রাগ কমিয়ে মাথা ঠান্ডা রাখতে যে খাবার খাবেন, জেনে নিন

আমরা অনেকেই খুব সহজে রেগে যাই। রেগে গিয়ে হারিয়ে ফেলি হিতাহিত জ্ঞান। রাগের বশে উলটাপালটা কথা বলে ডেকে আনি বিপদ। যা করার না তাই করে ফেলেন অনেকেই। এই রাগ নিয়ন্ত্রণের জন্য আছে অনেকরকম মেডিটেশান, মানসিক ব্যায়াম। যা করে মনকে শান্ত রাখা যায়। বদরাগ দমন করা যায়। ঠিক তেমনি কিছু খাবারও আছে যা হরমোন নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে আমাদের নার্ভকে শান্ত করে তোলে।
সাম্প্রতিক কিছু গবেষণায় উঠে এসেছে এমনই কিছু তথ্য। চলুন আর দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক সেই সব খাবার সম্পর্কে যা আমাদের রাগকে প্রশমিত করতে পারে।

কলা: কলাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি এবং পটাশিয়াম থাকে। যা আমাদের স্নায়ুকে শান্ত রাখতে সাহায্য করে।

আলু: আলুতে থাকে কার্বোহাইড্রেট ও ভিটামিন বি। যা রক্তচাপ ও স্ট্রেস কমায়। তাই ডায়েটে আলু রাখুন। সবচেয়ে ভাল হয় সেদ্ধ আলু খেলে।

আইসক্রিম: মেজাজ খারাপ থাকলে রাগ বেশি প্রকাশ পায়। আর মেজাজ ভাল রাখতে আইসক্রিমের জুড়ি নেই। এটি থ্রমবোটনিন হরমোন ক্ষরণ করতে সাহায্য করে। যার ফলে মন খুশি খুশি থাকে।

চকোলেট: যারা খুব দ্রুতই রেগে যান তারা চকোলেট খেতে পারেন। চকোলেট স্ট্রেস হরমোনকে নিয়ন্ত্রণ করে। সেই সাথে ফিল গুড হরমোনের ক্ষরণ বাড়ায়। যার ফলে মাথা শান্ত থাকে। ডার্ক চকোলেট খেলে ফল আরও ভাল পাওয়া যায়।

আপেল ও পিনাট বাটার: আপেলে কার্বহাইড্রেট থাকে আর পিনাট বাটার ফ্যাটে পরিপূর্ণ। এই দুটির যোগে রাগ কমে।

গ্রিন টি: এটি স্বাস্থ্যের জন্য কতটা উপকারী সেটা আমরা প্রতিদিনই জানছি। এর অনেক গুনাগুণের মধ্যে অন্যতম এটি মাথা ঠান্ডা রাখতে ওস্তাদ। কোনো কারণে হঠাৎই মেজাজ গরম হয়ে গেলে এক কাপ গ্রিন টি খেয়ে নিন। এতে মাথা শান্ত হবে।


জেনে রাখেন কমলা খাবেন যে
শীতকালে বাজারে প্রচুর কমলা পাওয়া যায়। কিন্তু সুস্বাধু এই ফলের
বিস্তারিত
প্রস্রাব ধরে রাখতে না পারলে
প্রস্রাব ধরে রাখতে সমস্যা হওয়ার কারণ হঠাৎ মূত্রথলি সংকুচিত বা
বিস্তারিত
কচি আমপাতায় সারাবে যেসব রোগ
শীত শেষ হয়ে শুরু হচ্ছে বসন্ত। তার সঙ্গে আগমন ঘটেছে
বিস্তারিত
ভ্যালেন্টাইন্স ডে’তে সাবধান, চুমুতে ছড়াতে
‘ঠোঁটে ঠোঁট রেখে ব্যারিকেড কর, প্রেমের পদ্যটাই। বিদ্রোহ আর চুমুর
বিস্তারিত
ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি
খাওয়া-দাওয়া, তেজস্ক্রিয়তা, পুরোনো ক্ষতসহ নানা কারণেই শরীরে বাসা বাঁধতে পারে
বিস্তারিত
জেনে নিন যৌন ক্ষমতা বাড়াতে
স্বাস্থ্যকর এবং সুখী যৌন জীবন প্রত্যেকেই চায়। তারপরও কারও কারও
বিস্তারিত