নিস্তব্ধ অন্তরে

তুমি আছো নিস্তব্ধ অন্তরে আমার
অন্তরের দেবালোকে।
পাইনি বলে আজও তোমায়
ভালোবাসি আমি।
নীল সাগরের এপার ওপার
করছে কানাকানি।

নাম না জানা বন্ধু মোরা
হয়নি পরিচয়।
আমার বুকে কাঁদছে আশা
তোমার বুকে ভয়।
তোমায় আমি পেলাম নাকো
জানার অবসর।

গানের পাখি বসেছিল
দু’দিন শাখার পর।
বর্ষা ঝরা এমন রাতে
আমার মতো কি!
ঝরবে তুমি একা মনে
বনের কেতকী!

থাকবে তুমি ছায়ার সঙ্গে 
থাকবে আমার বুকের মাঝে।
মায়ার মতো চাঁদনী রাতে
থাকবে এ প্রাণ তোমার পাশে।

তুমি আমার আড়াল থাকা
তুমি স্বপন চোর।
তুমি আছো, আমি আছি
এই তো খুশি মোর।

ঘুম ঘোরে
স্বপ্নে আমার মনে হলো
তুমি এসেছিলে ঘুমের ও প্রাতে
ঊষার সোনার বিন্দু লয়ে হাতে
নিঃশব্দ পুরী, কেহ ছিল না পথে
একা চলে গেলে তোমার সোনার রথে
খানিক থমকে দাঁড়িয়েছিলে মোর বাতায়ন পাশে 
চেয়েছিলে করুণ আঁখিপাতে।

স্বপ্নে আমায় ভরেছিল মৃদ গন্ধে
শিয়রে রজনীগন্ধা তারই সুবাসে
ঘরের আঁধার কেঁপেছিল কি আনন্দে 
বুকে দোলে তার বিরহ ব্যথার মালা
গোপন মিলন অমৃত গন্ধ ঢালা।

কোণে পরে থাকা, ধুলি মাখা নীরব
আমার বীণা বেজে উঠেছিল
কি গো অনাহত আনন্দে
কতবার আমি চেয়েছি জাগিয়া উঠিতে
তবু পারি নাই জাগিতে
যখন ভাঙিল ঘুম, তখন গিয়াছ চলিয়া
দেখা বুঝি আর হলো না তোমার সনে।


দীপা
পহেলা ফাল্গুন। বইমেলায় শাড়ি পরিহিতা সুশ্রী একজন লেখিকা ৩০১ নম্বর
বিস্তারিত
মেঘ শুধু মেঘ নয়
মেঘ শুধু মেঘ নয়; খুঁজেছো কি মেঘে তুমি কিছু  শাদা
বিস্তারিত
আলো অন্ধকারে যাই
ভ্যান থেকে যখন নামল সে, বহু মানুষ দাঁড়িয়ে আছে। সন্ধ্যা
বিস্তারিত
চেতনা বিকাতে পারি
  যিনি চেতনাবাজ হয়ে বেঁচে আছেন এক মেরদ-ী শিক্ষকের কথা বলি যিনি
বিস্তারিত
টুপটুপ রক্ত ঝরছে
কপালে লাল টিপ সেঁটে দৌড়ে ছুটছে লাল ষাঁড় শিং ছুঁয়ে
বিস্তারিত
মায়ের শরীরের একাংশ আমি
আমার অস্তিত্বের অঙ্কুরোদগম হয়েছিল এক মায়াবী নারীর গূঢ় কর্ষিত জঠরে
বিস্তারিত