আরিফ মঈনুদ্দীন বৃষ্টিভেজা তুমি

 

নন্দনতত্ত্বে হাত রেখেছিÑ
উঠে আসছে নৈপুণ্য
নিপুণ শিল্পের ঘরে জমজমাট আড্ডা
কেউ আর বাকি নেই
সুন্দরের ষোলোকলায় ভর করে এসেছে সবাই
আমি যাকে শিল্প বলি 
আমি যাকে সুন্দর বলি
আমি যাকে কাব্য বলি

আমার চোখের তারায় জ্বলজ্বলে এক স্বপ্ন এসে
এঁকে দেয় মাধুরীÑমাদকতার শেষ বিন্দু
মৃদু বাতাসে অলংকারের মতন কাঁপছে তিরতির।
এই মাত্র যে আশীর্বাদ বৃষ্টি হয়ে ভিজিয়েছে তোমাকে
তার পায়ে নৈবদ্য ঢেলে
আমি তাকিয়েছি তোমার চোখেমুখে সারা অবয়বেÑ
মাথার ভেজা মেঘ থেকে টুপটাপ ঝরছে সুন্দর
সিক্ত গোলাপী অম্বর থেকে চুয়ে চুয়ে পড়ছে সুন্দর
সারা অঙ্গে গড়িয়ে পড়া সুন্দরে ঝলমল করছে
ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলÑআমার প্রাণের মানচিত্র

এত মোহময় এত উচ্ছ্বাস শুধু তোমার জন্য
গোলাপের সঙ্গে সারি বেঁধে ফুটেছে বাগানের সব ফুল
যেমন ফুটেছো তুমি
তোমাকে যে ফুটিয়েছে
বৃষ্টিভেজা তুমি কোন শিল্পীর তুলিতে এই মহান শিল্পকর্ম
আমার ভেতরের চোখ অপলক তার দিকে এখন
সিক্ত অম্বরে চিরসুন্দরের সে কী আয়োজন !


নৈসর্গ, পাহাড় ও নদীর কবি
কবি ও কথাসাহিত্যিক আফিফ জাহাঙ্গীর আলির জন্মদিন পহেলা জানুয়ারি। ১৯৭৮
বিস্তারিত
এলোমেলো
মনে করো কেউ তোমাকে ডাকেনি,  অথচ তুমি শুনতে পাচ্ছো অতল
বিস্তারিত
বুড়ি চাঁদ
সুগন্ধি রোমাল হাতে         তুমি মেপে গেলে ষাঁড়ের
বিস্তারিত
প্রেমিক হতে পারি না আজকাল
প্রেমিকার উষ্ণ চুম্বনে কৃষ্ণগৌড় ঠোঁটে  ভেসে ওঠে শোষিত মানুষের রক্তের দাগ! 
বিস্তারিত
এ মাটি
এ মাটি আমাকে দিয়েছে জীবনের যতো গান, বাতাসে রৌদ্রের ঝিলিমিলি প্রজাপতি
বিস্তারিত
নোনাজলের ঢেউ
যাবতীয় আয়োজন শেষে কত ভেঙেছি  এ নদীতে নোনাজলের মিছিলের ঢেউ  শব্দবাণে
বিস্তারিত