শ্রীমঙ্গলে তুর্কি নকশায় নির্মিত দৃষ্টিনন্দন মসজিদ

 

চায়ের রাজধানী শ্রীমঙ্গল অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অধিকারী। সবুজ বনানী, পাহাড় আর চা বাগানের অপরূপ দৃশ্য মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলকে দেশি-বিদেশি পর্যটকের কাছে অন্যতম আকর্ষণীয় স্থান হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছে। শ্রীঙ্গলের দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে আলাদা মাত্রা যোগ করেছে পাহাড়ের চূড়ায় নির্মিত নয়নাভিরাম মসজিদ জান্নাতুল ফেরদৌস। জান্নাতুল ফেরদৌস নামে পরিচিত মসজিদটির নাম ‘মসজিদুল আউলিয়া খাজা শাহ মোজাম্মেল হক (রহ.)।’ পাহাড়ের ওপরে তুর্কি নকশায় নির্মিত দৃষ্টিনন্দন এ মসজিদটি দেখতে এবং নামাজ আদায় করতে প্রতিদিনই পর্যটকরা আসেন। শ্রীমঙ্গল শহর থেকে ৬ কিলোমিটার দূরে বালিশিরা পাহাড়ের মহাজিরাবাদ এলাকায় এ মসজিদটির অবস্থান। সমতল থেকে ৭০-৮০ ফুট ওপরে পাহাড়ের চূড়ায় স্থাপিত মসজিদটিতে যেতে হয় ১৩৯টি সিঁড়ি পেরিয়ে। ১৯ বিঘা জমির ওপর নির্মিত মসজিদের চারদিকেই রয়েছে সবুজ পাহাড়। আর এসব পাহাড়ে রয়েছে চোখ জুড়ানো সবুজের আবরণ। পাহাড়ের ভাঁজে ভাঁজে রয়েছে সবুজ চা বাগানও। আরও রয়েছে লেবু ও আনারসের বাগান। মসজিদের সৌন্দর্য বর্ধনে এর চারপাশে লাগানো হয়েছে নানা রকমের ফুলগাছ। এর গঠনশৈলীও চমৎকার। তুর্কি স্থাপত্যের আদলে নির্মিত মসজিদটির ভেতরে রয়েছে দৃষ্টিনন্দন এক ঝাড়বাতি, যা আনা হয় সুদূর চীন থেকে। মসজিদে প্রবেশের সিঁড়িগুলোর দুই পাশে সাদা আর মধ্যে দেওয়া হয়েছে লাল রং। সবুজ প্রকৃতির সঙ্গে মিলিয়ে সাদা আর লাল রঙের মিশ্রণ রয়েছে। দৃষ্টিনন্দন এ মসজিদটির ভেতরে একসঙ্গে ৮০০ মুসল্লির নামাজ পড়ার ব্যবস্থা রয়েছে। বর্তমানে এ মসজিদের পেশ ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মাওলানা মো. মুসলেহ উদ্দিন। মসজিদের পাশেই রাখা হয়েছে কবরস্থানের জায়গা।  মসজিদটির প্রাঙ্গণে আছে দুটি গেস্ট হাউস এবং একটি চিকিৎসাকেন্দ্র। এই চিকিৎসাকেন্দ্রে সপ্তাহের ছয় দিন গরিব মানুষকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয়। এছাড়া এখানে আছে একটা হেলিপ্যাডও। গেস্ট হাউসটি মূলত ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যানের পরিবারের সদস্যদের বিশ্রামের জন্য ব্যবহৃত হয়। দর্শনীয় এই মসজিদটি নির্মাণ করেন খাজা টিপু সুলতান। টিপু সুলতান ছিলেন খাজা শাহ মোজাম্মেল হক (রহ.) এর সাহেবজাদা। এই খাজা শাহ মোজাম্মেল হক (রহ.) ছিলেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত আধ্যাত্মিক সুফি সাধক খাজা ইউনুছ আলী এনায়েতপুরীর (রহ.) উত্তরসূরি। মসজিদটি পরিচালিত হচ্ছে খাজা মোজাম্মেল হক (রহ.) ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে। ২০১৫ সালের ৬ মার্চ মসজিদটি উদ্বোধন করা হয়।


গিবত ও পরনিন্দার ভয়াবহতা
মোমিনের জন্য তার কাছে কেউ গিবত করুক এমন অনুমতি দেওয়াও
বিস্তারিত
একদিন নবীজির বাড়িতে
নবীজির এক স্ত্রীর কাহিনী যখন ভাবছিলাম তখন পেয়ে গেলাম নবীজির
বিস্তারিত
নবীজীবনে জালেমদের জন্য শিক্ষা
উসাইদ বিন হুজাইর (রা.)। রাসুলের সাহাবি। ছিলেন রসিক ও লাবণ্যময়।
বিস্তারিত
আলোর পরশ
কোরআনের বাণী মোহাম্মদ তোমাদের কোনো ব্যক্তির পিতা নন; বরং তিনি আল্লাহর
বিস্তারিত
পাথেয়
ইমাম হাতিম আল আসাম রহিমাহুল্লাহ বলেন পাঁচটি বিষয় ব্যতীত কোনো
বিস্তারিত
বাড়ছে পরিবেশ বিপর্যয় : সচেতনতা
পরিবেশ রক্ষার জন্য সর্বপ্রথম জোরালো ও একাডেমিক নির্দেশনা ইসলামই দিয়েছে।
বিস্তারিত