নবীজির মসজিদে শীত

শ্রেষ্ঠ নবীর শ্রেষ্ঠ স্বভাব

গত শুক্রবার মসজিদে নববিতে শীতার্ত এক বয়োবৃদ্ধ ওমরায় আগমনকারী গভীর মনোযোগ দিয়ে জুমার খুতবা শ্রবণ করছেন

মুফতি ইবরাহীম আনোয়ারী

 

ইসলাম একটি সর্বজনীন কালজয়ী জীবন ব্যবস্থা। জীবনের প্রতিটি অধ্যায় সুন্দর ও সৌরভময় করতে মহানবী (সা.) ৬৩ বছরের বর্ণাঢ্য জীবনে উম্মতকে দিয়েছেন সুন্দর ও উজ্জ্বলময় পথনির্দেশ। নিম্নে রাসুল (সা.) এর কিছু উত্তম অভ্যাস তুলে ধরা হলো, যা অনুসরণ করলে মানবজাতি উপকৃত হবেÑ

- রাসুল (সা.) চলার সময় সামনে থেকে লোকদের হটিয়ে দিতেন না।

- রাসুল (সা.) কোনো জায়েজ বৈধ কর্ম থেকে বাধা দিতেন না। কেউ কোনো প্রশ্ন করলে উত্তর দেওয়ার ইচ্ছা থাকলে হ্যাঁ বলতেন, ইচ্ছা না থাকলে চুপ করে থাকতেন।

- কথা বলার সময় রাসুল (সা.) চেহারা মোবারক ফিরিয়ে নিতেন না, যতক্ষণ না যে কথা বলছে সে তার চেহারা ফিরিয়ে নেয়। কেউ তাঁর কানে কানে কথা বলতে চাইলে কান মোবারক তার দিকে করে দিতেন। কথা শেষ হওয়ার আগে কান সরিয়ে নিতেন না।

- কাউকে বিদায় দেওয়ার মুহূর্তে রাসুল (সা.) এ  দোয়াটি পড়তেন : আছ্তাউদি‘উল্লা-হা দিনাকুম্ ওয়া আমা-নাতাকুম্ ওয়া খাওয়াতিমা আ’মা-লিকুম্। (সুনানে তিরমিজি : ২/১৮২)।

- প্রিয় এবং পছন্দনীয় কোনো বস্তু রাসুল (সা.) এর নজরে পড়লে এ দোয়াটি পড়তেন : আলহামদু লিল্লা-হিল্লাযি বিনি’মাতিহি তাতিম্মুচ্ছা-লিহা-ত। আর খারাপ পরিস্থিতির সম্মুখীন হলে পড়তেন : আলহামদু লিল্লা-হি ‘আলা-কুল্লি হা-ল। (মুস্তাদরাক হাকেম : ১/৬৭৮; সুনান ইবনে মাজাহ : ১/২৭৮)।

- কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ হলে রাসুল (সা.) আগে সালাম দিতেন। (শামায়েলে তিরমিজি, পৃ. ১২)।

- পাশের কোনো কিছু দেখতে হলে চেহারা পুরোপুরি ফিরিয়ে দেখতেন। অহংকারীদের মতো চোখের কোনা দিয়ে তাকাতেন না। (খাসায়িল শরহে শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ১২)।

- দৃষ্টি অবনত রাখতেন। লজ্জার দরুন কারও প্রতি পরিপূর্ণ দৃষ্টি মেলে তাকাতেন না। (খাসায়িল শরহে শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ১২)।

- কাউকে কঠিন কথা বলতেন না। তিনি নরম প্রকৃতির, ধৈর্যশীল ও দয়ালু ছিলেন। (মিশকাতুল মাসাবিহ : ২/৫১২)।

- চলার সময় খুব শক্তভাবে মাটি থেকে পা ওঠাতেন। রাখার সময় খুব নম্রতার সঙ্গে একটু সামনের দিকে ঝুঁকে রাখতেন। উঁচু স্থান থেকে নিচের দিকে নামার ভঙ্গিতে হাঁটতেন। (খাসায়িল শরহে শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ১৩ ও ৭৩)।

- সবার সঙ্গে সরলভাবে মিশতেন, গম্ভীর হয়ে থাকতেন না, বরং হাসি-কৌতুকও করতেন। (বেহেশতি জেওর : ৮/৪)।

- কোনো গরিব ব্যক্তি বা বৃদ্ধা তাঁর সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তার কথা শোনার জন্য রাস্তার এক পাশে বসে যেতেন। (বেহেশতি জেওর : ৮/৪)।

- নামাজে যখন কোরআন তেলাওয়াত করতেন, তখন আল্লাহর ভয়ে তাঁর বক্ষ থেকে উনুনে ফুটন্ত হাঁড়ির মতো শব্দ আসত। (শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ১৮৮)।

- পরিবার-পরিজনের খুব খেয়াল রাখতেন। কাউকে কোনো ধরনের কষ্ট দিতেন না। রাতে বাইরে যেতে হলে খুবই সন্তর্পণে উঠে, ধীরে ধীরে জুতা পরিধান করে, খুব সন্তর্পণে দরজা খুলে বাইরে যেতেন। আসার সময়ও এভাবে আসতেন যাতে ঘুমন্ত ব্যক্তিদের ঘুমের ব্যাঘাত না ঘটে। তাদের কোনো কষ্ট না হয়। (মিশকাতুল মাসাবিহ, ১/২৮০ ও বেহেশতি জেওর, ৮/৪)।

- চলার সময় দৃষ্টি অবনত রাখতেন, জামাতবদ্ধভাবে চলার সময় সবার পেছনে থাকতেন। কারও সঙ্গে সাক্ষাৎ হলে তিনিই প্রথমে সালাম দিতেন। (শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ১২)।

- যে কোনো সম্মানিত ব্যক্তির সঙ্গে সম্মানের সঙ্গে আচরণ করতেন। (খাসায়িল শরহে শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ২)।

- নিজের সময়কে তিন ভাগে ভাগ করে নেন; একাংশ আল্লাহর ইবাদতের জন্য। আরেকাংশ পরিবারের জন্য নির্ধারণ করুন। যেমনÑ এ অংশে তাদের সঙ্গে হাসবেন, কথা বলবেন। আরেকাংশ বিশ্রামের জন্য রাখুন। (শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ১৮৮)। 

আপনার স্বভাব কেমন হবে

- সবসময় রাসুল (সা.) এর ওপর দরুদ শরিফ পড়তে থাকবেন।

- প্রতিবেশীর সঙ্গে উত্তম আচরণ করবেন, বড়দের সম্মান করবেন এবং ছোটদের স্নেহ করবেন। (মিশকাতুল মাসাবিহ, ২/৪২৩-৪২৪)।

- কোনো আত্মীয় যদি আপনার সঙ্গে খারাপ আচরণ করে তখন আপনি উত্তম আচরণ করবেন। (মিশকাতুল মাসাবিহ, ২/৫১৯)।

- যাদের আর্থিক অবস্থা দুর্বল তাদের খবর নেবেন। (মিশকাতুল মাসাবিহ, ২/৫১৯)।

- ডান অথবা বাম দিকে হেলান দেওয়া সুন্নত। (খাসায়িল শরহে শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ৭৬ ও যাদুল মাআদ, ১/১২০)।

- স্ত্রীর মন প্রফুল্ল রাখার জন্য তার সঙ্গে হাসি-কৌতুক করা সুন্নত। (খাসায়িল শরহে শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ১৯৮)।

- ফজরের নামাজের পর রাসুল (সা.) মসজিদে ইশরাক (সূর্য পূর্ণভাবে উদিত হওয়া) পর্যন্ত বসে থাকতেন। সাহাবারাও এভাবে বসে থাকতেন। (খাসায়িল শরহে শামায়িলে তিরমিজি, পৃ. ৭৬)। 

- অপর মুসলমান ভাইয়ের সঙ্গে হাশিখুশিভাবে কথা বলা সুন্নত। (সুনানে তিরমিজি, ২/১৮)।

- বাহনের ওপর বাহনের মালিককে সামনে বসার সুযোগ দেবেন। তার স্পষ্ট অনুমতি ব্যতিরেকে সামনে না বসা চাই। (মিশকাতুল মাসাবিহ, ২/৩৪০)।


পবিত্র শবে মেরাজ কবে, জানা
১৪৪১ হিজরি সনের পবিত্র শবে মেরাজের তারিখ নির্ধারণ এবং রজব
বিস্তারিত
মাতৃভাষার নেয়ামত ছড়িয়ে পড়ুক
ভাষা আল্লাহ তায়ালার বিরাট একটি দান। ভাষার রয়েছে প্রচ- শক্তি;
বিস্তারিত
ন তু ন প্র
বই : আল-কুরআনে শিল্পায়নের ধারণা লেখক : ইসমাঈল হোসাইন মুফিজী প্রচ্ছদ :
বিস্তারিত
উম্মতে মুহাম্মদির মর্যাদা
আল্লাহ তায়ালা যে বিষয়কে আমাদের জন্য পূর্ণতা দিয়েছেন, যে বিষয়টিকে
বিস্তারিত
যেভাবে সন্তানকে নামাজি বানাবেন
হাদিসে এরশাদ হয়েছে ‘তোমরা প্রত্যেকেই নিজ নিজ অধীনদের ব্যাপারে দায়িত্বশীল। আর
বিস্তারিত
আবু বাকরা (রা.)
নোফায় বিন হারেস বিন কালাদা সাকাফি (রা.)। তার উপনাম আবু
বিস্তারিত