রোজা অবস্থায় মহিলাদের মাসিক হলে বা ঋতুস্রাব দেখা দিলে

মাসআলা

রোজা অবস্থায় মহিলাদের মাসিক আরম্ভ হলে বা ঋতুস্রাব (হায়েজ) ও প্রসবোত্তর স্রাব (নিফাস) দেখা দিলে রোজা ভেঙে যাবে। তবে সক্ষম হলে ওই দিন রোজার সম্মানার্থে ইফতার পর্যন্ত পানাহার থেকে বিরত থাকা ভালো। পরে এ রোজা কাজা আদায় করে নেবে। যারা উপযুক্ত ওজরের কারণে রোজা রাখতে পারবেন না, তারা রমজানের সম্মানার্থে অন্যদের সামনে পানাহার করবেন না। এটা তাকওয়ার পরিচায়ক। (সূরা হজ : ৩২)। অনুরূপভাবে রমজানে দিনের বেলায় মহিলাদের মাসিক বা ঋতুস্রাব বন্ধ হলে; সেই দিনের অবশিষ্ট সময় পানাহার থেকে বিরত থাকবে; এটি রোজার সম্মানে, রোজা হিসেবে নয়। এ দিনের রোজা আদায় করতে হবে। পরদিন থেকে রোজা পালন করবে। এমতাবস্থায় মহিলারা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকবেন, সবার সঙ্গে স্বাভাবিকভাবেই চলাফেরা করতে পারবেন। রান্নাবান্না করা, দোয়া-দুরুদ পড়া, তাসবিহ তাহলিল এ সবই স্বাভাবিকভাবে করবেন এবং সাহরি ও ইফতারেও শরিক হতে পারবেন। (ফাতাওয়া আযীযী)। 

 


প্রিয় মুরসি, আপনি আমাদের মাঝে জীবিতই!
আমর দারাজ মিসরীয় সাবেক আন্তর্জাতিকবিষয়ক ও পরিকল্পনামন্ত্রী  আপনি জীবিত! কারণ আপনার
বিস্তারিত
মুরসিকে নিয়ে নতুন তথ্য ফাঁস
মিসরের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের
বিস্তারিত
মার্কিন ড্রোন ভূপাতিতের জের ইরান-যুক্তরাষ্ট্র পাল্টাপাল্টি সাইবার
ওমান উপসাগরে বৃহস্পতিবার তাদের একটি অত্যাধুনিক ড্রোন বিধ্বস্ত করার বদলা
বিস্তারিত
মুসলিম এমপির প্রতিবাদ
ভারতের সংসদে তিন তালাকবিরোধী বিল পেশ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার বিজেপি।
বিস্তারিত
ট্রাম্প ও হরমুজ প্রণালি
২৩ জুন লন্ডনভিত্তিক  আরবি-ইংরেজি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম নিউ অ্যারাবে প্রকাশিত ইমাদ
বিস্তারিত
সমৃদ্ধিশালী দেশ গড়ার লক্ষ্যে বগুড়ায় বুনিয়াদি
পল্লী উন্নয়ন একাডেমি, শেরপুর বগুড়ায় জনপ্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত ৬ মাস
বিস্তারিত