শহীদদের স্মৃতির মিনারে নেমেছে সর্বস্তরের জনতার ঢল

ফুল হাতে, খালি পায়ে হেঁটে আসা নগরীর হাজারো মানুষের গন্তব্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। রাজধানীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তারা ছুটে এসেছেন ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে। এ যেন নগরীর সব পথ এসে মিশেছে শহীদ মিনারে। দিনের আলো ফুটে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে এসেছেন তারা।

নীলক্ষেত, আজিমপুর কবরস্থান থেকে পলাশী হয়ে মানুষের দীর্ঘ লাইন পড়ে গেছে শহীদ মিনার অভিমুখে। শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তারা বের হচ্ছেন দোয়েল চত্বর ও টিএসসি ক্রসিং দিয়ে।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের ঘোষণা মঞ্চ থেকে মাইকে বাজানো হচ্ছে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’। আর এই গানের সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে ধীর পায়ে শহীদ বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করছেন বিভিন্ন সংগঠন ও পেশার সাধারণ মানুষ।

নির্বাচন কমিশন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, বুয়েট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতিসহ অসংখ্য সংগঠন, রাজনৈতিক দল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সাধারণ মানুষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। অপেক্ষায় আছেন আরও  হাজারো মানুষ।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক  মো. আখতারুজ্জামান বলেন, আমাদের নতুন প্রজন্মের জন্য প্রমিত ও পরিশীলিত ভাষার উন্নয়ন খুব জরুরি। বাংলা যেন শুধু সাহিত্যের ভাষা না হয়, এই ভাষা হবে বিজ্ঞানের ভাষা, চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষা, প্রকৌশল বিজ্ঞানের ভাষা। তাহলেই বাংলা আরও  সমৃদ্ধ হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদ বাংলা ভাষার সঙ্গে বিভিন্ন ভাষার সংমিশ্রণ প্রসঙ্গে বলেন, বাংলা ভাষার মধ্যে বহু ভাষার শব্দ রয়েছে। এসব ভাষার শব্দ ব্যবহার করে বাংলা ভাষা সমৃদ্ধ হয়েছে। কাজেই কিছু কিছু ভাষা থেকে আসা শব্দ দোষের কিছু নয়। আমাদের হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সাহিত্য রয়েছে। আমাদের বাংলা ভাষার নিজস্ব চরিত্র রয়েছে। কিছু ভাষার শব্দ অনুপ্রবেশ ঘটলেই বাংলা ভাষা তার নিজস্ব চরিত্র হারাবে না।

এর আগে, রাত ১২টা ১ মিনিটে প্রথমে রাষ্ট্রপতি এবং এরপরই প্রধানমন্ত্রী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এ সময় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ কালজয়ী গানটি বাজানো হয়।

পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সেখানে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থেকে ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। এরপর স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী শহীদ বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ মন্ত্রীবর্গ ও সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে শহীদ মিনারে পুনরায় পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।


ঢাকা মেডিকেলের আইসোলেশনে থাকা একজনের
ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে আবুল বাশার (৫০)
বিস্তারিত
মঙ্গলবার থেকে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের পাঠদান
মাধ্যমিকের পাশাপাশি প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের পড়ালেখা অব্যাহত রাখতে  মাধ্যমে পাঠদান
বিস্তারিত
ঢাকা ছাড়লেন আরও ৩২২ মার্কিন
করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে ৩২২ জন মার্কিন নাগরিককে নিয়ে ঢাকা ছেড়েছে
বিস্তারিত
দেশের যে ৫ এলাকায় করোনার
বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের সামাজিক সংক্রমণ এখনো এলাকাভিত্তিক। ফলে করোনার ঝুঁকিতে রয়েছে
বিস্তারিত
ঢাকায় কাউকে ঢুকতে ও বের
করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে সংক্রমণ ঠেকাতে রাজধানী ঢাকার বাইরে থেকে ঢাকার
বিস্তারিত
সাধারণ ছু‌টি বাড়ল আরও ৩
করোনাভাইরাসের মহামারি পরিস্থিতিতে দেশে সাধারণ ছু‌টি আরও ৩ দিন বাড়িয়েছে
বিস্তারিত