আবরার হত্যায় জড়িত ফুয়াদের পরিবারের স্বপ্ন ভঙ্গ

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ রাব্বীকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছেন মুহতাসিম ফুয়াদ। এ ঘটনায় দায়ের করা হত্যা মামলায় দুই নম্বর আসামি করা হয়েছে তাকে।

এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডে ছেলের সম্পৃক্ততার অভিযোগে মুষড়ে পড়েছেন ফুয়াদের পরিবারের সদস্যরা। চুরমার হয়ে গেছে তার বাবা-মায়ের স্বপ্ন। একটি মেধাবী ছেলের এরকম বীভৎস হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার খবরে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ফুয়াদের গ্রামের বাড়ি ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার নাঙ্গলমোড়া এলাকার দৌলতপুর গ্রামের বাসিন্দারা। গত দুদিনে ফেনীতে আবরার হত্যার প্রতিবাদে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সাংস্কৃতি সংগঠন হত্যার বিচার চেয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে। 

মুহতাসিম ফুয়াদ বুয়েটের ১৪তম ব্যাচের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী। বর্তমান  বুয়েট ছাত্রলীগের সহসভাপতি পদে ছিলেন তিনি। হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অপরাধে ইতোমধ্যে তাকে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। তার গ্রামে বাড়ি ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া উপজেলার ঘোপাল ইউনিয়নের নাঙ্গলমোড়া গ্রামে।

বৃহস্পতিবার সকালে মুহতাসিম ফুয়াদের গ্রামের বাড়িতে কথা হয় স্থানীয় ইউপি সদস্য সরোয়ার মাহমুদ শামীমের। তিনি জানান, ‘মুহতাসিম ফুয়াদের বাবা আবু তাহের সেনাবাহিনীতে মেডিক্যাল কোরে চাকরি করতেন। অবসরে যাওয়ার পরও দুই সন্তানের লেখাপড়ার ব্যয় বহন করতে তিনি এখন সেনাকল্যাণ সংস্থার ঢাকা অফিসে চাকরি করছেন। পরিবার নিয়ে ঢাকায় থাকেন। বাবার চাকরির সুবাদে চট্টগ্রাম সেনানিবাস স্কুল ও চট্টগ্রাম কলেজ থেকে যথাক্রমে এসএসসি ও এইচএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ অর্জন করেন মুহতাসিম ফুয়াদ।

আবরার হত্যায় ফুয়াদ গ্রেফতার হওয়ার পর থেকেই ক্ষোভ, কষ্ট ও হতাশায় ভুগছেন তার পরিবারের সদস্যরা। তার বাবা-মায়ের স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে।

ঘোপাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এফএম আজিজুল হক মানিক জানান, ‘আমি ভাবতেও পারি না এমন মেধাবী একটা ছেলে আরেকজন মেধাবীকে পিটিয়ে হত্যার মতো লোমহর্ষক ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা এলাকাবাসী এটি কোনোভাবে মানতেই পারছি না। আমার এলাকার লোকজন তাকে ভালো ছেলে হিসেবেই জানে। তার বাবা আবু তাহের হোসেন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্য। ফুয়াদরা দুই ভাইবোন। সে বড়। সহজ-সরল প্রকৃতির আবু তাহের তার ছেলে ফুয়াদকে নিয়ে বড় স্বপ্ন দেখতেন। কিন্তু সেই স্বপ্ন এখন ভেঙে গেছে ও নিঃস্ব হয়ে পড়েছে পরিবারের সদস্যরা।

আত্মীয়-স্বজন থেকে শুরু করে সবাই বলেন, ফুয়াদ অত্যন্ত মেধাবী ও ভালো ছেলে। তার এই লোমহর্ষক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আত্মীয়-স্বজনসহ এলাকাবাসী হতবাক হয়ে পড়েন। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফুয়াদের বাবা আবু তাহের মোবাইল ফোনে বলেন, ‘তাকে নিয়ে আমার অনেক আশা-ভরসা ছিল। সব ধুলোয় মিশে গেছে।’

হতাশায় ভেঙে পড়া এই বাবা আরও বলেন, ‘ছেলের তো কোনো অভাব ছিল না। আমি তাকে কোনো অভাব বুঝতে দেইনি। কিন্তু কেন সে রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়ল? আবার কেনইবা আরেকজনকে হত্যার অভিযোগ আসবে তার বিরুদ্ধে? ঘটনার পর সে আমাকে ফোন দিয়েছিল। ফোনে সে আমাকে বলেছিল দুটি টিউশন শেষে ক্যাম্পাসে ফিরলে পুলিশ তাকে সহায়তার জন্য হল থেকে ডেকে নেয়। তাই ঘটনাটি আমি সঠিকভাবে তদন্তের দাবি করছি।’

উল্লেখ্য, রবিবার (৬ অক্টোবর) রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বুয়েটের ১৭তম ব্যাচের ইলেকট্রিক এ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র আবরার ফাহাদ রাব্বীকে। রাত ৩টার দিকে শেরেবাংলা হলের দ্বিতীয় তলা থেকে আবরারের মরদেহ উদ্ধার করে কর্তৃপক্ষ।

পুলিশ জানিয়েছে, তাকে পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বুয়েট ছাত্রলীগের ১৫ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আবরারের বাবা বরকত উল্যাহ বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় ১৯ জনকে আসামি করা হয়েছে।


উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় জোছনা উৎসব
বরগুনার তালতলীতে উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় জোছনা উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে বৃহস্পতিবার
বিস্তারিত
পদ্মা সেতু নিয়ে বিএনপি অনেক
মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, পদ্মা সেতু
বিস্তারিত
ব্রুনাইতে দালাল নিধনে সক্রিয় ভূমিকায়
ব্রুনাইতে দালাল চক্রের দৌরাত্ম্য বেড়েই চলেছে। সাধারণ মানুষ দালালের খপ্পরে
বিস্তারিত
বাউফলে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি
পটুয়াখালীর বাউফলে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার করে টিনশেড ঘর
বিস্তারিত
মানিকগঞ্জে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল
প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেল মানিকগঞ্জে আদুরী
বিস্তারিত
সিরাজগঞ্জে ড্রামট্রাকের চাপায় শিশু ছাত্র
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার পিয়ারাপুর গ্রামে ড্রামট্রাকের চাপায় জুলহক আলী (৯)
বিস্তারিত