জল : ০১

কাজল কাননে পায়ের আলোতে রবির ঘুম ভাঙে রোজ

যাপিত সংসার সুখ-দুখে আঁকে বাজারের ফর্দ
ঠিক জানি ইচ্ছা অনিচ্ছায় আমিও থাকি

বেলকুনির অ্যালোভেরায়, অ্যাকুরিয়ামের বুদবুদে, কার্নিসের চড়–ই ডাকে
ঘামের শরীরের গোসলের ঠান্ডায়, সিদ্ধ আলুর ভাপে,
শব্দশূন্য ঘরে ঘড়ির নিয়ম করা প্যারেডে, মেঝেতে বাতাসের সাথে পাল্লা দিয়ে উড়া
চুলের গোছায়, কিম্বা বুক সেলফের উঁইপোকা গানে।

হাওরের হাইওয়ে সন্ধ্যার তেপান্তরে ঝুলে থাকা ভার্মিলিয়ন রেড আকাশ
টুপ করে ফিরে ঝিঁঝিঁ পোকার অন্ধকার দেশে।
কৈশোরের ঝড়ের মাথায় ফুটবল মাঠ, বরেন্দ্র মাটির উঁচু নিচু আমবাগান, 
শিমুল ফুলের মুখ, শুকনো পাতার বালিশশূন্য বিছানা
কিম্বা জলের পাখোয়াজের কাজল কায়া নদী।


আরিফ মঈনুদ্দীন বৃষ্টিভেজা তুমি
  নন্দনতত্ত্বে হাত রেখেছিÑ উঠে আসছে নৈপুণ্য নিপুণ শিল্পের ঘরে জমজমাট
বিস্তারিত
একাকী-নিঃসঙ্গ
একাকী-নিঃসঙ্গ নিঃসঙ্গের চেয়েও একাকী হতে পারে মানুষ কখনো-বা একাকী থাকাকে
বিস্তারিত
দ্যূতক্রীড়া
সাইয়্যিদ মঞ্জু  দ্যূতক্রীড়া অতল গহ্বরে হাবুডুবু-প্রমত্ত উল্লাস ভূলুন্ঠিত মানবতা সভ্যতার দ্যূতক্রীড়ায়
বিস্তারিত
এ শহর
এ শহরে বৃক্ষ আছে ছায়া নেই, মানুষ আছে মায়া নেই
বিস্তারিত
নিরু এখনও মরেনি
এক অনাকাক্সিক্ষত ভুলে, অথবা নিয়তির নিষ্ঠুর অভিঘাতে দোষী হয়েছিল নিরু,
বিস্তারিত
স্মৃতিরা কাঁদায়
পুরোনো শার্ট হ্যাঙ্গারে আছে ঝুলে পরে না কেউ চশমাটিও ধুলোময়... ছবির
বিস্তারিত