কয়েকটি অবহেলিত সুন্নত

 

রাসুল (সা.) এর সুন্নত থেকে মানুষ যতই বিস্মৃত হয়ে পড়ছে; ততই সমাজে বেদাতের প্রসার ঘটছে। অল্পসংখ্যক মানুষ, যারা ধর্মীয় জ্ঞানের চর্চা করছেন, তাদের অনেকের মাঝে দিন দিন সুন্নত পালনের প্রতি অবহেলা-উদাসীনতা বাড়ছে। ফলে সমাজ থেকে ক্রমে সুন্নতের আমল বিলুপ্তি ঘটছে। এমন নাজুক পরিস্থিতিতে রাসুল (সা.) এর এসব সুন্নতের ওপর আমলের পাশাপাশি সমাজে এগুলোর ব্যাপক প্রচার-প্রসার ঘটানো জরুরি।
রাসুল (সা.) এর সুন্নাহ অনুসরণ ছাড়া বান্দার ইহকালীন সফলতা ও পরকালীন মুক্তি কোনোটিই সম্ভব নয়। আল্লাহ তায়ালা বলেনÑ ‘আর যে কেউ আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের আনুগত্য করে, তাকে তিনি প্রবেশ করাবেন এমন এক জান্নাতে, যার তলদেশ দিয়ে প্রবাহিত হয় ঝরনা, সেখানে সে থাকবে স্থায়ীভাবে। এটা মহাসফলতা। আর যে কেউ আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের অবাধ্যতা করে এবং সীমালঙ্ঘন করে, তাকে তিনি প্রবেশ করাবেন জাহান্নামে, সে সেখানে চিরকাল থাকবে, তার জন্য রয়েছে লাঞ্ছনাদায়ক শাস্তি।’ (সূরা নিসা : ১৩-১৪)।
সুতরাং আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের আনুগত্যই হলো সফলতার আলোক-মিনার। আর এটাই মুক্তির আবাসস্থল, যার কোনো বিকল্প নেই।
এ সম্পর্কে রাসুল (সা.) বলেছেনÑ ‘আমি তোমাদের মধ্যে দুটি জিনিস রেখে গেলাম, যতক্ষণ এ দুটিকে আঁকড়ে ধরে রাখবে, ততক্ষণ তোমরা পথভ্রষ্ট হবে না। একটি হলো আল্লাহ তায়ালার কিতাব পবিত্র কোরআন, অপরটি হলো রাসুল (সা.) এর সুন্নত।’ (মুসতাদরাক আল হাকিম : ১/১৭২)।
রাসুল (সা.) এর কিছু সুন্নত বর্তমান সময়ে অবহেলার শিকার। এর মধ্যে কিছু সুন্নতের আমল কমে গেছে, আর কিছু সুন্নত মানুষ একেবারে ছেড়েই বসেছে।
গোসল করার সময় প্রথম অজু করা : আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল (সা.) যখন জানাবাতের গোসল করতেন, তখন প্রথমে দুহাত ধৌত করতেন এবং সালাতের অজুর মতো অজু করতেন।’ (বোখারি : ২৪৮)।
জুতা পরা ও খোলা প্রসঙ্গে : রাসুল (সা.) বলেছেনÑ ‘যখন তোমাদের কেউ জুতা পরিধান করবে, তখন প্রথমে ডান পায়ে পরিধান করবে। আর যখন জুতা খুলবে, তখন বাম পা থেকে আগে খুলবে। যাতে ডান দিকটা পরিধানের সয়য় প্রথম হয় এবং খোলার সময় শেষ হয়।’ (বোখারি : ৫৮৫৫)।
বসে পান করা : আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী করিম (সা.) দাঁড়িয়ে পান করতে নিষেধ করেছেন। কাতাদা বললেন, আমরা বললাম, দাঁড়িয়ে আহার করা কেমন? আনাস (রা.) বললেন, ‘তা আরও নিকৃষ্ট।’ (মুসলিম : ২০২৪)।
রাসুল (সা.) বলেছেনÑ ‘তোমাদের কেউ যেন দাঁড়িয়ে পান না করে। কেউ ভুলে পান করলে সে যেন তা বমি করে ফেলে।’ (মুসলিম : ২০২৬)।
পান করার সময় পাত্রের বাইরে নিশ্বাস ছাড়া এবং তিনবারে পান করা : রাসুল (সা.) বলেছেনÑ ‘তোমাদের কেউ যখন পান করে, তখন যেন পাত্রের ভেতর নিশ্বাস না ফেলে। আর যখন পায়খানায় যায়, তখন যেন ডান হাত দ্বারা নিজের লজ্জাস্থান স্পর্শ না করে এবং ডান হাত দ্বারা ইস্তেনজা না করে।’ (বোখারি : ১৫৩)।
রাসুল (সা.) পান করার সময় তিনবার শ্বাস গ্রহণ করতেন এবং বলতেনÑ ‘এতে উত্তমরূপে তৃপ্তি লাভ হয়, পিপাসার ক্লেশ দ্রুত দূর হয় এবং অতি সহজে গলাধঃকরণ হয়।’ (মুসলিম : ২০২৮)।
সফর থেকে ফিরে মসজিদে দুই রাকাত সালাত পড়া : ‘রাসুল (সা.) যখন কোনো সফর থেকে ফিরে আসতেন, তখন প্রথমে মসজিদে প্রবেশ করে দুই রাকাত সালাত আদায় করে নিতেন। অতঃপর লোকদের সঙ্গে বসতেন।’ (বোখারি : ৪৪১৮)।
পরিচিত-অপরিচিত সবাইকে সালাম দেওয়া : এক লোক রাসুল (সা.) এর কাছে জানতে চাইল, ‘ইসলামের কোন কাজ সবচেয়ে উত্তম?’ তিনি বললেনÑ ‘তুমি লোকদের আহার করাবে এবং পরিচিত-অপরিচিত সবাইকে সালাম দেবে।’ (বোখারি : ১২)।
নফল সালাত বাড়িতে আদায় করা : রাসুল (সা.) বলেছেনÑ ‘তোমরা তোমাদের ঘরেও কিছু সালাত আদায় করো। ঘরকে কবরে পরিণত করো না।’ (বোখারি : ৪৩২)।
তিনি আরও বলেছেনÑ ‘তোমরা তোমাদের ঘরে সালাত আদায় করো। কারণ ফরজ সালাত ব্যতীত লোকদের ঘরে আদায় করা সালাতই উত্তম।’ (বোখারি : ৭৩১)।
নিয়মিত মিসওয়াক করা : আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেছেনÑ ‘যদি আমার উম্মত বা মানুষের জন্য কষ্টকর না হতো; তবে আমি প্রত্যেক সালাতের সময় মিসওয়াক করার আদেশ দিতাম।’ (বোখারি : ৮৮৭)।
অন্য হাদিসে বর্ণিত আছেÑ ‘মিসওয়াক মুখের জন্য পরিচ্ছন্নতা এবং রবের সন্তুষ্টির মাধ্যম।’ (মুসলিম : ২৬১)।


ব্যক্তি ও সমাজ সংশোধনে লোকমান
প্রজ্ঞাময় কোরআনের উপদেশগুলোতে রয়েছে জ্ঞানীদের জন্য শিক্ষা। রয়েছে মহান আল্লাহর
বিস্তারিত
ইসলামে খাদ্য গ্রহণে পরিমিতিবোধ
প্রয়োজনের অতিরিক্ত সামান্য বেশি খাদ্য গ্রহণও ইসলামে কাম্য নয়। এতে 
বিস্তারিত
বাউল গানের নামে অপব্যাখ্যা কাম্য
যে কোনো বিষয়ে মন্তব্য করতে হলে প্রথমে ওই বিষয়ে পরিপূর্ণ
বিস্তারিত
শীত মৌসুমের দান ও উপহার
প্রচণ্ড গরমের পর কষ্টদায়ক শীতের আগমন ঘটেছে। তাপদাহের পর শীতের
বিস্তারিত
যে দশ আমলে জান্নাতে ঘর
পৃথিবীতে একটি ঘর তৈরি করতে মানুষ জীবনে কত চেষ্টা ও
বিস্তারিত
নবী ঈসা (আ.) এর প্রতি
‘তারা বলে, ‘পরম দয়াময় সন্তান গ্রহণ করেছেন!’ তোমরা তো এক
বিস্তারিত