ঢাকায় হয়ে গেল মুক্ত কমিউনিটির আন্তর্জাতিক সম্মেলন

সম্মেলনে অতিথি ও অংশগ্রহণকারীরা

ঢাকার কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশে ১ ও ২ নভেম্বর হয়ে গেল ‘স্টেট অব দ্য ম্যাপ এশিয়া ২০১৯’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলন। মূলত এ সম্মেলন এশিয়া অঞ্চলে বিনামূল্যে সবার জন্য ডিজিটাল ম্যাপের সুবিধা দিতে ওপেন স্ট্রিট ম্যাপ, ওপেন সোর্স, ওপেন ডাটা ও জিআইএস প্রযুক্তিবিষয়ক বার্ষিক এ আয়োজন। ২০১৮ সালে ভারতের বেঙ্গালুরুতে অনুষ্ঠিত স্টেট অব দ্য ম্যাপ এশিয়ায় বেশ ক’টি দেশ এ বছরের আয়োজনের আগ্রহ প্রকাশ করলেও শেষ পর্যন্ত দায়িত্ব পায় বাংলাদেশ।
বাংলাদেশ ওপেন ইনোভেশন ল্যাবের সার্বিক সহযোগিতায় ওপেন স্ট্রিট ম্যাপ বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন দুই দিনের এ সম্মেলনের আয়োজন করে। এতে জাপান, ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া, ভারত, নেপাল, শ্রীলঙ্কা থেকে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক অংশগ্রহণকারী উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে দেশীয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান মনিকো টেকনোলজি, ইউটেক সিস্টেমস, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান অধিদপ্তর, ঢাকা ওয়াসা, এটুআই, ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, গ্রুপ ম্যাপার্স, কিল্লার পাশাপাশি অ্যাপল, ফেইসবুক, ম্যাপবক্স, গ্লোবাল লজিক, জাপান ফ্লাইয়িং ল্যাবস, কাঠমান্ডু লিভিং ল্যাবস ছাড়াও ওয়ার্ল্ড ব্যাংক, রেডক্রস, ইউএনডিপির মতো আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন এবং প্রযুক্তি খাতের বিভিন্ন দিক ও সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন। আন্তর্জাতিক এ সম্মেলনে তরুণদের জিআইএস ও মুক্ত সোর্স প্রযুক্তির সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেছেন বিভিন্ন প্রযুক্তি সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠান থেকে আগত প্রতিনিধিরা।
ফেইসবুক থেকে আগত ডেভিড ইয়াং মেশিন লার্নিং ব্যবহার করে কীভাবে ম্যাপকে উন্নত করা যায় এ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। মজিলা করপোরেশন ইন্ডিয়া থেকে আগত সুভাস দুল্লা মজিলা লোকেশন সিস্টেম সম্পর্কে ধারণা প্রদান করেন ও কীভাবে লোকেশন ডাটা অ্যাপের মাধ্যমে সংগ্রহ করা যায় সে সম্পর্কে আলোচনা করেন। 
সম্মেলনের অন্যতম বক্তা ছিলেন নিউজিল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব ক্যান্টারবেরি থেকে আগত ডেভিড গার্সিয়া। তিনি ছএওঝ কীভাবে ব্যবহার করতে হয় তার ওপর একটি ওয়ার্কশপ পরিচালনা করেন। ভারত থেকে আগত মজিলা ফাউন্ডেশনের হর্ষবর্ধন লাহিড়ী বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে আলোচনা করেন। 
অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে ম্যাপিং কাজের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা ম্যাপিংয়ের ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা, ব্যবহারের ক্ষেত্র ও কীভাবে মানুষের সাহায্যে ম্যাপিং ব্যবহৃত হতে পারে (দুর্যোগ, সামাজিক অবস্থা, পরিবেশ, স্বাস্থ্য, পরিকল্পনা ইত্যাদি) এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।
দ্বিতীয় দিনের শেষে মুক্ত সোর্স প্রকল্প ও পারস্পরিক সহযোগিতা এবং সমন্বয় নিয়ে একটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসানের সভাপতিত্বে এ আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন কাঠমান্ডু লিভিং ল্যাবসের ড. নামা রাজ, বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সচিব ও বর্তমানে ওয়াটার এইড বাংলাদেশের পরামর্শদাতা মো. শফিকুল ইসলাম, জাপানের আওইয়ামা গাকুইন বিশ্ববিদ্যালয়ের তাইচি ফুরুহাশি, ক্রিয়েটিভ কমন্সের বাংলাদেশ লিড নাসির খান সৈকত প্রমুখ। 
প্যানেলের সমাপ্তি হয় পরবর্তী স্টেট অব দ্য ম্যাপ এশিয়া সম্পর্কে ঘোষণার মাধ্যমে। সিদ্ধান্ত হয় ২০২০ সালে ম্যাপপ্রেমীদের দেখা হচ্ছে শ্রীলঙ্কায়।


টেকনোলজিস ট্রান্সফরমিং ইকনোমিকস শীর্ষক সেমিনার
গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্য কোম্পানিগুলো যাতে যথেচ্চার ব্যবহার করতে না পারে
বিস্তারিত
প্রিজমভ্যাটের কর্মশালা
ডিভাইন আইটি লিমিটেড, এনবিআর অনুমোদিত ভ্যাট ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার সরবরাহকারী প্রিজমভ্যাটের
বিস্তারিত
ডোমেইনের মার্কেটপ্লেস ডুডিয়াস
বাংলাদেশের প্রথম ডোমেইন মার্কেটপ্লেস হিসেবে যাত্রা শুরু করেছে ডুডিয়াস। সম্প্রতি
বিস্তারিত
হুয়াওয়ে এনেছে স্মার্টফোন ওয়াই নাইন
বাংলাদেশের বাজারে হাই-পারফরম্যান্স ফিচারের নতুন স্মার্টফোন ওয়াই নাইন এস উন্মোচন
বিস্তারিত
মাই আউটসোর্সিং পরিদর্শন করলেন আইসিটি
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ২৪
বিস্তারিত
মাইক্রোচিপ ভিএলএসআই ডিজাইন ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত
হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ, ক্যাডেন্স (ভিএলএসআই সরঞ্জাম ডিজাইনার), এসবিআইটি লিমিটেড বাংলাদেশ
বিস্তারিত