করোনা নিয়ে গুজবকারীরা দেশের মঙ্গল চায় না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দেশে কোন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী নেই, চীনফেরত যাদের মাঝে এই ভাইরাস পাওয়া গেছে তাদের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তারা সবাই এখন সুস্থ।

শুক্রবার বিকেলে মাদারীপুরে আছমত আলী খান সেন্ট্রাল হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি এ কথা বলেন।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, করোনা ভাইরাস যাতে দেশে না ঢুকতে পারে তার পূর্ণ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে সরকার। বিমানবন্দরে স্ক্যানার বসানো হয়েছে, এমনকি মেডিকেল টিমও রাখা হয়েছে। বিমানবন্দর দিয়ে প্রতিদিন ১২ হাজার যাত্রী আসে। এই মেডিকেল টিম ২৪ ঘন্টা এসব যাত্রীদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে। কারো দেহে এই রোগের ভাইরাস পাওয়া গেলে তাকে আলাদা করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে করোনা ভাইরাসের গুজব ছড়ায় তারা দেশের মঙ্গল কামনা করে না। মানুষকে আতঙ্কিত করা মোটেই কাম্য নয়। সকলে সজাগ থাকলে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর আশংকা নেই। বন্ধু দেশ চায়নায় করোনা ভাইরাসে আক্রন্তদের চিকিৎসার জন্য আমরা স্বাস্থ্যসেবার সরঞ্জামাদি পাঠাব। করোনা ভাইরাসে চায়নায় প্রায় দুই হাজারের মত মানুষ মারা গেছে। আরো প্রায় ৫০ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়ে আছে।

জাহিদ মালেক আরো বলেন, চীনে আটকা পড়া শিক্ষার্থীদের ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এছাড়া সরকারের আরো উচ্চ পর্যায়ে সিদ্ধান্ত নিবে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে সঠিক কোন সিদ্ধান্ত দিতে পারবে না। চীন থেকে যদি কেউ এই করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে দেশে ফিরে, তাহলে ডব্লিউএইচও’র গাইডলাইন ফলো করা হবে।

মন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার মান নিশ্চিত করার জন্য ইউনিয়ন পর্যায়ের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা করেছেন। উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে যেসব সরকারি হাসপাতাল রয়েছে তারও সেবার মান অনেক উন্নত করা হয়েছে। হাসপাতালগুলোতে স্থাপন করা হয়েছে আধুনিক যন্ত্রপাতি। স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নত করার জন্য যেখানে একটি মেডিকেল বিশ্বিবদ্যালয় ছিল এখন সেখানে আরো চারটি নতুন বিশ্বিবদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। উন্নত স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের জন্য দেশে সরকারি মেডিকেল কলেজ ৩৫টি, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ রয়েছে ৭০টি। একশর বেশি মেডিকেল কলেজ খুব কম দেশেই রয়েছে।

রোগীদের সেবা দানের জন্য আমাদের ওষুধের অভাব নেই। দেশের চাহিদা মিটিয়ে ওষুধ এখন বিদেশে রপ্তানি করা হয়। মুজিববর্ষে এই হাসপাতালটি খুলে দেয়া হলো, এজন্য স্মরণ করি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে, স্মরণ করি সকল শহীদদের প্রতি। বিশেষ করে স্মরণ করব যার নামে এই হাসপাতাল মরহুম আছমত আলী খান।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাজাহান খান এমপি, মাদারীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিয়াজ উদ্দিন খান, জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার উত্তম প্রসাদ পাঠক, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট ওবায়দুর রহমান খান, পৌর মেয়র মো. খালিদ হোসেন ইয়াদ, আছমত আলী খান সেন্ট্রাল হাসপাতালের চেয়ারম্যান সৈয়দা রোকেয়া বেগম প্রমুখ।

পরে মন্ত্রী মাদারীপুর সদর হাসপাতালে আছমত আলী খান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিনামূল্যে ১২তম আন্তর্জার্তিক তালু কাটা ও ঠোঁট কাটা ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন। 


দাবি আদায়ে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় কর্মবিরতি
জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ১৩-১৬ গ্রেডের কর্মচারীদের পদবি পরিবর্তন ও বেতন
বিস্তারিত
বোনের কবরের ভেতরেই মারা গেল
বোনের কবর খুঁড়তে খুঁড়তেই মারা গেলেন ছোট ভাই। বুধবার সকাল
বিস্তারিত
রংপুরে নেশাগ্রস্ত সন্তানকে পুলিশে দিলেন
রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা ৪নং কুমেদপুর ইউনিয়নের দিগদুয়ারী গ্রামে এক নেশাগ্রস্ত
বিস্তারিত
নোয়াখালীতে ছাত্র হত্যামামলায় ৩ আসামির
নোয়াখালীর সেনবাগে ২০১৮ সালে ৯ম শ্রেণির ছাত্র মো. আবু সাখের
বিস্তারিত
রাঙ্গুনিয়ায় ২ ইটভাটাকে লাখ টাকা
চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় অবৈধ দুই ইটভাটাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছেন
বিস্তারিত
লাকসামে ওয়ার্ড মেম্বারের পরিত্যক্ত ঘর
লাকসামে শহীদ উল্ল্যাহ চৌধুরী নামে এক ওয়ার্ড মেম্বারের পরিত্যক্ত ঘর
বিস্তারিত