এনাম রাজুর কবিতা

 

সূর্যকে অতিক্রম করার নেশায় চাঁদÑ
ছুটে চলে অবিরাম, ভুলে যায় নক্ষত্রের অবস্থান...

নিজেকে প্রমাণ করতে সে ঘোড়ার মতো দৌড়ায়
পাহাড় পর্বত বন পেরিয়ে পৌঁছে যায় পথের শেষে
তখনও সূর্য ছড়ায়নি তার আগমনী কিশোরী আলো
পথের শেষে দাঁড়িয়ে যখন তৃপ্তির হাই তোলে চাঁদ
সূর্যালো এসে তার দেহকে আলিঙ্গন করে।

খুশির পারফিউম মাখা চাঁদচোখ যখন মাটিতে তাকায়
তখনই বুঝতে পারে, এতক্ষণেও সে তার 
নিজের ছায়াকেই পারেনি অতিক্রম করতে!

দুই.

মানুষকে ভালোবাসার পর
এ আমার তৃতীয়বারের পুনর্জন্ম হলো...

প্রথম নারীকে আপন করতে অধিকারের কালাম পড়ি
তখনই সমুদ্র আমাকে বুকে টেনে নেয়
ঢেউয়ের আঘাতে পতাকার মতো উড়াউড়ি করি জলবাতাসে
সূর্য ডুবে যাওয়ার সাথে ঘুমের সম্পর্কটা যেমন স্বচ্ছ
ঠিক আমার কণ্ঠ রুদ্র হয়েছিল সেদিন...

দ্বিতীয়বার যখন ঘরহারা যুগলের, 
মাথার ওপর টেনে দিলামÑ নিশ্চিত মিলনের শামিয়ানা 
তখন রটেছিল পাড়ায় পাড়ায়
আমার অদৃশ্য লালা পড়া ঠোঁটের খবর। 

শেষবার একদল বিচিত্র অঙ্গহানিদের দিকে বাড়িয়েছি হাত,
সুখের নদীতে তাদের করাতে গোসল
কত পরিকল্পনা করেছি তা তো জানে তারাও,
অথচ একদিন গণমাধ্যমে শিরোনামÑ
ফকিরের অর্থ লুটে গড়েছি পাপের যৌথ খামার।

তবু আরও জন্ম নিতে চাই
উপকার না করলে কি রটে মিথ্যে খবর? 


নৈসর্গ, পাহাড় ও নদীর কবি
কবি ও কথাসাহিত্যিক আফিফ জাহাঙ্গীর আলির জন্মদিন পহেলা জানুয়ারি। ১৯৭৮
বিস্তারিত
এলোমেলো
মনে করো কেউ তোমাকে ডাকেনি,  অথচ তুমি শুনতে পাচ্ছো অতল
বিস্তারিত
বুড়ি চাঁদ
সুগন্ধি রোমাল হাতে         তুমি মেপে গেলে ষাঁড়ের
বিস্তারিত
প্রেমিক হতে পারি না আজকাল
প্রেমিকার উষ্ণ চুম্বনে কৃষ্ণগৌড় ঠোঁটে  ভেসে ওঠে শোষিত মানুষের রক্তের দাগ! 
বিস্তারিত
এ মাটি
এ মাটি আমাকে দিয়েছে জীবনের যতো গান, বাতাসে রৌদ্রের ঝিলিমিলি প্রজাপতি
বিস্তারিত
নোনাজলের ঢেউ
যাবতীয় আয়োজন শেষে কত ভেঙেছি  এ নদীতে নোনাজলের মিছিলের ঢেউ  শব্দবাণে
বিস্তারিত