শুরু হোক ইতিবাচক রাজনীতির স্রোতধারা

বর্তমানে পলিটিক্সে এক প্রকার বাণিজ্যিকরণ চলছে। এটাকে ট্রেড সেন্টার বানিয়ে বিনিয়োগ করে প্রফিট নিয়ে চলে যাচ্ছে একদল অসাধু পলিটিসিয়ান। বিনিয়োগের একটা ভাল জায়গা। লাভও প্রচুর। অথচ এমটা হওয়ার কথা ছিল না। রাজনীতি রাজনীতিবিদদের হাতেই নিরাপদ। ব্যাবসায়ি, আমলা বা ধনীক শ্রেনী রাজনীতিতে আসা মানেই রাজনীতির বারটা। লেজেগোবরে অবস্থা। চেতনা না থাকলে রাজনীতি হয় না, আদর্শ না থাকলে রাজনীতি হয় কলংকময়। রাজনীতির জন্য একটা ট্রেনিং থাকতে হয়। সেই ট্রেনিং মোক্ষম সময় ছাত্রজীবন। ছাত্ররাজনীতি না করে রাজনীতিতে আসলে রাজনীতি যন্ত্রটাই বিকল হয়ে পরে। এর ফলাফল হয় ভয়ংকর। নেতাদের বাসা, অফিসে হাজিরা দেওয়া বা সেলফি তুলে ফেসবুকে পোষ্ট দেয়া একটা অপরাজনীতি মাত্র। নেতার পিছনে লেগে থাকা, তেল মর্দন পা চাটা অনাদার্শিকতা ছাড়া আর কিছুই নয়। এ সমস্ত লোক দুর্দিনে দূরবীন দিয়েও খুঁজে পাওয়া যায় না। 

দল পাল্টানো, ভোল পাল্টানো, পল্টিবাজ, হাইব্রীড সকল দলেই আছে। এরা কখনও অপজিশন দল করে না। এরা রাজনীতির জন্য ক্যান্সার স্বরূপ। এদের মূল উৎপাটনে সকল প্রকৃত রাজনীতিবিদের সতর্ক থাকা উচিৎ। 

রাজনীতিতে বাণিজ্য বন্ধ করণে দল মত সকল নাগরিকদের ঐক্যবদ্ধ থাকা জরুরী। মনে রাখতে হবে রাজনীতিকে ঘৃণা করে বা পাশ কাটিয়ে চলা রাষ্ট্রিয় জীবনে অনুচিৎ।

বন্ধ হোক সব এ ধরনের অপরাজনীতি। শুরু হোক ইতিবাচক রাজনীতির স্রোতধারা।


লেখাটি বেকার শিক্ষিত সবার জন্য!
হাসিব মিয়া প্রতিদিনই সাভার থেকে ৭০ কেজি দুধ এনে ধানমন্ডির
বিস্তারিত
শুভ জন্মদিন সাংবাদিক নেতা আবু
ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) এর সভাপতি ও দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের
বিস্তারিত
একনজরে স্যার ফজলে হাসান আবেদ
না ফেরার দেশে চলে গেলেন বিশ্বের সর্ববৃহৎ বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা
বিস্তারিত
এ লজ্জা রাখি কোথায়?
আমরা জাতি হিসেবে সত্যিই লজ্জিত, আতঙ্কিত, বিস্মিত! একজন তরুণ হিসেবে
বিস্তারিত
একটা বাবা চাই
পাঁচটি আঙ্গুল আঁকড়ে ধরে আমিও হাঁটতে চাই। রোজ বিকেলে, সাঁঝ
বিস্তারিত
শুভ জন্মদিন মিরন আহাম্মেদ
আনন্দ টিভির ন্যাশনাল ডেক্স ইনচার্জ মিরন আহাম্মেদের আজ শুভ জন্মদিন।
বিস্তারিত