নিজের নিরাপত্তায় হেলমেট ব্যবহার করেন খুব কম মানুষ

বাংলাদেশে ট্রাফিক আইন প্রয়োগে সবথেকে বড় সমস্যা হলো অতি গরীব আর অতি ধনী শ্রেনী বা অতি ক্ষমতাবান ব্যক্তি । মধ্যবিত্তের উপর যত সহজে আইন প্রয়োগ করা যায় তত সহজে এই দুই শ্রেনীর উপর আইন প্রয়োগ করা যায় না। অতি ক্ষমতাবান/ধনীদের আছে ক্ষমতা আর অতি গরীবদের আছে সহানুভূতি পাওয়ার আকুলতা।

গত শনিবার থেকে প্রতিদিন একশো মোটরসাইকেল চালকের উপর জরিপ চালিয়ে জানতে পেরেছি শতকরা ৬৫ ভাগ হেলমেট ব্যবহার করেন। ১৭ ভাগ বাইকার হেলমেট সাথে রাখেন কিন্তু মাথায় দেন না। ১৮ ভাগ বাইকার হেলমেট ব্যবহার করেন না কিংবা সাথেও হেলমেট রাখেন না। লুকিং গ্লাস নাই শতকরা ৩২ ভাগের উপরে।

৬৫ ভাগ লোকের মধ্যে যারা হেলমেট ব্যবহার করেন তাদের বেশিরভাগ তরুণ। বিভিন্ন কোম্পানীতে চাকুরিজীবীরা সব থেকে বেশি হেলমেট ব্যবহার করেন।

যেসকল বাইকার হেলমেট সাথে রাখেন কিন্তু ব্যবহার করেন না তাদের বেশিরভাগ ব্যবসায়ী, ছাত্র, বয়স্ক লোক। কেবল মাত্র মামলা না খাওয়া ও পাম্পে জালানির জন্যই তারা হেলমেট সাথে রাখেন। কেউ সাইডে বেধে রাখেন, কেউ পিছনের ক্যারিয়ারে দড়ি দিয়ে বেধে রাখেন কেউ হাত ঢুকিয়ে রাখেন আবার কেউ লুকিং গ্লাসে ঝুলিয়ে রাখেন।

১৮ শতাংশ বাইকারা সাথে হেলমেট রাখেন না। তাদের বেশিরভাগ বিভিন্ন পেশার সদস্য। সরকারি চাকরিজীবী (পুলিশ, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, সিটি করপোরেশন ইত্যাদি), সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতাদের হেলমেট ব্যবহার করার হার সব থেকে কম।

বেশিরভাগ মানুষ হেলমেট ব্যবহার করেন মামলা খাওয়ার ভয়ে। নিজের নিরাপত্তার কথা ভেবে হেলমেট ব্যবহার করেন খুব কম সংখ্যক মানুষ। চালক এবং আরোহীর দুজনেই হেলমেট ব্যবহার করেন এমন সংখ্যা প্রায় শুন্য।

যেদিন মানুষ কেবল নিজের নিরাপত্তার জন্যই হেলমেট ব্যবহার করবেন সেদিন শতভাগ হেলমেট ব্যবহারকারী দেখতে পারবো।

লেখক- ফাহাদ মোহাম্মদ, ট্রাফিক সার্জেন্ট, বাংলাদেশ পুলিশ।


একজন সৎ মানুষের পক্ষেই এমন
গত কালকের ঘটনা, এক সার্জেন্ট একটি প্রাইভেট কার সিগনাল দিয়ে
বিস্তারিত
লেখাটি বেকার শিক্ষিত সবার জন্য!
হাসিব মিয়া প্রতিদিনই সাভার থেকে ৭০ কেজি দুধ এনে ধানমন্ডির
বিস্তারিত
শুভ জন্মদিন সাংবাদিক নেতা আবু
ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) এর সভাপতি ও দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের
বিস্তারিত
একনজরে স্যার ফজলে হাসান আবেদ
না ফেরার দেশে চলে গেলেন বিশ্বের সর্ববৃহৎ বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা
বিস্তারিত
এ লজ্জা রাখি কোথায়?
আমরা জাতি হিসেবে সত্যিই লজ্জিত, আতঙ্কিত, বিস্মিত! একজন তরুণ হিসেবে
বিস্তারিত
একটা বাবা চাই
পাঁচটি আঙ্গুল আঁকড়ে ধরে আমিও হাঁটতে চাই। রোজ বিকেলে, সাঁঝ
বিস্তারিত