ভোলায় বর-কনে ও কাজিসহ ৯ জনের জেল-জরিমানা

ভোলায় পৃথক দুটি বাল্যবিবাহ পড়ানোর অপরাধে বর-কনে, অভিভাবক ও কাজিসহ ৯ জনের জেল-জরিমানা প্রদান করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এদের মধ্যে তিনজনকে ৬ মাস করে কারাদণ্ড, ৪ জনকে ১০ হাজার টাকা করে ও ২ জনকে ৫ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে ভোলা সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাওছার হোসেন বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন-২০১৭-এর ৮ ধারা অনুযায়ী এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কাজী মো. ইকবাল হোসেন, তার সহকারী মো. হাসান, বর মো. সজিব। এদের মধ্যে কাজী মো. ইকবাল হোসেন সদর উপজেলার পরানগঞ্জ বাজার এলাকার সৈয়দ আহম্মদের ছেলে। তার সহকারী মো. হাসান একই উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মো. আব্দুল মতিনের ছেলে এবং বর মো. সজিব বোরহানউদ্দিন উপজেলার টবগী ইউনিয়নের মুলাইপত্তন গ্রামের নাজিম উদ্দিনের ছেলে। 

অর্থদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- বোরহানউদ্দিন উপজেলার মুলাইপত্তন গ্রামের প্রবাসী মো. মফিজুল ইসলাম ফরাজীর স্ত্রী নাসিমা আক্তার, তার নবম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে কনে মোসা. ফাতেমা আক্তার মিতু, সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়নের মো. সবুজ, মজিব উদ্দিন, মাইনুদ্দিন ও নাজিম উদ্দিন।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে ভোলা শহরের সামসুদ্দিন মার্কেটে অবস্থিত কাজি অফিসে বাল্যবিবাহ পড়ানোর সময় কাজি মো. ইকবাল হোসেন, তার সহকারী মো. হাসান ও বোরহানউদ্দিনের মো. সজিব (১৯), একই এলাকার নবম শ্রেণি পড়ুয়া মোসা. ফাতেমা আক্তার মিতু ও তার মা নাসিমা আক্তারকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে তাদের মধ্যে কাজি, তার সহকারী ও বরকে ৬ মাস করে কারাদণ্ড প্রদান করেন। কনে ও তার মাকে ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।

এছাড়াও সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের চেউয়াখালী গ্রাম থেকে বুধবার রাতে বাল্যবিবাহ পড়ানোর সময় বর, মেয়ের বাবা ও চাচাসহ ৪ জনকে আটক করে পুলিশ। এদের মধ্যে বর মো. সবুজ, মেয়ের বাবা মো. মজিব উদ্দিন, চাচা মাইনুদ্দিন ও নাজিম উদ্দিনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। এ সময় মেয়ের বাবা বয়স ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত কন্যাকে বিবাহ দিবে না মর্মে মুচলেকা দেন।

ভোলা সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাওছার হোসেন বলেন, সমন্বিত শিশু বিবাহ প্রতিরোধ প্রকল্পের কর্মীরা ও বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ কমিটির তথ্য পেয়ে এবং পুলিশের সহায়তায় ভোলা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কাজি অফিস থেকে কাজিসহ ৫ জন ও সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়ন থেকে বর ও মেয়ের বাবাসহ ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজনকে ৬ মাস করে কারাদণ্ড ও বাকি ৬ জনকে সর্বমোট ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।  


জঙ্গি নির্মূলে বাংলাদেশ বিশ্বের রোল
জঙ্গি নির্মূলে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের রোল মডেল উল্লেখ করে বাংলাদেশ
বিস্তারিত
মঠবাড়িয়ায় নারী ইউপি সদস্যের বাড়িতে
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় উপজেলা নির্বাচনের জেরে প্রতিপক্ষরা এমিলি বেগম নামে এক
বিস্তারিত
যমুনায় পানি বৃদ্ধি, সিরাজগঞ্জে ব্যাপক
যমুনা নদীর পানি বাড়তে থাকায় সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলা চরাঞ্চলের ৪টি
বিস্তারিত
নকলায় টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়ন
শেরপুরের নকলায় স্থানীয় পর্যায়ে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়ন বিষয়ক বিভিন্ন
বিস্তারিত
ট্রেনের ধাক্কায় স্কুল শিক্ষক নিহত
ঢাকা-ঈশ্বরদী রেলপথের সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার চকশাহবাজপুর নামক স্থানে আন্তনগর ট্রেনের
বিস্তারিত
রাজশাহীর আসমা হত্যায় জড়িত সন্দেহে
রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার গৃহবধূ আসমা বেগমকে (৪৫) হত্যায় জড়িত সন্দেহে
বিস্তারিত