বলেন, কী আমার অপরাধ আমি আজও জানতে পারলাম না। রাষ্ট্র কেন আমাকে আমার মত নিরাপরাধ ব্যক্তিকে আটক রেখেছে জানতে চাই।

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা থানা পুলিশ বাদী হয়ে (জিআর ৪২২/৮০) ধারা ৩০২/৩৪ এ একটি মামলা দায়ের করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মজিবুর রহমান আদালতে দেয়া তার প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছেন, ১৯৮২ সন হতে আসামি পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার নথিটি খুঁজিয়া পাওয়া যায়নি। জিআর রেজিস্ট্রারে ওয়ারেন্টের বিষয় উল্লেখ থাকায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ মামলায় ২৭.০১.২০০৬ ইং তারিখ পুলিশ আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা অনুসারে তাকে গ্রেফতার করে উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত পাথরঘাটায় সোপর্দ করলে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

হানিফার মা আয়না বেগম অভিযোগ করেন, তার ছেলে সম্পূর্ণ নির্দোষ। পুলিশ সঠিকভাবে তদন্ত না করে তাকে এবং তার ছেলেকে হত্যা মামলায় জড়িয়েছে। পাথরঘাটা থানা ও আদালতে ঘুরে এই মামলার কোন নথিপত্র পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন, হানিফার মা আয়না বেগম। বর্তমানে পথে পথে ভিক্ষে করে তার জীবন চলছে। তিনি প্রধানমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীসহ সরকারের কাছে তার ছেলের মুক্তির দাবি জানান। 


এরশাদের রংপুরের বাসভবন লকডাউন
রংপুরে সাবেক রাষ্ট্রপতি জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের বাসভবন
বিস্তারিত
বাবা-মায়ের ঝগড়া, অভিমানে মেয়ের আত্মহত্যা
টাঙ্গাইলের সখীপুরে মা-বাবার সাথে অভিমান করে রোকসানা আক্তার (১৯) নামের
বিস্তারিত
অবস্থার অবনতি, গফরগাঁও পৌর মেয়রকে
উন্নতি না হয়ে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় এস এম ইকবাল হোসেন
বিস্তারিত
হালুয়াঘাটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে প্রাণ গেল দু’জনের
ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দু’জনের ‍মৃত্যু হয়েছে। নিহত দুজন হলেন,
বিস্তারিত
যুবলীগ কর্মী খুনের প্রতিবাদে বাউফলে
পটুয়াখালীর বাউফলে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা
বিস্তারিত
সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের
সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ
বিস্তারিত