৯ বছর পর দেশের মাটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জয় অস্ট্রেলিয়ার

নয় বছর পর দেশের মাটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজ জয়ের স্বাদ পেলো অস্ট্রেলিয়া। আজ শুক্রবার সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-২০ ম্যাচে পাকিস্তানকে ১০ উইকেটে হারায় অসিরা। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতে নেয় অস্ট্রেলিয়া। দেশের মাটিতে সর্বশেষ ২০১০ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে এক ম্যাচের সিরিজ জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া।

পার্থে টস জিতে প্রথমে বোলিং বেছে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ব্যাট হাতে নেমে তৃতীয় ওভারেই প্রথম উইকেট হারায় পাকিস্তান। প্রথম দুই ম্যাচে হাফ-সেঞ্চুরি করা নতুন অধিনায়ক বাবর আজম এবার আর নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। ১টি চারে ৬ রান করে অস্ট্রেলিয়ার পেসার মিচেল স্টার্কের বলে লেগ বিফোর হন বাবর।

বাবর ফিরলে তিন নম্বরে ব্যাট হাতে নামেন উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজওয়ান। পরের ডেলিভারিতেই রিজওয়ানকে বোল্ড করে হ্যাটট্রিকের সুযোগ তৈরি কেরন স্টার্ক। কিন্তু হ্যাটট্রিকের স্বাদ নিতে পারেননি। রিজওয়ান শূন্য হাতে ফিরলে দলীয় ১৫ রানে ২ উইকেট হারায় পাকিস্তান।

দ্রুত ২ উইকেট হারানোর চাপ সামলে ওঠার আগেই পাকিস্তান শিবিরে তৃতীয় আঘাত হানেন অস্ট্রেলিয়ার আরেক পেসার সিন অ্যাবট। দু’অংকে পা দেয়া আরেক ওপেনার ইমাম উল হককে বিদায় দেন অ্যাবট। ১৫ বলে ১৪ রান করেন ইমাম।

২২ রানে ইমামের বিদায়ে পাকিস্তানকে চাপমুক্ত করার চেষ্টা করেন হারিস সোহেল ও ইফতেখার আহমেদ। অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের ওপর মারমুখী হবার চেষ্টা করেছিলেন ইফতেখার। অন্যপ্রান্তে সতর্ক ছিলেন সোহেল। এই জুটিতে দলের স্কোর অর্ধশতকে পৌঁছায়। তবে ১০ম ওভারের প্রথম বলে সোহেল-ইফতেখার জুটিতে ভাঙন ধরান অস্ট্রেলিয়ার স্পিনার অ্যাস্টন আগার। ৮ রান করে আউট হন সোহেল।

এরপর অস্ট্রেলিয়ার পেসার কেন রিচার্ডসনের পেস তোপে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা যাওয়া-আসার মিছিল করেন। তাতে ৯২ রানে অষ্টম উইকেট হারায় পাকিস্তান। পরের দিকে কোন ব্যাটসম্যানই দু’অংকের কোটা স্পর্শ করতে পারেননি। অর্থাৎ পাকিস্তানের পুরো ইনিংসে ইমাম ও ইফতেখার ছাড়া আর কোন ব্যাটসম্যানই দু’অংকের কোটা স্পর্শ করতে পারেননি।

ইফতেখারের ৬টি চারে ৩৭ বলে ৪৫ রানে শেষ পর্যন্ত শতরানের কোটা পেরিয়ে ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১০৬ রানের মামুলি সংগ্রহ পায় পাকিস্তান। অস্ট্রেলিয়ার রিচার্ডসন ১৮ রানে ৩টি, স্টার্ক-অ্যাবট ২টি করে উইকেট নেন।

জবাবে ১০৭ রানের সহজ লক্ষ্যে নিজেদের ইনিংস শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। আজ ব্যাট হাতে মারমুখী মেজাজ দেখান অসি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। তার ব্যাটিং-এ পাওয়ার প্লেতে ৫৬ রান তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। এ সময় ২০ বলে ৩১ রান করেন ফিঞ্চ। তার সঙ্গী ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে এসেছিলো ১৬ বলে ২২ রান।

টি-২০ লড়াই শেষে আগামী ২১ নভেম্বর থেকে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান। প্রথম টেস্ট ব্রিসেবেনে ও দ্বিতীয় ম্যাচ অ্যাডিলেডে অনুষ্ঠিত হবে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

পাকিস্তান : ১০৬/৮, ২০ ওভার (ইফতেখার ৪৫, ইমাম ১৪, রিচার্ডসন ৩/১৮)।

অস্ট্রেলিয়া : ১০৯/০, ১১.৫ ওভার (ফিঞ্চ ৫২*, ওয়ার্নার ৪৮)।

ফল : অস্ট্রেলিয়া ১০ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচ সেরা : কেন রিচার্ডসন (অস্ট্রেলিয়া)।

সিরিজ সেরা : স্টিভেন স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া)।

সিরিজ : তিন ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতলো অস্ট্রেলিয়া।


ইন্দোরে গতিময় পিচ?
ঝকঝকে আকাশ। তাপমাত্রা ২৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বিকালের দিকে শীতল বাতাস
বিস্তারিত
হতাশার মধ্যেও আশার আলো নাঈম
সদ্য শেষ হওয়া ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজে সর্বোচ্চ
বিস্তারিত
ভুটানের কাছে হেরে বিদায় বাংলাদেশের
ম্যাচের ৬৫ মিনিট পর্যন্ত এগিয়ে থেকেও শেষ অবদি ২-১ গোলে
বিস্তারিত
যে ১০ কারণে ভারতের কাছে
দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ভারতের কাছে ৮ উইকেটের বড় পরাজয়ের পর টাইগার
বিস্তারিত
সমতায় ফিরলো বাংলাদেশ-ভারত
ইতিহাস গড়ার হাতছানি নিয়ে ভারতের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ। টাইগারদের
বিস্তারিত
ভারতকে ১৫৪ রানের টার্গেট দিল
শুরুটা যেভাবে করেছিল বাংলাদেশ, শেষটা মোটেও সেরকম হলো না। লিটন-নাঈম-সৌম্যদের
বিস্তারিত