চাঁদপুরে প্রবাসী প্রেমিকের স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি পেতে অনশন

চাঁদপুরে প্রতারণার মাধ্যমে প্রেমিক শেখ মো: মাহবুবুল আলম প্রেমিকা সোনিয়াকে ঢাকায় বিয়ে করে কিছুদিন হোটেলে রেখে সংসার করে বিদেশে পাড়ি দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এখন প্রবাসী প্রেমিক মাহবুবুল আলমের স্ত্রী হিসেবে স্বীকৃতি পেতে প্রেমিকা সোনিয়া আক্তার গত ২ দিন যাবত সদর উপজেলার পশ্চিম সেকদি গ্রামের শেখ বাড়িতে স্বামীকে না পেয়ে অনশন করে।

চাঁদপুর মডেল থানার পুলিশ অনশনরত প্রেমিকা সোনিয়া আক্তারকে অনশন অবস্থা থেকে উদ্ধার করে তার অভিভাবককে খবর পাঠায়। তার অভিভাবক না আসায় পুলিশ তাকে সোমবার বিকেলে আদালতে পাঠিয়ে দেয়। এ ঘটনায় প্রেমিকা সোনিয়া আক্তার গত ১৫ নভেম্বর চাঁদপুর মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করলেও মামলার প্রধান আসামি স্বামী প্রবাসী মাহাবুবুর রহমানকে পুলিশ এখনও সন্ধান করতে পারেনি।

এ প্রতারণা বিয়ের ঘটনার প্রমাণ হিসেবে সোনিয়ার সাথে প্রবাসী প্রেমিক শেখ মো: মাহবুবুল আলমের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কয়েকটি ছবিতে প্রমাণ মিলে তাদের বিয়ে ও সংসার করা হয়েছে।  

এদিকে সোনিয়া তার স্বামীর অধিকার পেতে ও বিয়েটি প্রতিষ্ঠা করতে প্রবাসী প্রেমিক শেখ মো: মাহবুবুল আলমের শেখ বাড়িতে গত শনি ও রোববার ২দিন অনশন শুরু করলে মাহবুবুল আলমের পরিবার সোনিয়ার ওপর ব্যাপক নির্যাতন চালায় এবং মারধর করে জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয় বলে সোনিয়া জানায়।

এ খবর চাঁদপুর মডেল থানায় আসার পর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: নাছিম উদ্দিনের নির্দেশে চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক পলাশ বড়ুয়া প্রেমিকা সোনিয়াকে রোববার সন্ধ্যায় উদ্ধার করে চাঁদপুর সদর মডেল থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে বাগাদী ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের মনির মেম্বার জানান, মেয়েটি খুব অসহায়, তাকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে প্রথমে হোটেলে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে বিয়ে করলেও প্রবাসী শেখ মাহবুব আলম তাকে স্বামীর স্বীকৃতি না দিয়ে হোটেলে রেখে চলে যায়। মেয়েটি প্রবাসী শেখ মাহবুব আলমের বাড়িতে যাওয়ার পর তার পরিবারের লোকজন সোনিয়াকে মারধর করে পুলিশকে ভুল তথ্য দিয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ এনে মেয়েটাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। এ ঘটনায় তার পরিবারের লোকজন তাকে পরিচয় না দেয়ায় সে এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

এ ব্যাপারে প্রবাসী মাহাবুব রহমানের পিতা বাবা সহিদ উল্যাহ সাংবাদিদের জানান, আমার ছেলে বাড়িতে নেই। কিন্তু এই মেয়েটি এসে আমার বসতঘরে ঢোকার পরে আমি থানায় খবর দেই।

পরে সংবাদ পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ রোববার সন্ধ্যায় এসে মেয়েটিকে উদ্ধার করে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ নিয়ে যায়।

চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক পলাশ বড়ুয়া জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো: নাছিম উদ্দিন জানান, উদ্ধার হওয়া সোনিয়ার কোন অভিভাবক নাই ।তার অভিভাবক না আসায় দেশের প্রচলিত আইন মোতাবেক আইনি প্রক্রিয়ায় তাকে চাঁদপুর আদালতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে আদালত সিদ্ধান্ত দিবে। সে মোতাবেক পুলিশ তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।


রুম্পাকে কৌশলে ছাদে নিয়ে যান
রাজধানীর স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী রুবাইয়াত শারমিন রুম্পার (২১)
বিস্তারিত
গার্লফ্রেন্ডের বাবা-মাকে দায়ী করে স্টামফোর্ড
রাজধানীর ধোলাইখালের একটি বাসা থেকে সায়েম হাসান শান্ত (২১) নামের
বিস্তারিত
ঢাবির ৫২তম সমাবর্তন দুপুরে
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ৫২তম সমাবর্তন আজ সোমবার। বিশ্ববিদ্যালয় শারীরিক শিক্ষা
বিস্তারিত
পুলিশের গুলিতে দুই আনসার সদস্য
সিরাজগঞ্জে অসতর্কতায় পুলিশ কনস্টেবলের গুলিতে দুই আনসার সদস্য আহত হয়েছেন।
বিস্তারিত
‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী
আশুলিয়ায় চিরকুট লিখে আখি আক্তার (১৫) নামে এক তরুণী আত্মহত্যা
বিস্তারিত
ফেনী উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত
জমকালো আয়োজনে ফেনী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত
বিস্তারিত