logo
প্রকাশ: ০৪:৪৬:৪৮ PM, বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৭, ২০১৭
কনের বয়স ১৯, বরের ৯!
অনলাইন ডেস্ক

অসম বয়সী জুটি হিসেবে গ্রামবাংলার জনপ্রিয় যাত্রাপালা ‘রহিম বাদশা ও রূপবান’র সেই ব্যতিক্রমী কাহিনির সঙ্গেও যেন এর খানিকটা মিল খুঁজে পাওয়া যায়। ৯ বছর বয়সের এক নাবালকের সঙ্গে বিয়ে হয়েছে এক উনিশ বছরের তরুণীর।

তবে এটি বাস্তবে নয়, অসম বয় দম্পতির এই ফুলশয্যা দেখানো হয়েছে ভারতের ‘পেহরেদার পিয়া কি’ টিভি সিরিয়ালে। এ নিয়ে দেশটিতে বিতর্ক শুরু হয়েছিল। এবার, সেই সিরিয়ালকে শর্তসাপেক্ষে দেখানোর নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণলায়।

প্রাইম টাইম অর্থাৎ রাত সাড়ে আটটার সময় একটি হিন্দি টেলিভিশন চ্যানেলে দেখানো হয় এই সিরিয়াল। ব্রডকাস্টিং কন্টেন্ট কমপ্লেন্টস কাউন্সিল (বিসিসিসি)-এর নির্দেশে সেই সময় বদল হতে চলেছে। সিরিয়ালটির সময় বদলে ‘রেস্ট্রিক্টেড’ স্লট, রাত ১০টা করতে হবে।

সম্প্রচারকারী সংস্থাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, সিরিয়াল চলাকালীন পুরো সময় ধরে একটি স্ক্রোল চালাতে হবে, যেখানে লেখা থাকতে হবে, ‘এই সিরিয়ালের গল্প সম্পূর্ণ কাল্পনিক। চ্যানেল কোনও ভাবেই বাল্য বিবাহ প্রথাকে সমর্থন বা তার প্রচার করে না।’ 

যদিও এ নিয়ে চ্যানেল কর্তৃপক্ষের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

ধারাবাহিকটি একটি ৯ বছর বয়সী ছেলের সঙ্গে ১৯ বছর বয়সী যুবতীর বিয়ে ও তার পরবর্তী সাংসারিক জীবনের চিত্রনাট্য নির্ভর। সম্প্রতি এই অসম জুটির মধুচন্দ্রিমায় যাওয়া এবং নানা অন্তরঙ্গ দৃশ্য দেখানো ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়। রীতিমতো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন দর্শক।

দাবি ওঠেছে, এ ধরনের দৃশ্য দর্শক ও শিশুদের মনে কুপ্রভাব ফেলতে পারে। তাই অবিলম্বে ধারাবাহিকটি দেখানো বন্ধ করা উচিত। এর পরেই কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিকে উদ্দেশ্য করে একটি অনলাইন সাইটে পিটিশন শুরু হয়। পিটিশনে সই প্রায় ৬৭ হাজারেরও বেশি ছাড়িয়ে গিয়েছিল। 

সূত্র: দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া 

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]