আমাদের জীবনের জীবনানন্দ

জীবনানন্দ
সম্পাদক : মাসউদ আহমাদ, জুলাই ২০১৯, 
প্রচ্ছদ : মোস্তাফিজ কারিগর, পৃষ্ঠা : ২৫৬, দাম : ১০০ টাকা 

জীবনানন্দ দাশ এবং তার রচনা-সম্ভার নিয়ে যত আলোচনা, ব্যাখ্যা, বিশ্লেষণ ও বিতর্ক হয়েছে তা আর কজন কবির বেলায় হয়েছে? তিনি এখনও কেন এতটা প্রাসঙ্গিক? জীবনানন্দের জীবন, তার মৃত্যু ও রচনা অনেকটাই রহস্যাবৃত্ত এবং দুর্বোধ্যÑএ কারণেই কি তার প্রতি আমাদের প্রবল আগ্রহ? এ প্রশ্নটিও অমীমাংসিত। তাকে কেন্দ্র করে দুই বাংলায় বের হচ্ছে ‘জীবনানন্দ’সহ নানা পত্রিকা। 
ঢাকা থেকে ‘জীবনানন্দ’ পত্রিকার প্রথম সংখ্যা বেরিয়েছিল গত বছরের অক্টোবর মাসে। কবির প্রতি ভালোবাসা থেকে এমন একটি সাহিত্যপত্রিকা নিয়মিত বের করা দুরূহ। তারপরও তো চলতি বছরের জুলাই মাসে দ্বিতীয় সংখ্যাটি বের হলো। অনেক প্রতিশ্রুতিশীল সাহিত্যের পত্রিকা বের হয়, অর্থাভাবে বন্ধও হয়ে যায়। এ বাস্তবতার মধ্যেও যে জীবনানন্দ-চর্চার এ অনবদ্য পত্রিকার দ্বিতীয় সংখ্যা আমাদের হাতে চলে এলো, তার জন্য সম্পাদক মাসউদ আহমাদকে ধন্যবাদ। এবারের প্রায় ২৫৬ পৃষ্ঠার সংখ্যায় ১৯টি কবিতা ও ৩টি সাক্ষাৎকার ছাড়াও রয়েছে ২৩টি রচনা। এত কিছু মাত্র একশ টাকায়! 
‘৪০ লক্ষ শব্দে গড়া মুদ্রাদোষ’ শিরোনামের বিশেষ রচনায় গৌতম মিত্র ‘আর সবার থেকে ক্রমশ আলাদা হয়ে যাওয়া’ জীবনানন্দকে আবিষ্কারে নেমেছেন। দিনলিপি ও রচনায় তন্ন তন্ন করে খুঁজেছেন জীবনানন্দকে। জীবনানন্দের ভাই অশোকানন্দের ছেলে অমিতানন্দের সাক্ষাৎকারকে কেন্দ্র করে দেবাশিস ঘড়াইয়ের লেখাটি চমকপ্রদ। জীবনানন্দের অজানা অনেক দিক উম্মোচিত হয়েছে লেখাটিতে। জীবনানন্দের শতাধিক চিঠির সন্ধান পাওয়া গেছে। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর কলেজে অধ্যাপনার সময় লেখা কবির ৬টি চিঠি নিয়ে আলোচনা করেছেন আমীন আল রশীদ। চিঠিগুলোতে কবির জীবনের নানা টানাপড়েনের কথা ফুটে উঠেছে। কবির সহদর অশোকানন্দের ছেলে অমিতানন্দ, কবির জীবনীকার প্রভাতকুমার দাস এবং কবির জীবনীভিত্তিক উপন্যাসের লেখক সুরঞ্জন প্রামাণিকের সাক্ষাৎকার এ সংখ্যায় স্থান পেয়েছে। কবির প্রতি মমতাবোধ থেকে একটি দীর্ঘ খোলা চিঠি লিখেছেন হাসান অরিন্দম। লেখাটির ভিত্তি বিভিন্নজনকে লেখা জীবনানন্দের চিঠিপত্র। জীবনানন্দের গল্প ও উপন্যাসের বিশ্লেষণ করেছেন মো. মেহেদী হাসান, সিরাজ সালেকীন ও হানযালা হান। অন্যদিকে জীবনানন্দকে নিয়ে লেখা জীবনী-উপন্যাস নিয়ে লিখেছেন সুমিতা চক্রবর্তী। জীবনানন্দ-কবিতার নানা দিক নিয়ে কথা বলেছেন মুহম্মদ মুহসিন, শামীম রেজা, সৈয়দ তৌফিক জুহরী ও মিরাজুল আলম। তাছাড়াও রয়েছে জীবনানন্দ দাশের গুণমুগ্ধ কবিদের ১৯টি কবিতা। কবিকে নিয়ে গল্প লিখেছেন শাহাদুজ্জামান, শাহাবুদ্দীন নাগরী, মাসউদ আহমাদ, সোহেল নওরোজ ও মনি হায়দার। 
জীবনানন্দের সাহিত্যের সঙ্গে পরিচয় এবং জীবনানন্দ-ঘোরে পড়ে যাওয়ার অভিজ্ঞতা বয়ান করেছেনে কবি-অধ্যাপক সুবোধ সরকার, কথাসাহিত্যিক হামীম কামরুল হক ও সাদাত হোসাইন। জীবনানন্দের জš§শতবার্ষিকী উপলক্ষে কবি জয় গোস্বামী লিখেছিলেন ‘শ্রীচরণকমলেষু’ শিরোনামের একগুচ্ছ কবিতা। এ সংখ্যার মাধ্যমে সেই কবিতাগুচ্ছের পেছনের গল্প নিজেই শুনিয়েছেন জয় গোস্বামী। আর কবি কিং সউদ ও গীতিকার জাহিদ আকবর বলেছেন জীবনানন্দকে নিয়ে তাদের লেখা গানের গল্প।   
‘জীবনানন্দ’ পত্রিকার দ্বিতীয় সংখ্যা সবে বাজারে এলো। সংখ্যাটি আরও আলোচনার দাবি রাখে। এ সংখ্যার আলোচনার রেশ কাটতে না কাটতেই তৃতীয় সংখ্যা নতুন আলোচনার সূত্রপাত করবেÑসেই আশায় রইলাম।

পাওয়া যাবে : বাতিঘর (ঢাকা ও চট্টগ্রাম); প্রথমা ও তক্ষশিলা (আজিজ সুপার মার্কেট, শাহবাগ, ঢাকা); বুক ভিলা (বরিশাল); সৈয়দ তৌফিক জুহরী (সহ-অধ্যাপক, বাংলা বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়); বই তরঙ্গ, রংপুর।
যোগাযোগ : ০১৭১৭৭২৫৮৬১


নৈসর্গ, পাহাড় ও নদীর কবি
কবি ও কথাসাহিত্যিক আফিফ জাহাঙ্গীর আলির জন্মদিন পহেলা জানুয়ারি। ১৯৭৮
বিস্তারিত
এলোমেলো
মনে করো কেউ তোমাকে ডাকেনি,  অথচ তুমি শুনতে পাচ্ছো অতল
বিস্তারিত
বুড়ি চাঁদ
সুগন্ধি রোমাল হাতে         তুমি মেপে গেলে ষাঁড়ের
বিস্তারিত
প্রেমিক হতে পারি না আজকাল
প্রেমিকার উষ্ণ চুম্বনে কৃষ্ণগৌড় ঠোঁটে  ভেসে ওঠে শোষিত মানুষের রক্তের দাগ! 
বিস্তারিত
এ মাটি
এ মাটি আমাকে দিয়েছে জীবনের যতো গান, বাতাসে রৌদ্রের ঝিলিমিলি প্রজাপতি
বিস্তারিত
নোনাজলের ঢেউ
যাবতীয় আয়োজন শেষে কত ভেঙেছি  এ নদীতে নোনাজলের মিছিলের ঢেউ  শব্দবাণে
বিস্তারিত