শিশুকে কত বছর মায়ের দুধ পান করাবেন

শিশুর বেড়ে উঠায় মায়ের বুকের দুধের কোন বিকল্প নেই। আমরা হয়তো সঠিক জানিনা যে শিশুকে কত বছর বয়স পযর্ন্ত বুকের দুধ খাওয়ানো যাবে। এ বিষয়ে বিভিন্ন জন বিভিন্ন ভাবে ব্যাখ্যা দিয়েছে।

বুকের দুধ পান করানো মা এবং শিশু উভয়ের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। যে কোন ধরণের ইনফেকশন, ডাইরিয়া, এবং বমি ভাব বন্ধ করার ক্ষেত্রে মায়ের দুধ ভালো রক্ষাকবচের কাজ করে। পরবর্তী জীবনে স্থূলতাসহ অন্যান্য রোগ প্রতিরোধ করতে সহায়তা করে।

ডাক্তাররা বলছেন, এটা একেবারেই একটা ব্যক্তিগত বিষয়। এটা মা শিশুর সম্পর্ককে গড়ে তোলে আর এতে কোন ক্ষতি নেই। এটা মায়ের জন্য স্তন এবং ওভারির ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

২৭ বছর বয়সী এই মা আরো বলেন, তিনি বিষয়টা ভালো-ভাবে নিচ্ছেন কারণ বুকের দুধে এন্টিবডি রয়েছে যেটা শিশুর শরীরের জন্য ভালো। যুক্তরাজ্যের চিকিৎসকরা পরামর্শ দেন যতদিন মা এবং শিশু দুজনেই চাইবে ততদিন দুধ পান করানো উচিত।

যুক্তরাজ্যে ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস নির্দিষ্ট কোন টাইম বেধে দেয় নি ঠিক কোন সময়ে দুধ পান করানো বন্ধ করতে হবে। শিশুর জন্য প্রথম ছয় মাস মায়ের বুকের দুধ পান করানোর জন্য বিশেষ ভাবে বলা হয়। এর পর ছয় বছর দুধের সাথে সাথে অন্যান্য শক্ত খাবার খাওয়ানো যেতে পারে।

ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের ওয়েবসাইটে বলা আছে, ‘যতদিন আপনার ভালো লাগবে ততদিন আপনি আপনার শিশুকে বুকের দুধ খাওয়াতে পারেন। দুই বা তার চেয়ে বেশি বছর ধরে বুকের দুধ খাওয়ার পাশাপাশি এসময় অন্যান্য খাবার দেয়া উচিত।’


বাবা-মায়ের তালাকে ‘মোটা হয় শিশুরা’
যাদের বাবা-মা এক সঙ্গে থাকে তাদের তুলনায় যেসব শিশুর বাবা-মায়ের
বিস্তারিত
কম বাজেটে ভ্রমণ! জেনে নিন
পকেট ফাঁকা, টাকার দেখা নেই বেশ কতদিন, কিন্তু কোথাও তো
বিস্তারিত
যে কারণে অকালে চুল ঝরে
টাক পড়ে যাওয়া এখন খুব স্বাভাবিক একটি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।
বিস্তারিত
কম ঘুমালে হবে যেসব ক্ষতি
সারা দিন কাজ ও নানা রকম চাপের কারণে অনেকে চার-পাঁচ
বিস্তারিত
ফরমালিনমুক্ত আম চিনবেন যেভাবে
বাজারে আম কিনতে গেলে বিপাকে পড়ে যান আপনি। ঠিক বুঝে
বিস্তারিত
সন্তান প্রতিবন্ধী হতে পারে স্বামী-স্ত্রীর
মহান আল্লাহতায়ালা প্রত্যেক পুরুষের জন্য স্ত্রী হিসেবে একজন নারীকে মনোনিত
বিস্তারিত