আবরার হত্যাকে পুঁজি করে কেউ যেন স্বার্থ হাসিল করতে না পারে: তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডকে পুঁজি করে কেউ যেন তাদের স্বার্থ হাসিল করতে না পারে সে ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডকে পুঁজি করে কেউ যেন তাদের স্বার্থ হাসিল করতে না পারে। এ ঘটনা নিন্দনীয়, নৃশংস এবং ন্যক্কারজনক। প্রশ্ন হলো, দাবি মেনে নেয়ার পরেও কেন তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা।

তথ্যমন্ত্রী আজ রোববার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে আরো বলেন, বুয়েটে ছাত্র আন্দোলনকে পুঁজি করে বিএনপি এবং তাদের মিত্ররা দেশকে অশান্ত করতে চায় ছাত্রদল এবং শিবির আড়ালে বুয়েটে ছাত্র আন্দোলনের সাথে যুক্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, বিএনপি এ আন্দোলনে তাদের এজেন্ট ঢুকিয়ে দিয়েছে। রগকাটা বাহিনী এই শিবির তাকে দুবার হত্যা করার চক্রান্ত করেছিল উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ছাত্রদের প্রতিবাদের সঙ্গে আমি একমত। তবে আমার প্রশ্ন, ছাত্রদের দাবি মেনে নেয়ার পরে কেন আন্দোলন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা প্রথম থেকেই এ ঘটনার প্রতিবাদ করেছি। কেউ দাবি তোলার আগেই সরকার ব্যবস্থা নিয়েছে। মামলা হওয়ার আগেই পুলিশ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে। এ পর্যন্ত ১৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দেশের ইতিহাসে এত দ্রুত কোনো ঘটনায় ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বলেন, ‘বুয়েটে ছাত্রদলের দুই গ্রুপের মারামারির কারণে মেধাবী ছাত্রী সনি হত্যাকাণ্ডে পুলিশ হত্যাকারীদের পালিয়ে যেতে সহায়তা করেছিল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মহসীন হলে এক ছাত্রকে হত্যা করে পানির ট্যাংকিতে রেখে দেয়া হয়েছিল। সেই পানি ছাত্ররা খেয়েছিল। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র চুন্নুকে হত্যা করা হয়েছিল। এসব ঘটনায় বিএনপি কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।’

বর্তমান পরিস্থিতি উত্তরণে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের সিদ্ধান্ত সহায়ক হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, তবে এটি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ব্যাপার। দেশে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের দাবি অমূলক। এদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে ছাত্ররা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপির রাজনীতির মূল প্রতিপাদ্য ভারত বিরোধিতা। তাদের এই ট্যাবলেট বেশিদিন কাজ করবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘দেশের স্বার্থ রক্ষা করেই ভারতের সাথে চুক্তি হয়েছে। ছিটমহল চুক্তি এবং সমুদ্রসীমা বিজয় হয়েছে। ভারতের সাথে আমাদের সুসম্পর্ক রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘ভারত আমাদের চট্টগ্রাম এবং মোংলা বন্দর ব্যবহার করলে আমরা আর্থিকভাবে লাভবান হবো। তাছাড়া ভারতের সাথে আমাদের অন্যান্য যেসব চুক্তি হয়েছে সেগুলো দেশের স্বার্থ রক্ষা করেই হয়েছে। বিএনপি এ বিষয়টিকে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। না বুঝে কথা বলছে। এটি তাদের পুরনো অভ্যাস।’

হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক যে সমস্য সেটি পুরনো, দেশের সর্বোচ্চ চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে যে অভিযোগ করছেন তা অমূলক বলে উল্লেখ করেন তিনি।


পিলখানা হত্যাকাণ্ডে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা
পিলখানা ট্র্যাজেডির ১১ বছর আজ মঙ্গলবার। ২০০৯ সালের ২৫ ও
বিস্তারিত
হজ প্যাকেজ-এর খসড়ার মন্ত্রিসভার অনুমোদন
‘হজ প্যাকেজ ১৪৪১ হিজরি/২০২০ খ্রিস্টাব্দ’ এর খসড়ার অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।
বিস্তারিত
বিদ্যুৎ-জ্বালানি খাতে আরও জাপানি বিনিয়োগ
দেশে বিদ্যুতের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে আরও
বিস্তারিত
১৫ দিনের রিমান্ডে পাপিয়া দম্পতি
তিন মামলায় বহিষ্কৃত যুব মহিলা লীগ নেত্রী শামীমা নুর পাপিয়া
বিস্তারিত
সীমান্তে চোরাচালান রোধে সজাগ থাকুন:
সব ধরনের লোভ-লালসার ঊর্ধ্বে উঠে সীমান্তে চোরাচালান রোধে সর্বদা সজাগ
বিস্তারিত
সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেবে
বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) প্রস্তাবনা অনুযায়ী সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় অংশ
বিস্তারিত