ইসরাইলি বিমান হামলায় একই পরিবারের আটজন নিহত

 

ফিলিস্তিনের গাজা অঞ্চলে ইসরাইলি বিমান হামলায় একই পরিবারের আটজন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার আবু মালহুসের এ নিহত পরিবারের জানাজায় শরিক হতে শত শত ফিলিস্তিনি জনতা গাজার কেন্দ্রে অবস্থিত আল মুজাহিদিন মসজিদে একত্র হন। এ সময় সবাই জিহাদের কালো পতাকা ধারণ করেছিলেন। এ হামলায় আরও অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া যায়।
বৃহস্পতিবার দুপুরে শত শত ফিলিস্তিনি নাগরিক গণহত্যায় নিহত আবু মালহুস ও তার পরিবারের জন্য শোক পালন করেন। আবু মালহুসের পরিবারের সবাই ইসরাইলি সেনাদের এ বিমান হামলায় নিহত হন। নিহত মালহুসের পরিবারটির গাজার দেইর আল বালাহ এলাকায় বাস করতেন।
এরই মধ্যে ইসরাইলের সেনাবাহিনী এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। সেনাবাহিনীর মুখপাত্র অবিকাই আদরাই একটি টুইট বার্তায় নিশ্চিত করেছেন, আবু মালহুসের পরিবারের ওপর আগে থেকেই হামলা করার টার্গেট ছিল তাদের।
নিহতদের দাফনের সময় উপস্থিত সবাই দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে ক্ষুব্ধ কণ্ঠে সেøাগানে মুখরিত করে তোলেন পুরো এলাকা। যারা নিহত হয়েছেন তাদের সবাই গাজায় নিজেদের ঘরে অবস্থানকালেই এ হামলার শিকার হন। হামলার ঘটনা ঘটে বৃহস্পতিবার সকালে। এতে পুরো পরিবারটিই নিঃশেষ হয়ে যায়।
এ ভয়াবহ হামলায় একই দিনে আবু মালহুস ও মোহাম্মদের পরিবারের ১১ সদস্য নিহত হয়েছেন বলে জানা যায়। হামলার শিকার অধিকাংশই ছিল শিশু। আহতদের অনেকেই এখন গাজার শুহাদা আল-আকসা হাসপাতালে গুরুতর অবস্থায় রয়েছেন। বোমা হামলার শিকার হওয়ার পর থেকে ১১ বছর বয়সি নর্মিন কথা বলতে পারছে না। এদিকে নর্মিনের চাচাতো ভাই রেম তার মৃত মায়ের খোঁজ চালিয়ে যাচ্ছেন।
বৃহস্পতিবার শহীদদের দাফনে উপস্থিত সবাই ক্ষোভে সেøাগান দিতে থাকেন এবং আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারেও দৃঢ় প্রত্যায় ব্যক্ত করেন। ‘জেরুজালেমে লাখ লাখ মানুষ শহীদ হচ্ছেন। এর যথাযথ বিচার কিংবা সমাধান হওয়ার আগ পর্যন্ত আমরা এ আন্দোলন চালিয়ে যাব’Ñ এভাবেই সেøাগান দিচ্ছিলেন উপস্থিত সবাই।
ইসলামি জিহাদপন্থি নেতা আহমাদ আল মুদাললাল জানাজায় অংশগ্রহণ করে বক্তব্য প্রদানকালে বলেন, ‘ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতিরোধ ও ইচ্ছার বিরুদ্ধে এ ভূমি দখল করার চেষ্টা করা হচ্ছে।’ 
এ সময় তিনি এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতেও ইসরাইলি দখলকারীদের সঙ্গে ফিলিস্তিনিদের অবিচল মনোভাব ও প্রতিবাদের প্রশংসা করেন। দুদিন ধরে চলমান এ তীব্র আন্দোলন দখলদারদের পিছু হটতে বাধ্য করবে বলেও মনে করেন তিনি।
ইসরাইলের সামরিক উপাত্ত অনুযায়ী, মঙ্গলবার থেকে ইসলামি জিহাদপন্থিদের অবস্থান লক্ষ করে চালানো ইসরাইলি বিমান হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৪ জনে দাঁড়িয়েছে এবং এতে আহত হয়েছেন শতাধিক। ফিলিস্তিন ভূখ- থেকে ইসরাইলে একের পর এক রকেট হামলার জবাবে এসব বিমান হামলা চালানো হয় বলে জানা যায়। এ হামলায় গত মঙ্গলবার নিহত হয়েছেন বয়োজ্যেষ্ঠ নেতা বাহা আবু আল আতা ও তার স্ত্রী।
চলমান এ আন্দোলনে ১৯৪৮ সালে ইসরাইল কর্তৃক দখলকৃত অঞ্চলগুলোতে ইসরাইলি সেনারা কয়েকশবার হামলা করেছে। অঞ্চলগুলোর দিকে রকেট ও শেল নিক্ষেপ করে তারা। বিশেষ করে তেল আবিব, জেরুজালেমের পশ্চিম দিকের এলাকা, হাদেরা ও আশদাদ শহরসহ বেশকিছু অঞ্চলে ভয়াবহ অবস্থা বিরাজ করছে। 
এ অবস্থায় ফিলিস্তিনি জনগণ তীব্র আন্দোলন শুরু করলে আন্দোলনের মুখে কাবু হয়ে ইসরাইলি সৈন্যরা অসংখ্য বাড়িঘর ভেঙে দিচ্ছে। এতে আক্রান্ত হচ্ছে গাজা উপত্যকায় প্রচুর নারী-শিশু। মৃত্যুর কোলেও ঢলে পড়ছেন অনেকেই।
এদিকে গাজা উপত্যকায় একটি যুদ্ধবিরতি চুক্তি কার্যকর হয়েছে বলে জানিয়েছে আলজাজিরা। 
বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টা থেকে ইসরাইলের সঙ্গে এ যুদ্ধবিরতি কার্যকরের ঘোষণা আসে মিশরীয় কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে। বার্তা সংস্থা এএফপিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইসলামি জিহাদপন্থি এক নেতা। মিশরের মধ্যস্থতায় যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছে দুই পক্ষ। তবে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করেই টানা দ্বিতীয় দিনের মতো অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা চালায় ইহুদিবাদী ইসরাইল। এতে গাজার অবস্থা অনিশ্চিত কোনো দিকে গড়াচ্ছে বলে আশঙ্কা বিশ্লেষকদের।

ি সূত্র : নিউ অ্যারাব


শীতকালের তাৎপর্য ও বিধিবিধান
শরিয়তে বিধানের অন্যতম একটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, কষ্ট বা প্রয়োজনের সময়
বিস্তারিত
পাথেয়
  ‘যেখানে থাকো, যে অবস্থায় থাকো, আল্লাহর ব্যাপারে তাকওয়া অবলম্বন করবে।
বিস্তারিত
শ্রেষ্ঠ নবীর শ্রেষ্ঠ স্বভাব
গত শুক্রবার মসজিদে নববিতে শীতার্ত এক বয়োবৃদ্ধ ওমরায় আগমনকারী গভীর
বিস্তারিত
মহিলাদের কবর জিয়ারত প্রসঙ্গে
কবর জিয়ারত পুরুষদের সঙ্গেই সম্পৃক্ত। নবীজি (সা.) বলেন, ‘তোমরা কবর
বিস্তারিত
পরিবেশ ও প্রকৃতি : ইসলামি
প্রাকৃতিক সৌন্দর্য রক্ষা ও দূষণ প্রতিরোধে সবার যথোচিত দায়িত্ব পালন
বিস্তারিত
লজ্জা অনৈতিক কাজের প্রতিবন্ধক
আল্লাহ তায়ালা বান্দাকে ভালো আর মন্দ, পাপ আর নেক উভয়
বিস্তারিত