যেখানে মেলে প্রশান্তির পরশ

নীলসাগর

ভ্রমণ একটি আনন্দময় ইবাদত। জ্ঞান-বিজ্ঞান ও অভিজ্ঞতার উৎস। ভ্রমণের অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য হলো আল্লাহ তায়ালার সৃষ্টি-রহস্য অবলোকন করে জ্ঞানার্জন করা। তার কুদরত ও শক্তির প্রতি অনুগত হওয়া। এ বিষয়ে পবিত্র কোরআনে নির্দেশনা রয়েছেÑ ‘তোমরা পৃথিবীতে পরিভ্রমণ করো এবং অনুধাবন করো, কীভাবে তিনি সৃষ্টির সূচনা করেছেন? অতঃপর আল্লাহ সৃজন করবেন পরবর্তী সৃষ্টি। আল্লাহ তো সর্ববিষয়ে সর্বশক্তিমান।’ (সূরা আনকাবুত : ২০)।
পবিত্র কোরআনে ভ্রমণসংক্রান্ত একাধিক আয়াতের পাশাপাশি অসংখ্য হাদিসও রয়েছে। তাছাড়া ভ্রমণ মানবজীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। ঈদ কিংবা বিভিন্ন ছুটিতে মানুষ ভ্রমণ করতে ভালোবাসে। খুঁজে বেড়ায় দর্শনীয় স্থান। বিশ্বের হাজারো দর্শনীয় জায়গার মধ্যে এদেশেও রয়েছে অসংখ্য দর্শনীয় স্থান। তার মাঝে উত্তরবঙ্গের নীলসাগর অন্যতম। 
নীলসাগরের অবস্থান : মূলত নীলসাগর একটি ঐতিহাসিক দিঘি, যা বর্তমানে নীলফামারী জেলা সদর থেকে উত্তর-পশ্চিম কোণে গোড় গ্রাম ইউনিয়নের ধোবাডাঙ্গা মৌজায় ৫৩.৯০ একর জমির ওপর অবস্থিত। এর জলভাগ ৩২.৭০ একর এবং চারদিকের পাড়ের জমির পরিমাণ ২১ একরের মতো।
নীলসাগরের ইতিহাস : আনুমানিক খ্রিষ্টপূর্ব অষ্টম শতাব্দীর কোনো এক সময় এ জলাশয়টির খননকাজ শুরু হয়েছিল। নীলসাগর, বিরাট দিঘি। এটি বিন্না দিঘি নামেও পরিচিত। ধারণা করা হয়, খ্রিষ্টপূর্ব নবম থেকে অষ্টম শতাব্দীতে পা-বরা কৌরবদের চক্রান্তের শিকার হয়ে ১২ বছরের বনবাস ও ১ বছরের অজ্ঞাতবাসে যেতে বাধ্য হন এবং মৎস্য দেশের রাজা বিরাটের রাজধানীর এ স্থানটিতে ছদ্মবেশে বসবাস শুরু করেন। সে সময় নির্বাসিত পা-বদের তৃষ্ণা মেটাতে বৈদিক রাজা বিরাট এ দিঘিটি খনন করেছিলেন। কারও কারও মতে, রাজা বিরাট তার বিশাল গরুর পালের জন্য পানির সংস্থান করতেই এ দিঘি খনন করেন এবং তার কন্যা বিন্নাবতীর নামে এর নামকরণ করেন। পরবর্তী সময়ে ১৯৭৯ সালে নীলফামারীর তৎকালীন মহকুমা প্রশাসক ও অবসরপ্রাপ্ত সচিব এমএ জব্বার কর্তৃক এই দিঘিকে পর্যটনক্ষেত্র হিসেবে পরিচিত করতে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়। নীলফামারীর নামানুসারে বিন্না দিঘির পরিবর্তে এর নামকরণ করা হয় নীলসাগর।
নীলসাগরের আকর্ষণ : প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্যই মূলত নীলসাগর বিখ্যাত। এর পাড়ে রয়েছে নারকেল, বনবাবুল, আকাশমণি, মেহগনি, শিশুসহ অজানা-অচেনা হরেক রকম ফুল ও ফলের সারি সারি বৃক্ষরাজি। এছাড়াও পাশেই রয়েছে একটি ছোট পার্ক। ১৯৯৮ সালে এ এলাকাকে পাখির অভয়ারণ্য ঘোষণা করা হয়। দিঘির পাশেই সরকারের অনুদানে একটি রেস্টহাউস স্থাপন করা হয়েছে, যা দর্শনার্থীদের আরও মনোযোগ আকর্ষণ করেছে।


আল্লাহর দেওয়া মানবজাতির বহুমাত্রিক
ইবনে আসাকির (রহ.) আনাস ইবনে মালেক (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিস
বিস্তারিত
ইউশা ইবনে নুন (আ.) এর
ইউশা ইবনে নুন (আ.) ছিলেন সেই নবী, যার ইব্রাহিম (আ.)
বিস্তারিত
ইসলামি নিদর্শন চালু করে
কামাল আতাতুর্ক তুরস্ক থেকে ইসলামি সব নিদর্শন মুছে ফেলেছিলেন। ডেমোক্র্যাটিক
বিস্তারিত
নামাজ শুরু করার পর ভেঙে
প্রশ্ন : আমার বাড়ি যশোরে, বাড়িতে সাধারণত রাতেই রওনা দিই।
বিস্তারিত
আল কোরআন ও বিজ্ঞান
সব সংস্কৃতিতে সাহিত্য ও কবিতা মানুষের ভাব প্রকাশ ও সৃজনশীলতার
বিস্তারিত
যৌতুকপ্রথার ভয়াবহতা ও প্রতিকার
আজকাল পত্রপত্রিকা বা ফেইসবুক ঘাঁটলে যে বিষয়টি ব্যাপকভাবে চোখে পড়ে,
বিস্তারিত