নিখোঁজের ৩ যুগ পর ফিরলেও স্বামী-স্ত্রীর সাক্ষাতে বাধা ফতোয়া!

নওগাঁর সাপাহারে নিখোঁজের তিন যুগ পর বাসায় ফেরা এক ব্যক্তির পরিবারে আনন্দের বন্যা বইলেও গ্রাম্য ফতোয়ার কারণে তিন দিনে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে এখনও দেখা-সাক্ষাত করা সম্ভব হয়নি। এমনি ঘটনা ঘটেছে উপজেলার দক্ষিণ আলাদীপুর গ্রামে। 

তিন যুগ পর ফিরে আসা ব্যক্তির পারিবারিক ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে ওই গ্রামের মৃত- বাঘ রাজ্জাকের ছেলে তখনকার দিনে টগবগে যুবক নুরুজ্জামান বর্তমানে (৬০) ১৯৮২ সালে পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারণে তার বাবার ওপর রাগ করে স্ত্রী ও সন্তান রেখে নিরুদ্দেশ হয়ে যান। এর পরে তার পরিবারের লোকজনেরা তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে কোথাও না পেয়ে তার হাল ছেড়ে দেয়। পরবর্তীতে পরিবারের লোকজনের ধারণা সে হয়ত ভারতে পালিয়ে গেছে অথবা মারা গেছে। এই ধারণা নিয়ে নুরুজ্জামানের স্ত্রী আরিফন বিবি সে সময় তার গর্ভের সন্তানসহ নাবালক দুই ছেলেকে নিয়ে উপজেলার কৃষ্ণসদা গ্রামে তার বাবার বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয় এবং এখন পর্যন্ত দ্বিতীয় বিয়ে না করেই সেখানে সন্তানদের নিয়ে বাবার সংসারে বসবাস করছেন।

ইতোমধ্যেই তার সন্তানরা বিয়েশাদি করে মাকে নিয়ে সংসার করতে থাকে। এমনি অবস্থায় গত সোমবার দুপুরে হঠাৎ করে নিরুদ্দেশ হওয়া নুরুজ্জামানের আগমন ঘটে তার বাবার বাসা দক্ষিণ আলাদিপুর গ্রামে। দীর্ঘ ৩৮ বছর পর গ্রামে ফিরে আসায় নুরুজ্জামানকে নিয়ে গ্রামে বেশ হৈচৈ পড়ে যায়। সংবাদ পেয়ে নানার বাড়ি থাকায় তার ছেলেরা ছুটে চলে আসে বাবাকে একনজর দেখার জন্য। মুহূর্তে সেখানে বাবা-ছেলের মধ্যে ঘটে যায় এক মিলনমেলা। এই দৃশ্য দেখার জন্য শত শত দর্শক সেখানে ছুটে আসে। কিন্তু স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ইচ্ছে থাকলেও গ্রাম্য মাতব্বরদের ফতোয়ার কারণে একে অপরের সাথে এখনও সাক্ষাত কিংবা দেখা করতে পারেনি তারা।

গ্রামের লোকজন বলছে, কোন স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ১২ বছর সম্পর্ক না থাকলে সে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে যায়। এখন তারা আর স্বামী-স্ত্রী নয়। এ কথার ওপর ভিত্তি করে তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দেখা কিংবা কথা বলতে দেয়া হয়নি।

এ বিষয়ে ৩ যুগ পর ফিরে আসা নুরুজ্জামানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, সে সময় তিনি তার বাবার ওপর রাগ করে বাড়ি হতে বের হয়ে গেছিল, এর পর সে দীর্ঘ দিন রংপুর শহরে থেকে জীবনযাপন করতে থাকে এবং ১৯৮৫ সালের দিকে আর বাসায় ফিরবে না প্রতিজ্ঞা করে সেখানে দ্বিতীয় বিয়ে করে নতুন করে সংসার পাতে।

এরই মধ্যে সেখানে তার সে সংসারে ৩টি ছেলের জন্ম হয়। এর মধ্যে নিজ বাসায় ফিরতে তার ইচ্ছে হলেও বিভিন্ন কারণে তার আসা হয়নি। এখন তিনি দুটি সংসারই রেখে নতুন করে আগের সংসারের সাথে সম্পর্ক রাখতে চান।

স্ত্রী আরিফনের সাথে কথা হলে তিনিও জানান, তার স্বামীর সাথে দেখা ও সংসার করতে চান তবে শরিয়তের কোন বিধিনিষেধ থাকলে সেগুলি ওভারকাম করে তিনি তার স্বামীর সাথে দেখা করবেন বলেও জানান।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট গোয়ালা ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান মুকুলের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে বিষয়টি তিনি জানেন না। তবে এখন জানতে পেরেছেন, নোটিশ করে বোর্ডে ডেকে তাদের একটি সমাধান করে দিবেন বলে জানিয়েছেন। বর্তমানে নিখোঁজ হওয়া নুরুজ্জামান তার বড় ছেলে হাপানিয়া শিয়ালমারী গ্রামে রয়েছেন।


রংপুরে কয়েক হাজার অসচ্ছল অসহায়দের
করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবেলা করতে রংপুর সিটি করপোরেশনের (রসিক) মেয়র মোস্তাফিজার
বিস্তারিত
আমতলীতে কর্মহীনদের খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছেন
বরগুনার আমতলী পৌর এলাকায় করোনাভাইরাসের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া পৌরসভার
বিস্তারিত
ঘরে ঘরে গিয়ে কর্মহীনদের খাদ্য
বরগুনার আমতলী উপজেলায় ৭টি ইউনিয়ন একটি পৌরসভায় ৪ লাখ লোকের
বিস্তারিত
বরিশালে ৬ রোগীর করোনা পরীক্ষার
বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা ৬জন সন্দেহভাজন
বিস্তারিত
বরিশালে ক্ষুধার্ত কুকুরের পাশে মানবিক
করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবেলায় ২৬ মার্চ থেকে বরিশাল নগরীর সকল হোটেল-রেস্তোরা
বিস্তারিত
রূপগঞ্জে ফোন করলেই বাসায় খাবার
প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের অনেক
বিস্তারিত