দাম কমছে যেসব পণ্যের

‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ : সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের’ শিরোনামে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট পেশ করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এটি ক্ষমতাসীন সরকারের চলতি মেয়াদের প্রথম এবং দেশের ৪৮তম বাজেট।

অর্থমন্ত্রী হিসেবে প্রথমবারের মতো আ হ ম মুস্তফা কামালের দেয়া ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে ভ্যাটের পরিধি যেমন ব্যাপক হারে বিস্তৃত করা হয়েছে, তেমনি নিত্য ব্যবহার্য কিছু পণ্যের ভ্যাট হার কমানো ও কিছুক্ষেত্রে বিভিন্ন শূল্ক ছাড় দেয়া হয়েছে। ফলে এসব পণ্যের দাম কমতে পারে।

প্রস্তাবিত বাজেটে যেসব পণ্যের দাম কমতে পারে-দেশে তৈরি ফ্রিজ, ক্যানসারের ওষুধ, দেশে তৈরি লিফট, রফতানিমুখী পোশাক, চামড়াজাত জুতা, তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর সেবা, স্বর্ণ, রড, ইলেকট্রিক মোটর, বিস্কুট ও বেকারি পণ্য, অগ্নিনির্বাপক পণ্য।

চলতি অর্থবছরে মূল বাজেটের আকার দাঁড়ায় চার লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা। তবে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী, রাজস্ব আদায় করতে না পারা এবং উন্নয়ন প্রকল্পে পরিকল্পনা অনুযায়ী অর্থখরচ করতে না পারায় চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের আকার নির্ধারণ করা হয় চার লাখ ৪২ হাজার ৫৪১ কোটি টাকা। অর্থাৎ আগামী বাজেটের আকার সংশোধিত বাজেট থেকে ৮০ হাজার ৬৪৯ কোটি টাকা বেশি।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেলে জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপনকালে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘আমি যতটুকু পড়তে পেরেছি বাকিটুকু মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি। উনি পড়ে দেবেন।’

পরে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর অনুমতিক্রমে বাজেট উপস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নতুন অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের এটি তার প্রথম বাজেট।

এটি দেশের ৪৮তম এবং বর্তমান সরকারের তৃতীয় মেয়াদের প্রথম বাজেট। ‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ : সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের’ শিরোনামে প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ধরা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। দেশের ৪৮ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় বাজেট এটি।

বৃহস্পতিবার বেলা ৩টায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। প্রস্তাবিত বাজেট পাস হবে আগামী ৩০ জুন। ১ জুলাই থেকে শুরু হবে নতুন অর্থবছর।

এদিকে দেশের ইতিহাসে ১২তম দায়িত্বশীল ব্যক্তি হিসেবে জাতীয় সংসদে বাজেট পেশ করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেল ৩টা ৭ মিনিটে অর্থমন্ত্রী তার বাজেট বক্তব্য শুরু করার জন্য স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছ থেকে অনুমতি গ্রহণ করেন।

এ সময় স্পিকার অর্থমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন যে, আপনি চাইলে বসে বাজেট বক্তব্য উপস্থাপন করতে পারেন।

আওয়ামী লীগের সাংসদ শেখ ফজলুল করিম সেলিম পাশ থেকে অর্থমন্ত্রীকে বাজেট বক্তব্য কীভাবে উপস্থাপন করতে হয়, সে বিষয়ে পরামর্শ দিচ্ছিলেন।

এরপর, অর্থমন্ত্রী তার আসনে বসে বাজেট বক্তব্য দেওয়া শুরু করেন।

অর্থমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সংগ্রাম ও বাংলাদেশের জন্ম ইতিহাস নিয়ে একটি প্রামাণ্য চিত্র উপস্থাপন করেন। এরপর তিনি এবারের বাজেটকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাজেট বলে অভিহিত করেন।

তার আগে সাদা পাঞ্জাবির ওপর মুজিব কোট পরে তিনি সংসদে প্রবেশ করেন।

উল্লেখ্য, ১৯৭২ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রীরা বাজেট পেশ করেছেন। তবে অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ছাড়াও কখনো কখনো দেশের প্রধানমন্ত্রী, উপদেষ্টা, প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক, আবার রাষ্ট্রপতি নিজেও বাজেট ঘোষণা করেছেন। সেই হিসাবে এবারের ৪৮তম বাজেটসহ বাংলাদেশের ইতিহাসে বাজেট পেশকারী হচ্ছেন ১২ জন।

এর আগে, বাজেট পেশকারী দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা হলেন তাজউদ্দীন আহমদ, আজিজুর রহমান মল্লিক (এ আর মল্লিক), মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান, এম এন হুদা, এম সাইফুর রহমান, আবুল মাল আবদুল মুহিত, এম সায়েদুজ্জামান, মেজর জেনারেল এম এ মুনিম, ওয়াহিদুল হক, শাহ এ এম এস কিবরিয়া ও এ বি মির্জ্জা মো. আজিজুল ইসলাম।

গত ১০ বছর টানা বাজেট দিয়েছেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বর্তমান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এর আগে ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী। অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে এবারই প্রথম বাজেট পেশ করছেন তিনি।


‘গণপিটুনির ভয়ে পলাতক ছিলেন ওসি
ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের জামিন
বিস্তারিত
৫ বছর আগের মেয়াদোত্তীর্ণ ‘অ্যামোডিস’
আমাশয়ের ওষুধ অ্যামোডিস। ২০১১ সালের জুলাইয়ে উৎপাদন। ২০১৪ সালে ওষুধের
বিস্তারিত
ইউএনওরা পাচ্ছেন কোটি টাকার গাড়ি
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা (ইউএনও) পাচ্ছেন ৯০ লাখ ৩১ হাজার টাকা
বিস্তারিত
রূপপুরের জন্য ইউরেনিয়াম কেনার অনুমোদন
রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য রাশিয়ার কাছ থেকে ৫২৩ কোটি
বিস্তারিত
বিটিভির আধুনিকায়নে দুই হাজার কোটি
তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর বাংলাদেশ
বিস্তারিত
‘স্বাস্থ্য বীমা চালুর পরিকল্পনা আছে
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বর্তমান
বিস্তারিত