বরিষনে গাঁয়ের মেয়ে

এ বাদলা বরিষনে

কোন ষোড়শী ধায় গাঁয়ের পানে
শ্যামলা মেয়ের পা দুখানি
আলতা ঢাকা মখমলি।
পায়ের ওপর শাড়ির পাড়
যেন নদীর বালুর চর।
ঘাসের ওপর আলতো ছুঁয়ে
চলছে কন্যা ধীর পায়ে।
কাজল টানা আঁখিতে তার
ভাসে গাঁয়ের সকল ঘর
শ্যামলা মুখে দেওয়া চেছটা
যেন ঝলমল মুক্তো ফোঁটা
এলা খোঁপায় বুনোফুল
কর্ণে চৈতি চাঁদের দুল
গোধূলিবেলার এ বরিষন
সাত সুরে বাজে কন্যার মন।
ঠোঁটে তাহার আলতো হাসি
চোখের তারায় স্বপ্ন ভাসি
পায়ের মল বাজে ঝুমঝুম
প্রকৃতি তাই মেঘ ঘুম ঘুম
বর্ষা বেলার এ বরিষন
গোধূলির রঙ হানে তার মন।


পরমানন্দ মূল : জন ডান
শয্যার পরে রাখলে বালিশ দেখায় যেমন মাটির ঢিবি তেমনি একটি
বিস্তারিত
কোনোদিন কথা হয়নি
  লাল কাঁকড়ার পদচিহ্ন খুঁজে খুঁজে হাঁটি পথ বালিচরে নগ্ন পা,
বিস্তারিত
গাঁয়ের বধূ
বড়ালের পাড়ে তরুণী বধূটি, তাদের সংসারে নুন আনতে পান্তা ফুরাতো।
বিস্তারিত
আমাদের গল্প অল্প
তোমাদের গল্প, আমাদের গল্প এক নয়, এক হতে পারে না 
বিস্তারিত
কবিতা ও ভাবনা
কবিতা একটি শিল্প, যা শুধু উপলব্ধি করার বিষয়। গভীর চিন্তাভাবনার
বিস্তারিত
হেমন্তিকা
সবুজ পাতার খামের ভেতর হলুদ গাঁদা চিঠি লেখে কোন পাথারের
বিস্তারিত