রোজা ফরজ হওয়ার বয়স

মাসআলা

রোজা ও নামাজ ফরজ হওয়ার জন্য বয়স মুখ্য নয়, বালেগ হওয়া বা সাবালকত্ব অর্জন করাই রোজা ও নামাজ ফরজ হওয়ার বয়স। বিজ্ঞজনদের মতে, বাংলাদেশের আবহাওয়া ও পারিপার্শ্বিকতায় এটি সাধারণত ছেলেদের ক্ষেত্রে তেরো থেকে পনেরো বছর এবং মেয়েদের ক্ষেত্রে এগারো থেকে তেরো বছরে হয়ে থাকে; যদিও ক্ষেত্রবিশেষ নয় বছরেও হতে পারে। মূলত শরীর স্বাস্থ্য বৃদ্ধিগতি, বংশগতধারা ও খাদ্যাভ্যাসসহ নানা প্রভাবক ও কিছু উদ্দীপক এক্ষেত্রে নিয়ামক ভূমিকা পালন করে। এ সময় ছেলেমেয়েদের শারীরিক ও মানসিক পরিবর্তন ঘটে; কণ্ঠস্বর পরিবর্তন হয়, আচরণে পার্থক্য ও নতুনত্ব আসে; নারী বা পুরুষ সত্তার বিকাশ প্রকাশ ও স্বাতন্ত্র্য সৃষ্টি হয়। এ সময় থেকে রোজা পালন ও নামাজ আদায় করা বাধ্যতামূলক ফরজ হয়। পালন না করলে কাজা আদায় করতে হয়, রোজা রেখে ভাঙলে কাফফারাসহ আদায় করতে হয়। এ সময় থেকে এদের সওয়াব ও গোনাহ লেখা শুরু হয়। অবহেলা করে রোজা না রাখা অনেক বড় গোনাহ। বাবা-মা বা অভিভাবক যদি এদের রোজা রাখতে নিরুৎসাহিত করেন; তবে তারাও গোনাহগার হবেন। তবে কেউ অসুস্থ বা অক্ষম হলে তার জন্য কাজা বা ফিদইয়ার বিধান রয়েছে। (ফাতওয়া শামী)। 


আল্লাহর দেওয়া মানবজাতির বহুমাত্রিক
ইবনে আসাকির (রহ.) আনাস ইবনে মালেক (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিস
বিস্তারিত
ইউশা ইবনে নুন (আ.) এর
ইউশা ইবনে নুন (আ.) ছিলেন সেই নবী, যার ইব্রাহিম (আ.)
বিস্তারিত
ইসলামি নিদর্শন চালু করে
কামাল আতাতুর্ক তুরস্ক থেকে ইসলামি সব নিদর্শন মুছে ফেলেছিলেন। ডেমোক্র্যাটিক
বিস্তারিত
নামাজ শুরু করার পর ভেঙে
প্রশ্ন : আমার বাড়ি যশোরে, বাড়িতে সাধারণত রাতেই রওনা দিই।
বিস্তারিত
আল কোরআন ও বিজ্ঞান
সব সংস্কৃতিতে সাহিত্য ও কবিতা মানুষের ভাব প্রকাশ ও সৃজনশীলতার
বিস্তারিত
যৌতুকপ্রথার ভয়াবহতা ও প্রতিকার
আজকাল পত্রপত্রিকা বা ফেইসবুক ঘাঁটলে যে বিষয়টি ব্যাপকভাবে চোখে পড়ে,
বিস্তারিত