একদিন শিহরণ সংগীতে

তরুণীরা ভিজছে,
তাদের মানুষ বলে মনেই হচ্ছে না।
প্রেমিকের বুকের মধ্যে তারা ভেজা কাশফুল,
হুডফেলা রিকশায় যেন বা পায়রা,
বাড়ির ছাদ, কলেজের গেটে তাদের মনে হয় 
পরিযায়ী পাখির দলÑ শরতের বৃষ্টিতে।

এ শহর সবকিছু নষ্ট করে দিচ্ছে,
বৃষ্টির নামে হয়ে যাচ্ছে জলাবদ্ধতা
প্রেমিককে করে দিচ্ছে লম্পট,
এমনকি জীবনের কোনো নাম বা দাম দিচ্ছে না;
এখানে কেন যে শরৎ আসেÑ অর্থহীন এ শহরে!

প্রেমিকদের অভিশাপে অন্ধ
এ শহর, একদিন ঠিক দৃষ্টি ফিরে পাবে।
হারানো সুন্দর হতবাক করে দেবে তারে,
জানবে, চোখের কাজÑ বিস্মিত হয়ে দেখা; কান্না করা!

বৃষ্টিতে কাশফুল আর তরুণীদের ভিজে যাওয়া,
ফোন আর ক?্যামেরা ফেলে তরুণদের পথে নামা,
গান আর সেøাগানে দুলে ওঠার দিন আসবেইÑ স্পন্দন হারানো শহরে।

সেদিন লেখা হবে একটা মনভোলানো গান,
তানপুরা বুকে তুলে নেবে অসুরের দলÑ অনুশোচনায়।

একদিন ঠিক ঠিক তারা নেচে উঠবেÑ শিহরণ সংগীতে।


নৈসর্গ, পাহাড় ও নদীর কবি
কবি ও কথাসাহিত্যিক আফিফ জাহাঙ্গীর আলির জন্মদিন পহেলা জানুয়ারি। ১৯৭৮
বিস্তারিত
এলোমেলো
মনে করো কেউ তোমাকে ডাকেনি,  অথচ তুমি শুনতে পাচ্ছো অতল
বিস্তারিত
বুড়ি চাঁদ
সুগন্ধি রোমাল হাতে         তুমি মেপে গেলে ষাঁড়ের
বিস্তারিত
প্রেমিক হতে পারি না আজকাল
প্রেমিকার উষ্ণ চুম্বনে কৃষ্ণগৌড় ঠোঁটে  ভেসে ওঠে শোষিত মানুষের রক্তের দাগ! 
বিস্তারিত
এ মাটি
এ মাটি আমাকে দিয়েছে জীবনের যতো গান, বাতাসে রৌদ্রের ঝিলিমিলি প্রজাপতি
বিস্তারিত
নোনাজলের ঢেউ
যাবতীয় আয়োজন শেষে কত ভেঙেছি  এ নদীতে নোনাজলের মিছিলের ঢেউ  শব্দবাণে
বিস্তারিত